1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

মিশরে সংসদ বিলুপ্ত, সেপ্টেম্বরে নির্বাচন

সংসদ বিলুপ্ত করে আগামী সেপ্টেম্বরে নির্বাচন অনুষ্ঠানের ঘোষণা দিলো মিশরের সেনাবাহনী৷ এছাড়া দেশটির সংবিধানও স্থগিত করার ঘোষণা দেয়া হয়েছে৷ এবং সংবিধান সংশোধনে একটি প্যানেল গঠনের কথা বলা হয়েছে৷

default

ঊর্ধ্বতন সামরিক পরিষদের প্রধান মোহাম্মদ হুসেন তানতাউয়ি

সরকারি টেলিভিশন সূত্রে জানা গেছে এসব তথ্য৷

নির্বাচনের মাধ্যমে নতুন সরকার গঠিত না হওয়া পর্যন্ত বর্তমান মন্ত্রীরাই দায়িত্ব পালন করবেন বলেও সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে৷

এদিকে মুবারকের পতনের পর রবিবার প্রথমবারের মত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সদস্যরা বৈঠকে মিলিত হয়েছেন৷ এরপর প্রধানমন্ত্রী আহমেদ শফিক এক সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন হোসনি মুবারক এখনো মিশরেই আছেন৷ এছাড়া তিনি বলেন নিরাপত্তা ফিরিয়ে আনা এখন সরকারের প্রথম কাজ৷ এছাড়া জনগণের অধিকার ফিরিয়ে দেয়া ও দুর্নীতির বিরুদ্ধেও লড়াই করবে সরকার, বলেন প্রধানমন্ত্রী শফিক৷

মিশরের পরিস্থিতি

Ägypten Premierminister Ahmed Shafik

প্রধানমন্ত্রী আহমেদ শফিক

ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হয়ে আসছে৷ রাজধানী কায়রো আবারও ব্যস্ত হয়ে উঠছে৷ বিক্ষোভের পর প্রথমবারের মতো তাহরির চত্বর এলাকায় যান চলাচল শুরু করেছে৷ তবে এখনো বেশ কিছু বিক্ষোভকারী সেখানে অবস্থান করছেন৷

এদিকে কলংক মুছতে সকালের দিকে বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্য তাহরির চত্বরে গিয়ে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে ভর্ৎসনার শিকার হন৷ কারণ বিক্ষোভের সময় পুলিশই আন্দোলনকারীদের উপর ঝাঁপিয়ে পড়েছিল৷ তবে পুলিশের দাবি, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কঠোর নির্দেশের কারণেই তাঁরা বিক্ষোভের সময় জও রকম করেছিলেন৷

আন্দোলন চলার সময় কায়রোর বিখ্যাত জাদুঘর থেকে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সংগ্রহ চুরি হয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন সরকারের এক মন্ত্রী৷

ইসরায়েলের সঙ্গে যোগাযোগ

ইসরায়েলের প্রতিরক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে মিশরের ঊর্ধ্বতন সামরিক পরিষদ প্রধানের টেলিফোনে কথা হয়েছে৷ ইসরায়েলের পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে৷ উল্লেখ্য, আরব বিশ্বে একমাত্র মিশরের সঙ্গেই ইসরায়েলের একটা শান্তিচুক্তি রয়েছে৷ এবং মুবারকের সঙ্গে ইসরায়েলের বেশ ভাল সম্পর্ক ছিল৷ তাই বিক্ষোভ চলাকালীন সময়ে কী হয় সেটা নিয়ে ইসরায়েল বেশ উদ্বিগ্ন ছিল৷ পরে যখন মুবারকের পতন হয় তখন এক প্রতিক্রিয়ায় ঐ শান্তিচুক্তি মেনে চলতে মিশরের প্রতি আহ্বান জানায় ইসরায়েল৷ পরে মিশরের পক্ষ থেকে জানানো হয় যে, তারা আন্তর্জাতিক সব চুক্তি মেনে চলবে৷ এই কথায় ইসরায়েলে স্বস্তি নেমে আসে৷

প্রতিবেদন: জাহিদুল হক

সম্পাদনা: ফাহমিদা সুলতানা

নির্বাচিত প্রতিবেদন