1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

মানুষের স্মৃতিশক্তির বারোটা বাজাচ্ছে গুগল

যেকোন বিষয় খুঁজে বের করতে সার্চ ইঞ্জিনগুলোর তীব্র গতি মানুষের স্মৃতিশক্তির ক্ষতি করছে৷ বিশেষ করে মস্তিষ্কের যে অংশ তথ্য জমা রাখে, সে অংশের ব্যবহার দিনে দিনে কমছে৷ এমনটাই দাবি এক মার্কিন লেখকের৷

default

সম্প্রতি চালু হয়েছে ‘গুগল ইন্সট্যান্ট’

‘দ্যা শ্যালোস: হোয়াট দ্যা ইন্টারনেট ইজ ডুয়িং টু আওয়ার ব্রেইনস' বইয়ের লেখক নিকোলাস কার৷ তাঁর দাবি, ইন্টারনেট জগত আমাদের মস্তিষ্কের অংশবিশেষকে নিত্যদিনের স্বাভাবিক কাজকর্ম থেকে বঞ্চিত রাখছে৷ এর কারণ হচ্ছে খোঁজ সেবার সহজলভ্যতা৷

লেখালেখির পাশাপাশি ব্লগসাইট রাফটাইপ ডটকম পরিচালনা করেন নিকোলাস৷ তাঁর মতে, গুগলের মতো সাইটগুলোর ব্যবহার প্রণালি আরো জটিল করা উচিত৷ কিন্তু হচ্ছে তার উল্টোটা৷ কেননা, সফটওয়্যার নির্মাতারা দিনে দিনে এসবের ব্যবহার প্রণালি সহজ থেকে সহজতর করে তুলছেন৷

গুগলের নতুন সেবা ‘গুগল ইন্সট্যান্ট' চালুর পরপরই এমন মন্তব্য করলেন নিকোলাস৷ গুগল তার খোঁজাখুঁজির সেবাকে এখন এতটাই সহজ করেছে যে, কাঙ্খিত শব্দ লেখা শেষ হবার আগেই হাজির হয় খোঁজের বিষয়বস্তু৷ ফলে কোন কিছু খুঁজতে মানুষের মস্তিষ্ক এখন আর আগের মতো কাজ করার সুযোগ পায়না৷

কিছুক্ষেত্রে অবশ্য গুগলের প্রশংসাও করেন নিকোলাস কার৷ কিন্তু প্রখ্যাত এই লেখকের মতে, গুগল আমাদেরকে স্মৃতিশক্তি ব্যবহার করা থেকে দূরে রাখতে চাইছে৷ কেননা, ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র তথ্যও মুহূর্তেই খুঁজে দিচ্ছে সংস্থাটি৷

শুধু গুগল নয়, স্যাটেলাইটনির্ভর পথ নিদর্শক যন্ত্রেরও সমালোচনা করেছেন নিকোলাস৷ তিনি মনে করেন, মানুষ এখন দিনকয়েক আগে যে রাস্তা দিয়ে গিয়েছিল, তার কথাও মনে রাখতে পারেনা৷ কারণ মস্তিষ্কের রাস্তার স্মৃতি ধরে রাখার ক্ষমতা হ্রাস করছে জিপিএস প্রযুক্তি৷

অবশ্য নিকোলাসের এসব মন্তব্যে খুব একটা গুরুত্ব দিতে রাজি নয় গুগল৷ সংস্থাটির এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, ওয়েবে কোন কিছু খোঁজা এখন মানুষের নিত্যদিনের কাজের অংশ হয়ে উঠেছে৷ ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা তাদের হাজারো প্রশ্নের দ্রুত জবাব চায়৷

গুগল মানুষের নিত্যদিনের চাহিদাই মেটাচ্ছে৷ ফলে খোঁজাখুঁজি থেকে বেঁচে যাওয়া সময় অন্য কাজে লাগাতে পারে সাধারণ মানুষ৷

প্রতিবেদন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

নির্বাচিত প্রতিবেদন