1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

মায়ের দুধ খাওয়ানোয় উৎসাহ দিচ্ছে চীন

কি ওয়েনজুয়ান হাসপাতালে শুয়ে সন্তানকে বুকের দুধ খাওয়াচ্ছেন৷ খুব ভালো লাগছে তাঁর৷ কিন্তু চার মাস পরে কী হবে? চীনে শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ানো আশঙ্কাজনক হারে কমছে৷ সরকার অবশ্য পরিস্থিতির পরিবর্তনের জন্য কিছু ব্যবস্থা নিচ্ছে৷

চীনের মায়েদের মধ্যে সন্তানকে বুকের দুধ খাওয়ানোর প্রবণতা খুব কম৷ কম হবার সবচেয়ে বড় দুটো কারণ কর্মজীবী মায়েদের সন্তানকে ঘরে রেখে বেশির ভাগ সময় বাইরে থাকা এবং ফিগার সচেতনতা৷ চীনে মাতৃত্বকালীন ছুটি সর্বোচ্চ চার মাস৷ স্বাভাবিক কারণেই কর্মজীবী মায়েরা ওই চার মাস নবজাতকের কাছে থাকেন, তারপর ফিরে যেতে হয় কর্মজীবনে৷ তখন দাদি বা নানির কাছে থাকতে হয় সন্তানকে৷ কাজের সূত্রে মা থাকে বাইরে৷ সন্তানের বুকের দুধ খাওয়া বন্ধ৷

Stillende Mutter mit Baby

চীনে শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ানো আশঙ্কাজনক হারে কমছে

মায়েদের আরেকটা বড় অংশ মনে করেন, সন্তানকে নিয়মিত বুকের দুধ খাওয়ালে স্তন আর আকর্ষণীয় থাকবেনা৷ মায়েদের অপারগতা, অবহেলা বা অসচেতনতাকে কাজে লাগাচ্ছে বেবি ফর্মুলা৷ টিনজাত এই দুধ খাওয়ালে বাচ্চাদের লাভের চেয়ে ক্ষতি বেশি – এটা জেনেও অনেক মা বাধ্য হন বিদেশি টিনজাত দুধ খাওয়াতে৷ ফিগারসচেতন মায়েরা তো আগে থেকেই বুকের দুধের বিকল্প ব্যবস্থা খুঁজতে আগ্রহী৷ সেই আগ্রহ বাড়ছে বলে শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ানোর প্রবণতা কমছে৷

বড় দুশ্চিন্তা হলো, মাতৃত্বকালীন ছুটির সময়, অর্থাৎ সন্তান জন্ম নেয়ার ঠিক পরের সময়টাতেও ইদানিং চীনের মায়েরা ঘরে তোলেন বেবি ফর্মুলা৷ ইউনিসেফ, চীনে গত ছয় মাসের মধ্যে মা হওয়াদের মাঝে এক জরিপ চালিয়ে দেখেছে তাদের শতকরা মাত্র ২৮ ভাগ সন্তানকে বুকের দুধ খাওয়ান৷ অথচ এ বয়সের সন্তানদের মুখে বেবি ফর্মুলা তুলে দিলে পরে তার নানা রকমের দুরারোগ্য ব্যাধি হবার আশঙ্কা বাড়ে, বড় হয়ে শিশু মুটিয়েও যেতে পারে৷

এত কিছুর পরও চীনে মায়েদের মধ্যে বেবি ফর্মুলা নির্ভরতা বাড়ছে৷ ২০০৮ সালে দেশি বেবি ফর্মুলা খেয়ে ৬টি শিশু মারা যাওয়ায় মায়েদের আমদানীকৃত বেবি ফর্মুলা কেনার ঝোঁক বেড়েছিল৷

Fonterra Milchpulver

চীনে বেবি ফর্মুলার উৎপাদন বেড়েই চলেছে

সম্প্রতি জানা গেল, নিউজিল্যান্ডের ফন্টেরা কোম্পানির বেবি ফর্মুলা শিশু স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ক্ষতিকর৷ এ অবস্থায় চীন সরকার বেবি ফর্মুলা আমদানি কমিয়ে মায়েদের বুকের দুধ খাওয়ানোয় উৎসাহিত করছে৷ ২০২০ সালের মধ্যে নবজাতকদের বুকের দুধ খাওয়ানোর হার শতকরা পঞ্চাশ ভাগে নিয়ে যেতে বেশ কিছু পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে৷ কর্মস্থলে বুকের দুধ খাওয়ানোর জন্য আলাদা ঘর রাখার ব্যবস্থা করা হচ্ছে৷ সে ব্যবস্থা করার জন্য নিয়োগকর্তাদের নির্দেশ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ৷ হাসপাতালে নবজাতকের জন্মের পরই মা-র কাছ থেকে সরিয়ে নেয়া হতো৷ এখন মা-সন্তানকে একসঙ্গে রাখার ব্যবস্থা হবে৷ এছাড়া সেবিকাদের বলে দেয়া হয়েছে তাঁরা যেন মায়েদের বুকের দুধ কেমন করে বাচ্চাদের খাওয়াতে হয় তা শিখিয়ে দেন এবং পাশাপাশি মায়ের দুধের উপকারিতাও ভালো করে বুঝিয়ে বলেন৷

এত করেও কাজ হচ্ছেনা৷ চীনে বেবি ফর্মুলার উৎপাদন এবং ঘরে ঘরে এর প্রতি নির্ভরশীলতা বেড়েই চলেছে৷ তা ছাড়া কর্মজীবী মায়েদের আগের সমস্যাটা তো রয়েছেই৷ তাই চার মাস পর ঠিকই কাজে যোগ দিতে হবে কি ওয়েনজুয়ানকে৷ তখন কীভাবে সন্তানকে বুকের দুধ খাওয়াবেন? কি ওয়েনজুয়ান নিজেও তা জানেন না৷

এসিবি/এসবি (এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন