1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

মিয়ানমার

মিয়ানমারে সংঘাতপূর্ণ এলাকায় শিশুরা সংকটাপন্ন: জাতিসংঘ

মিয়ানমারের সংঘাতপূর্ণ প্রত্যন্ত এলাকায় অন্তত ২২ লাখ শিশুর বাস৷ রাখাইন রাজ্যসহ বেশ কয়েকটি এলাকায় গত কয়েক দশক ধরে  শিশুরা সুবিধাবঞ্চিতই রয়ে গেছে৷ ইউনিসেফের প্রতিবেদনে উঠে এসেছে তাদের দারিদ্র্য ও সংকটের কথা৷

জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ মিয়ানমারের তরুণ প্রজন্মের ভবিষ্যত নিশ্চিত করতে সে দেশের সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে৷ ২০১১ সালে মিয়ানমার সেনা শাসনের পথ ছেড়ে গণতন্ত্রের পথে হাঁটতে শুরু করে৷ ফলে সেই সময় থেকে সে দেশে প্রচুর বৈদেশিক বিনিয়োগকারী এগিয়ে এসেছে৷

সেসময় থেকে সরকার দেশের অর্থনীতি, শিক্ষা, স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়ন এবং শিশুদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের কথা বলে আসছে৷ কিন্তু ইউনিসেফ বলছে, প্রত্যন্ত অঞ্চলের এই শিশুরা কেবল নিরাপত্তা নয়, সব ধরনের সুযোগ সুবিধা থেকেই বঞ্চিত৷

ইউনিসেফের উপ নির্বাহী পরিচালক জাস্টিন ফোরসাইথ সংবাদ সংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছেন, ‘‘প্রত্যেকটি এলাকার শিশুদের নিরাপত্তা ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে এখনো চ্যালেঞ্জের মোকাবিলা করতে হচ্ছে মিয়ানমারকে৷ বিশেষ করে সংঘাতপূর্ণ রাখাইন রাজ্যে দরিদ্র শিশুরা কোনো সুবিধাই পাচ্ছে না৷’’

রাখাইন ছাড়া কচিন, শান এবং কাইন রাজ্যের শিশুরাও মানবিক বিপর্য়ের মুখে রয়েছে বলে জানিয়ে ইউনিসেফ৷ সংগঠনটির একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রতি বছর মিয়ানমারে পাঁচ বছরের কম বয়সি অন্তত ১৫০ শিশুর মৃত্যু হয়৷ বেশিরভাগ শিশু প্রাণ হারায় মায়ের প্রসবকালীন জটিলতা এবং সংক্রমণের কারণে৷ এছাড়া ঐসব রাজ্যের ৩০ ভাগ শিশু অপুষ্টিতে ভুগছে এবং তাদের অর্ধেকেরও বেশি দারিদ্র্যসীমার নীচে অবস্থান করছে৷ তাই অবিলম্বে এই শিশুদের জীবনমান উন্নয়নের জন্য মিয়ানমার সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে ইউনিসেফ৷

এপিবি/এসিবি (ডিপিএ, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়