1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

মুক্ত চিন্তা: কাটা পড়ছে দু'দিক থেকেই

বাংলাদেশের মুক্ত চিন্তার ওপর এখন আঘাত আসছে দু'দিক থেকেই৷ উগ্রবাদী ধর্মান্ধগোষ্ঠী এখন ‘নাস্তিক-ব্লগার' ছাড়িয়ে লেখক-প্রকাশকদের ওপর হামলা চালাচ্ছে, হত্যা করছে৷ সরকার নানা আইন আর অজুহাতে মুক্তমত প্রকাশকে বাধাগ্রস্ত করছে৷

এ অভিযোগ মানবাধিকার কর্মী এবং সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের৷ বলা বাহুল্য, বাংলাদেশে ব্লগার হত্যার আগেই সাহিত্যিকদের ওপর হামলা হয়৷ প্রথাবিরোধী লেখক হুমায়ুন আজাদের ওপর হামলা হয় ২০০৪ সালে ২৭শে ফেব্রুয়ারি৷ পরে তিনি জার্মানিতে মারা যান৷ এরপর গত এক বছরে চারজন ব্লগারকে হত্যা করা হয়৷ সর্বশেষ প্রকাশকদের ওপর হামলা এবং প্রকাশক দীপনকে হত্যা করা হয়৷

আর মঙ্গলবার হত্যার হুমকি দেয়া হয় সাহিত্যিক এবং শিক্ষাবিদ অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামানকে৷ তিনিসহ ৩৪ জন লেখক ও বুদ্ধিজীবী এই হামলা ও হত্যার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে বিবৃতি দেয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই তাঁকে হুমকি দেয়া হয়৷

অন্যদিকে বাংলাদেশ সরকার এখন ফেসবুকসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও অনলাইন নিয়ন্ত্রণের চিন্তা করছে৷ তারা মনে করছে এইসব সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং অনলাইনের সুবিধা নিচ্ছে সন্ত্রাসী এবং জঙ্গিরা৷ তবে এর আগে ব্লগার আসিফ মহিউদ্দিনসহ চারজন ব্লগারকে আটক করা হয় তথ্য প্রযুক্তি আইনে৷ এই আসিফ মহিউদ্দিনকে হত্যার উদ্দেশ্যে গুরুতর জখম করেছিল উগ্রবাদীরা৷

মানবাধিকার নেতা নূর খান ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘এখন আর কথিত নাস্তিক ব্লগার নয়, উগ্রবাদীরা প্রকাশক লেখকসহ মুক্তচিন্তার সবাইকে টার্গেট করেছে৷ তারা মূলত দেশে একটা ভীতিকর অবস্থা সৃষ্টি করে দেশে জঙ্গিবাদের বিস্তার ঘটাতে চায়৷''

তিনি বলেন, ‘‘পরিস্থিতি এখনই নিয়ন্ত্রণে না আনলে আমাদের সামনে আরো খারাপ অবস্থা অপেক্ষা করছে৷ দেশে মুক্ত চিন্তা আজ বিপর্যয়ের মুখে৷''

তিনি আরো বলেন, ‘‘অন্যদিকে সরকার আইসিটি আইনের ৫৭ ধারা দিয়ে মুক্ত চিন্তা, বাক স্বাধীনতাকে নিয়ন্ত্রণ করতে চাইছে৷ এই আইনের প্রয়োগ করে সরকার তার সমালোচনা বন্ধ করতে চাইছে৷ আর এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ অনলাইন নিয়ন্ত্রণের কথা শোনা যাচ্ছে৷ এটা হলে মুক্তচিন্তা আরো বাধাগ্রস্ত হবে৷'' তাঁর মতে, ‘‘সরকার যতই বলুক সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমনে এটা করা হচ্ছে, বাস্তবে তা নয়৷ বাস্তবতা হচ্ছে সরকার মুক্তচিন্তাকে নিয়ন্ত্রণ করতে চায়৷''

সরকার কি সত্যিই মুক্তচিন্তাকে নিয়ন্ত্রণ করতে চায়? আপনি কী বলেন? জানান নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন