মাইকেলএঞ্জেলো আর তাঁর দাভিদ | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 06.03.2011
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

মাইকেলএঞ্জেলো আর তাঁর দাভিদ

পুরো নাম তাঁর মাইকেলএঞ্জেলো দি লোদোভিকো বুয়োনারোটি সিমনি৷ পরিচিত মাইকেলেঞ্জেলো বলেই৷ ষোড়শ শতকের এই অসামান্য রেনেসাঁ শিল্পীর জন্মদিন আজই৷

default

শিল্পীর অমর সৃষ্টি

নিয়ে যাব আপনাকে একটু দূরে৷ সময়টা ১৫'শ শতাব্দের প্রথম দশক৷ ভেনিসের শিল্পীমহলে চলছে জমাট আড্ডা৷ শিল্পীদের সকলেই নারীর রূপের আর যৌবনের প্রশংসায় পঞ্চমুখ৷ আড্ডার মাঝখানে রাজার মত মাথায় কোঁকড়া চুল এক তরুণ বসে আছেন৷ বয়স তাঁর ত্রিশের নীচেই৷ খানিকক্ষণ নারীর রূপের কথা শুনে তিনি আর থাকতে পারলেন না৷ বলে উঠলেন, ‘এত রূপ রূপ করে গলা ফাটাচ্ছো তোমরা, আসল রূপ

David Skulptur von Michelangelo in den Uffizien in Florenz, Italien

পাঁচশো পেরিয়েছে মাইকেলএঞ্জেলোর দাভিদের বয়স৷ আজও তার রূপ একটুও ম্লান হয়নি৷

তো, নারীর নয়৷ পুরুষের শরীরে৷ ভাস্কর্য সেখানেই সঠিক দীপ্তি পায়৷ আমার কথা বিশ্বাস না হলে যাও গিয়ে আমার দাভিদকে দেখে এসো৷' তিনিই মাইকেলএঞ্জেলো৷

আর শিল্পীর কথাটাও সত্যি৷ শ্বেত পাথরের দাভিদের মূর্তি সত্যিই পৌরুষের দীপ্তিতে উজ্জ্বল৷ ফ্লোরেন্সের আকাদেমিয়া গ্যালারিতে আজও রয়েছে শ্বেত পাথরে কোঁদা পাঁচ মিটার সতেরো সেন্টিমিটার লম্বা দাভিদের মূর্তি৷ আর আজ সেই মহান শিল্পী মাইকেলএঞ্জেলোর জন্মদিন৷

ত্রিশে পৌঁছানোর আগেই মাইকেলএঞ্জেলো তাঁর জীবনের সেরা দুটি ভাস্কর্য্য শেষ করে ফেলেছিলেন৷ একটা তো সেই অসামান্য রূপ আর শৌর্যের পরিচয় দাভিদ, অন্যটা পিয়েতা৷ দুটোই অসামান্য কাজ৷ একাধারে তুলি ক্যানভাসের শিল্প, ফ্রেসকো, ভাস্কর্য্য, স্থপতি, কবি, এবং যন্ত্রবিদ বা এঞ্জিনিয়র৷ একজন মানুষের মধ্যে এতগুলি গুণের সামাহার ঘটেছিল প্রতিভাবান মাইকেলএঞ্জেলোর ক্ষেত্রে৷ ১৪৭৫ সালের ছয়ই মার্চ জন্ম মাইকেলএঞ্জেলোর৷ মৃত্যু ১৫৬৪ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি৷ তিনিই পশ্চিম বিশ্বের প্রথম শিল্পী যাঁর জীবদ্দশায় একটি নয়, দু'দুটি জীবনী প্রকাশিত হয়েছিল৷ কাজ করেছেন ভ্যাটিকানের সিস্সটিন চ্যাপেলের ছাদেও৷ তাঁর ফ্রেসকো আজও ভ্যাটিকানে গিয়ে অবাক বিস্ময়ে দেখে মানুষ পাঁচ শতাব্দ পরেও!

প্রতিবেদন : সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়

সম্পাদনা: জাহিদুল হক

সংশ্লিষ্ট বিষয়