1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

মালয়েশীয় বিমানের অভিশাপ

এক বছরে দুটো ঘটনা৷ মার্চে নিখোঁজ মালয়েশিয়া বিমান রহস্যের কিনারা হওয়ার আগেই পূর্ব ইউক্রেনে বিধ্বস্ত হলো মালয়েশিয়া এয়ারলাইন্সের একটি বিমান৷ সম্ভবত ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় বিধ্বস্ত হওয়া বিমানটির ২৯৮ জন আরোহীর সবাই নিহত হয়েছেন৷

আমস্টারডাম থেকে কুয়ালালামপুরে যাওয়ার পথে রাশিয়া সীমান্তের কাছে গ্রাবোভে গ্রামের উপর বৃহস্পতিবার বিধ্বস্ত হয় বিমান এমএইচ-১৭৷ ২৯৮ আরোহীর কারোই মৃতদেহ পাওয়া যায়নি, কেননা বিমানটি যেভাবে বিধ্বস্ত হয়েছে তাতে দেহাবশেষ ছাড়া কিছুই অবশিষ্ট নেই৷ এখনো সেখানে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে দেহাবশেষ৷

এ ঘটনার জন্য ইউক্রেন ও রাশিয়া একে অপরকে দায়ী করছে৷ রুশ বিচ্ছিন্নতাবাদীরা বৃহস্পতিবার জানিয়েছিল, তারা বিমানটির ব্ল্যাকবক্স খুঁজে পেয়েছে৷ শুক্রবার বিমানের আর একটি তথ্য রেকর্ডারের সন্ধান পেয়েছেন উদ্ধারকর্মীরা৷

জাতীয় শোক

বিমানটিতে নেদারল্যান্ডসের ১৫৪ জন যাত্রী ছিলেন৷ তাই গোটা দেশ শোকে আচ্ছন্ন৷ সরকার একদিনের জাতীয় শোক ঘোষণা করেছে সেখানে৷ বিমানটিতে মালয়েশিয়ার যাত্রী ছিল ২৮জন, অস্ট্রেলিয়ার ২৮ জন, ইন্দোনেশিয়ার ১২ জন, ব্রিটেনের ৯ জন, জার্মানির চার জন এবং বাকিরা বেলজিয়াম, ফিলিপাইন্স, ক্যানাডা ও নিউজিল্যান্ডের নাগরিক৷ ১৫ ক্রু-র সবাই মালয়েশিয়ার নাগরিক৷

Malaysia Airlines MH-17 Reaktionen

নিহতদের স্বজনরা

বিশ্বনেতাদের প্রতিক্রিয়া

বিমানটি বিধ্বস্ত হওয়ার কারণ জানতে আন্তর্জাতিক তদন্তের দাবি জানিয়েছেন বিশ্ব নেতারা৷ মার্কিন এক কর্মকর্তা বলেন, ‘ওয়াশিংটনের সন্দেহ মালয়েশিয়া বিমান বোয়িং ৭৭৭ ইউক্রেনের রুশ বিচ্ছিন্নতাবাদীদের ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ভূপাতিত হয়েছে৷ মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেন, ‘‘বিমানটি যেভাবে বিধ্বস্ত হয়েছে তাতে এটাই বোঝা যায় এটা কোন দুর্ঘটনা নয়৷'' রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিনও এ ঘটনাকে মর্মান্তিক বলে উল্লেখ করেছেন৷

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ডাচ প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুটে-র সাথে কথা বলে সমবেদনা জানিয়েছেন৷ ওবামা বলেন, যেহেতু বিমানের ধ্বংসাবশেষ ইউক্রেনে রয়েছে৷ তাই এটা তদন্ত করার একটা সুযোগ থাকছে৷ জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন স্বচ্ছ ও আন্তর্জাতিক তদন্তের দাবি জানিয়েছেন৷

এই ঘটনায় নিহত হয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার ২৮ জন নাগরিক৷ তাই অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী টোনি অ্যাবট পার্লামেন্টে জরুরি অধিবেশন ডাকেন৷ সেখানে তিনি বলেছেন, ‘‘রাশিয়া ইউক্রেনকে এই ঘটনার জন্য দায়ী করছে৷ তবে যেই করে থাকুক এটা মেনে নেয়া যায় না৷ এটা একটা দুর্ঘটনা নয়, একটা অপরাধ৷''

বিশ্লেষকদের মত

প্রশ্ন উঠেছে কেন বিমানটি ইউক্রেনের সংঘাতপূর্ণ এলাকা এড়িয়ে গেলো না৷ বিশ্লেষকরা বলছেন, বরাবরই বিমানগুলো চেষ্টা করে সমস্যাক্রান্ত এলাকাগুলো এড়িয়ে অন্য পথ বেছে নিতে৷ এতে হয়ত দীর্ঘ পথ পাড়ি দিতে হতো এবং জ্বালানি শেষ হওয়ার ভয় ছিল৷ কিন্তু অন্য কোনো আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করতে পারত এটি৷ তবে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, আমস্টারডাম থেকে কুয়ালালামপুরের যে রুট ছিল, তা নিরাপদ বলে জানিয়েছিলেন বিমান কর্তৃপক্ষ৷

এপ্রিলে ইউক্রেনের ক্রাইমিয়ার আকাশসীমা তাদের বলে ঘোষণা দিয়েছে রাশিয়া৷ তখন যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় বিমান প্রশাসন রাশিয়া ও ইউক্রেনের আকাশ সীমা ব্যবহার না করতে নির্দেশ দেয়৷ শিকাগোর এভিয়েশন অ্যাটর্নি টমাস রাউট বলেছেন, ‘‘আগে থেকে বিতর্ক রয়েছে এবং সতর্কতা রয়েছে এমন একটি রুট কেন বিমানটি এড়িয়ে গেল না, এটা সত্যি ভাবনার বিষয়৷'' তবে এটা সাধারণত বিমান কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী হয়ে থাকে বলে জানালেন তিনি৷ রাউট বলেন, আফগানিস্তানের সংঘাতপূর্ণ এলাকার উপর দিয়ে প্রতিদিনই অনেক বিমান যাতায়াত করে৷ জার্মানির লুফটহানসা এয়ারলাইন্স এই ঘটনার পরপরই তাদের সব ফ্লাইট পূর্ব ইউক্রেনের উপর দিয়ে যাতে না যায় তার নির্দেশ দিয়েছে৷ তবে কিয়েভ এবং ওডেসাগামী ফ্লাইট বাতিল করেনি লুফটহানসা৷

এ বছরই ৮ই মার্চ ২৩৯ জন আরোহী নিয়ে কুয়ালালামপুর থেকে বেইজিং যাওয়ার পথে মালয়েশিয়া এয়ারলাইন্সের এমএইচ৩৭০ উড়ালের বিমানটি নিখোঁজ হয়৷ সে রহস্যের এখনো কিনারা হয়নি৷

এপিবি/এসবি (এপি, এএফপি, ডিপিএ, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন