1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

মানব পাচার এক দ্রুততম লাভজনক পেশা

সারা বিশ্বে প্রতি বছর সাত থেকে ৪০ লাখ মানুষ পাচার হয়ে যায়৷ কেন জানেন কী? শ্রমিক হিসেবে কাজে লাগানোর জন্যে এবং যৌন পেশায় বাধ্য করার জন্যেই তাদেরকে পাচার করা হয়৷

default

সংঘবদ্ধ অপরাধ চক্রের কাছে দ্রুততম এক লাভজনক পেশা হিসেবে দেখা দিয়েছে মানব পাচার৷ জাতিসংঘ ২৩শে আগস্টকে দাসপ্রথা বিলোপ দিবস হিসেবে ঘোষণা করেছে ঠিকই, কিন্তু মানুষ নিয়ে এই ব্যবসা সারা বিশ্বে চলমান সমস্যা হিসেবে থেকেই যাচ্ছে৷ মাদক এবং অস্ত্র ব্যবসার সঙ্গে তুলনা করলে লক্ষ কোটি ডলারের এই পাচার ব্যবসায় জড়িত অপরাধীদের খুঁজে বের করা আরো কঠিন৷ শ্রমিক হিসেবে জোর করে কাজ করানো এবং যৌন ব্যবসায় নিয়োজিত হতে যাদেরকে বাধ্য করা হচ্ছে, সবসময় তাদের সন্ধানও পাওয়া যাচ্ছে না৷

অভিবাসন সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক সংস্থা, ‘ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন ফর মাইগ্রেশন' বা আইওএম-এর হিসেব অনুযায়ী, সাত লাখ থেকে ৪০ লাখ মানুষ প্রতি বছর যার যার জাতীয় সীমান্ত দিয়ে পাচার হয়ে যাচ্ছে৷ তবে আইওএম-এর মুখপাত্র জঁ ফিলিপ সোজি বলেছেন, এই ব্যবসার সবচেয়ে গোপন যে বিষয়টি, সেটি হচ্ছে কেউই সঠিকভাবে জানে না, সারা বিশ্বে কতো মানুষকে পাচার করা হচ্ছে৷ তিনি বলেন, মানব পাচার - তা যৌন কর্মে বাধ্য করার জন্যেই হোক বা শ্রমিক হিসেবে কাজ করতে বাধ্য করার জন্যেই হোক না কেন, তা বাস্তবিক অর্থে বিশ্বব্যাপী সবারই জানা৷

সোজি বলেন, বিশ্বে এমন কোন অঞ্চল নেই যে অঞ্চল মানব পাচার থেকে মুক্ত৷ লাখ লাখ নারী, পুরুষ, শিশু - যারা আরো ভালো আর্থ-সামাজিক ব্যবস্থার খোঁজে নিজ দেশ ছেড়ে বের হতে চাইছে, বেশিরভাগ ক্ষেত্রে তাঁরাই মানব পাচারের শিকার হচ্ছে৷ এটিকে না অভিবাসন বলে, না বলে পাচার৷ তিনি বলেন, এর কারণ হলো - বৈধভাবে অভিবাসনের সুযোগ পায় খুব কম মানুষ৷ তাদেরকে ঝুঁকি নিতে হয়, আর ঝুঁকি নিতে হয় মধ্যস্থতাকারীর মাধ্যমে৷ এবং বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দূর্ভাগ্যজনকভাবে যেটা দেখা যায় সেটা হচ্ছে, তাদের ইচ্ছার বিরুদ্ধই এহেন এক পরিস্থিতির শিকার হচ্ছে তারা৷

প্রতিবেদন: ফাহমিদা সুলতানা

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ