1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

মালয়েশিয় শিল্পীকে ফাঁসালো ইউটিউব ভিডিও

মালয়েশিয়ার এক ব়্যাপ সংগীত শিল্পীর বিরুদ্ধে প্ররোচনার অভিযোগ আনা হয়েছে৷ কর্তৃপক্ষের দাবি, ইউটিউবে একটি ভিডিও প্রকাশের মাধ্যমে শিল্পী উয়ি মেং চি মালয়েশিয়ার সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মধ্যে অস্থিরতা বাড়ানোর চেষ্টা করছেন৷

default

ফাইল ফটো

বছর তিনেক আগেও একই ধরণের আরেক কাজ করে আলোচনায় এসেছিলেন উয়ি মেং চি৷ সেবার মালয়েশিয়ার জাতীয় সঙ্গীতকে ব্যঙ্গ করে ইউটিউবে ভিডিও প্রকাশ করেছিলেন তিনি৷ ফলে তাঁর বিরুদ্ধে প্ররোচনার অভিযোগ আনা হয়৷ সেবার অবশ্য ক্ষমা চেয়ে নিস্তার পান চি৷

সম্প্রতি ইউটিউবে প্রকাশিত চি'র ভিডিওটি এক স্কুলের মুসলমান প্রধান শিক্ষিকাকে নিয়ে৷ চি'র দাবি, স্কুলের সংখ্যালঘু ভারতীয় এবং চীনা বংশোদ্ভূত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সাম্প্রদায়িক আচরণ করছেন প্রধান শিক্ষিকা৷ অভিযোগ রয়েছে, ঐ শিক্ষিকা নাকি চীনা শিক্ষার্থীদের স্বদেশে ফিরে যেতে বলেছেন, একইসঙ্গে হিন্দুদের প্রার্থনায় ব্যবহৃত সুতাকে তুলনা করেছেন কুকুর বেঁধে রাখার রজ্জুর সঙ্গে৷

এই বিষয়টিকেই সঙ্গীতের মাধ্যমে ফুটিয়ে তুলতে চেয়েছেন চি৷ তাঁর কথায়, ‘না' শিরোনামের ভিডিওটি প্রকাশের মাধ্যমে আমি সাম্প্রদায়িক আচরণের প্রতিবাদ জানিয়েছি৷

কিন্তু বিষয়টি পছন্দ হয়নি অনেক মহলের৷ এমনকি মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকও নাকি চি'র বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন৷

ইতিমধ্যে চি তাঁর ইউটিউব চ্যানেল থেকে বিতর্কিত ভিডিওটি সরিয়ে নিয়েছেন৷ তাতে অবশ্য সন্তুষ্ট নয় সেদেশের নিরাপত্তা কর্তৃপক্ষ৷ মালয়েশিয়ার কেন্দ্রীয় অপরাধ তদন্ত দপ্তরের প্রধান বাকরি জিনিন জানিয়েছেন, আমরা দেশদ্রোহী আইনের অধীনে তার বিরুদ্ধে তদন্ত করছি৷ সে ভিডিওটি সরিয়ে ফেললো কিনা, তাতে কিছু যায় আসেনা৷ কেননা ক্ষতি যা হবার তা ইতিমধ্যে হয়ে গেছে৷ তাই তদন্ত চলবে৷

উল্লেখ্য, অভিযোগ প্রমাণিত হলে উয়ি মেং চি'র তিন বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড হতে পারে৷

প্রতিবেদন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

ইন্টারনেট লিংক

সংশ্লিষ্ট বিষয়