1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

মিয়ানমারে জাতিসংঘের মানবাধিকার দূত

মিয়ানমারের সামরিক জান্তা মিয়ানমারে চলতি বছর নির্বাচন অনুষ্ঠানের ঘোষণা দিয়েছে৷ এটা কৌশল না রাজনৈতিকসংস্কারের ইঙ্গিত ? পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে মানবাধিকার বিষয়ক জাতিসংঘের বিশেষ দূত এখন মিয়ানমারে৷

default

জাতিসংঘের মানবাধিকার সংক্রান্ত বিশেষ দূত টমাস ওহেয়া কিনতানা

মানবাধিকার বিষয়ক জাতিসংঘের বিশেষ দূত টমাস কিনটানা পাঁচ দিনের সফরে সোমবার মিয়ানমার পৌঁছেছেন৷ তিনি সামরিক জান্তার শীর্ষ প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হবেন এবং দেশটির মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে আলাপ আলোচনা করবেন৷ পীড়নের জন্য কুখ্যাত ইনসেইন কারাগার পরিদর্শনেরও পরিকল্পনা আছে তাঁর৷ এই কারাগারে বেশ কিছু রাজনৈতিক নেতা কর্মীকে আটক করে রাখা হয়েছে৷ টমাস কিনটানা গৃহবন্দি নোবেল পুরস্কার বিজয়ী বিরোধী নেত্রী অং সান সু চি এর সাথেও দেখা করতে আগ্রহী৷ তবে সোমবার পর্যন্তও এ ব্যাপারে নিশ্চিৎ হওয়া যায় নি৷

গত সপ্তাহান্তে অং সান সুচি'র একজন সহকর্মীকে মুক্তি দেয়া হয়েছে৷ ৮২ বছর বয়সি টিন উ'কে দুই হাজার তিন সালে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল অং সান সু চি'র সাথে৷ টিন উ সাত বছর জেলে বন্দি ছিলেন কোন বিচার ছাড়াই৷ জানুয়ারির শেষে সামরিক জান্তার একজন শীর্ষস্থানীয় সদস্য চলতি বছরের নভেম্বর মাসে অং সান সুচিকে মুক্তি দানের সম্ভাবনার কথা বলেছিলেন৷ অর্থাৎ তাঁর সাজার মেয়াদ শেষে এবং সম্ভবত অক্টোবর বা নভেম্বরে অনুষ্ঠেয় নির্বাচনের পরে তাঁকে মুক্তি দেয়া হতে পারে৷

Symbolbild Flagge von Myanmar und Foto von Suu Kyi

অং সান সু চি

অং সান সু চি'র আইনজীবী নিয়ান উইন বলেছেন, অক্টোবরে মুক্তি দিলে তা খুব দেরি হয়ে যাবে৷ তিনি সুচি'র বিরুদ্ধে দেয়া রায় সম্পর্কে আপিল করেছেন৷ তবে এ ব্যাপারে আদালত এখনও কোন সিদ্ধান্ত নেয় নি৷ নিয়ান উইন বলেন,অং সান সু চিকে যদি নির্বাচনের পরে মুক্তি দেয়া হয় তাহলে কোন জাতীয় আপোশ হতে পারেনা৷ আর সুপ্রিম কোর্টও যদি সিদ্ধান্ত দেয় যে, তার আগেই তাঁকে মুক্তি দেয়া হবে তাহলেও তাঁর মুক্তি নির্ভর করবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর ওপর৷

সামরিক জান্তার প্রধান জেনারেল থান শোয়ে গত বারোই ফেব্রুয়ারি মিয়ানমারের জাতীয় দিবসে ঘোষণা করেন, চলতি বছর তাঁর দেশে অবাধ নির্বাচন অনুষ্ঠানের কথা৷ তবে নির্বাচনের তারিখ সম্পর্কে তিনি কিছু বলেন নি৷ রাজনৈতিক দল গঠনের শর্ত সম্বলিত নির্বাচনী আইন কবে ঘোষণা করা হবে তাও তিনি জানাননি৷ ফলে ততদিন পর্যন্ত বিরোধী গ্রুপগুলো কোন নির্বচনী প্রচারও করতে পারবেনা৷

প্রতিবেদক: আবদুস সাত্তার

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়