1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘মানবাধিকার পরিস্থিতি অবনতির প্রসঙ্গটি আলোচনায় থাকবে'

মিয়ানমারের প্রেসিডেন্ট থেইন সেইনের সঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার বৈঠকে কী কী বিষয় গুরুত্ব পাবে? ডয়চে ভেলেকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এ নিয়েই কথা বলেছেন ব্রুকিংস ইন্সটিটিউশনের ফেলো ড. লিন কুয়ক৷

ডয়চে ভেলে: ওবামা-থেইন সেইন বৈঠকের আলোচ্যসূচিতে কী কী বিষয় থাকতে পারে?

লিন কুয়ক: যে বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনার সম্ভাবনা বেশি, সেগুলো হলো, রাখাইন রাজ্য এবং সেখানকার মানবাধিকার পরিস্থিতির চরম অবনতি, ‘রাখাইন স্টেট অ্যাকশন প্ল্যান'-এর পর্যালোচনা, শান্তি প্রক্রিয়া এবং ২০১৫ সালে সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠানের উপযোগী পরিবেশ সৃষ্টির জন্য সংবিধান সংস্কার এবং সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতাকে একটা নির্দিষ্ট জায়গা পর্যন্ত নিয়ে যাওয়া৷ আরো রাজনৈতিক বন্দিকে মুক্তি দেয়া এবং বিচার বিভাগের সংস্কারের বিষয়েও আলোচনা হতে পারে৷

মিয়ানমারের বিরুদ্ধে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠছে৷ গত এক বছরে এই বিষয়ে কতটুকু পরিবর্তন এসেছে?

এই বিষয়ে মিয়ানমারে ২০১৩ সালে যে উন্নতি লক্ষ্য করা গেছে হিউম্যান রাইটস ওয়াচের চোখে তা, ‘অসমান'৷ সেখানে মানবাধিকার পরিস্থিতির উন্নতির কারণ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে সমাবেশ এবং সংগঠন করার স্বাধীনতার কথা৷

Lynn Kuok Brookings Institution QUALITÄT & EINSCHRÄNKUNG

ব্রুকিংস ইন্সটিটিউশনের ফেলো ড. লিন কুয়ক

২০১৩ সালের নভেম্বরে যে ৬৯ জন রাজনৈতিক কর্মীকে মুক্তি দেয়া হয়েছিল, সে বিষয়টিরও উল্লেখ আছে হিউম্যান রাইটস ওয়াচের প্রতিবেদনে৷ তুমুল বিতর্ক এবং আইনের সংস্কারের স্থান হিসেবে প্রমাণিত হওয়ায় মিয়ানমারের সংসদেরও বেশ প্রশংসা হচ্ছে৷

গণমাধ্যমের স্বাধীনতার প্রশ্নে রয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া৷ সেনাবাহিনী এবং জাতিগত বিদ্রোহীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনাস্থলে কাজ করার সময় আটক এক সাংবাদিক অক্টোবরের শুরুর দিকে সেনাবাহিনীর কাছে আটক থাকা অবস্থাতেই মারা যান৷ আইনের সংস্কার নিয়েও প্রশ্ন আছে৷ হিউম্যান রাইটস ওয়াচের মতে, আইন সংস্কারের প্রক্রিয়াটি ‘অস্বচ্ছ'৷ বই-পুস্তকে এখনো পুরনো অনেক আইন রয়ে গেছে এবং মানবাধিকার কর্মীদের বিরুদ্ধে সেগুলো ব্যবহার করা হচ্ছে৷ ২০১৩ সালে ভূমি অধিকার এবং কৃষকের অধিকার সংশ্লিষ্ট আইন কার্যকর হয়েছে৷ যদিও ভূমি দখল রোধের নিশ্চয়তা পর্যাপ্ত নয়- এসব আইন নিয়ে এমন সমালোচনাও আছে৷

সরকার এবং সশস্ত্র জাতিগত গোষ্ঠীর মধ্যে অস্ত্রবিরতি চুক্তি হয়েছে৷ কিন্তু এটাকে ছাপিয়ে গেছে রোহিঙ্গাদের দুরবস্থা৷ রাখাইন রাজ্যসহ অন্যান্য জায়গায় মুসলিম জনগোষ্ঠীর ওপর আক্রমণের কারণে বারবার মিয়ানমারের সমালোচনা করেছে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়