মিয়ানমারে সেনাবাহিনীর আসল মতলব কী? | বিশ্ব | DW | 10.11.2015
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

মিয়ানমারে সেনাবাহিনীর আসল মতলব কী?

মিয়ানমারের সংসদ নির্বাচনে ভোটগ্রহণ প্রক্রিয়া ছিল অত্যন্ত শান্তিপূর্ণ৷ অপ্রিয় ঘটনারও তেমন খবর পাওয়া যায়নি৷ কিন্তু ফলাফল ঘোষণার ক্ষেত্রে অস্বাভাবিক বিলম্বকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা দেখা দিচ্ছে৷

সংসদে সেনাবাহিনীর জন্য সংরক্ষিত আসনগুলি ছাড়া প্রায় সব ভোটই পড়েছে অং সান সু চি-র এনএলডি দলের ঝুলিতে৷ সু চি নিজে মনে করেন, দল প্রায় ৭৫ শতাংশ ভোট পেয়েছে৷ সেনা-সমর্থিত ইউএসডিপি সরকার জনগণের এই রায় মেনে নেবে – এটাই তিনি ধরে নিচ্ছেন৷ দলের আরেক নেতা ৮১ শতাংশ ভোট জয়ের আশা করছেন৷ ইউএসডিপি নেতা কি উইন স্বীকারও করে নিয়েছেন, যে তাঁর দলের সম্পূর্ণ পরাজয় ঘটেছে এবং এনএলডি-র জয় হয়েছে৷

রবিবার ভোটগ্রহণের পর সরকারি ফলাফল ঘোষণার প্রক্রিয়ায় অস্বাভাবিক বিলম্বের ফলে সেনাবাহিনীর প্রকৃত উদ্দেশ্য নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠছে৷ এনএলডি সরাসরি সরকারের নির্বাচনি প্যানেলের বিরুদ্ধে ইচ্ছাকৃতভাবে ফলাফল ঘোষণায় বিলম্বের অভিযোগ এনেছে৷ তারা কোনো কূটকৌশলের আশ্রয় নিচ্ছে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন দলের মুখপাত্র উইন টিয়েন৷

মিয়ানমারের এবারের নির্বাচন সম্পর্কে কিছু মৌলিক তথ্য শেয়ার করেছেন স্টেফান সিমানোভিৎস৷

অতীতে গণতন্ত্রের দিকে অগ্রসর হয়েও একাধিকবার আবার সামরিক শাসনের পথে ফিরে গেছে মিয়ানমার৷ এ ক্ষেত্রে ‘হিউম্যান রাইটস ওয়াচ' সংস্থার মূল্যায়ন শেয়ার করেছেন কাইল নাইট৷

মিয়ানমারে গণতন্ত্রের ভবিষ্যৎ সম্পর্কে সংশয় প্রকাশ করে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে দ্য গার্ডিয়ান সংবাদপত্রে৷ সেটি শেয়ার করেছেন মিশেল পেনা৷

রোহিঙ্গা ও মিয়ানমারে মুসলিমদের ভবিষ্যতের প্রশ্নে অং সান সু চি-র নীরবতা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে বার বার৷ ফলে ক্ষমতায় এসে তিনি এই সংকট সমাধানে কী করবেন, তাও স্পষ্ট নয়৷

প্রতিবেশী দেশ হিসেবে মিয়ানমারের নির্বাচনের দিকে লক্ষ্য রাখছে বাংলাদেশ৷ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অং সান সু চি-কে অভিনন্দনবার্তা পাঠিয়েছেন৷

মিয়ানমারের জনগণকে অভিনন্দন জানিয়েছেন জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি-মুন৷

সংকলন: সঞ্জীব বর্মন

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

গণতান্ত্রিক নির্বাচন সত্ত্বেও মিয়ানমারে ক্ষমতার হস্তান্তর শান্তিপূর্ণভাবে ঘটবে কি? আপনার কী মত? জানিয়ে দিন নীচের মন্তব্যের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়