1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

মাংস খেলে পুরুষদের স্থূলতার আশঙ্কা বেশি - গবেষণা

খাদ্যাভ্যাসের উপর গবেষণা চালিয়ে দেখা গেছে, প্রতিদিনের খাবারে মাংসের পরিমাণ চার ভাগের এক ভাগ থেকে অর্ধেকে উন্নীত হলে স্থূলতার ক্ষেত্রে তার প্রভাব পড়ে৷ আর এই প্রভাব নারীদের চেয়ে পুরুষদের উপর বেশি নেতিবাচক বলে ধরা পড়েছে৷

খাদ্যাভ্যাস বিশেষ করে খাবার তালিকায় মাংসের পরিমাণ একজন মানুষের শারীরিক স্থূলতার জন্য কতটুকু দায়ী সেই বিষয়ে গবেষণা করেছেন জার্মানির বন বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব ফুড এন্ড রিসোর্স ইকোনমিক্স এর বাংলাদেশি শিক্ষার্থী মোহাম্মদ মনিরুল হাসান৷ তিনি তাঁর গবেষণার মাধ্যমে জানার চেষ্টা করেন, মানুষের বয়স, লিঙ্গ, পড়াশোনার স্তর, আয় ,খাদ্যে মাংসের পরিমাণ, ব্যায়াম ও টেলিভিশন দেখা একজন মানুষের মুটিয়ে যাওয়ার সাথে কতটুকু সম্পর্কিত৷

অনলাইন জরিপের মাধ্যমে গবেষণাটির তথ্য সংগ্রহ করা হয়৷ এতে ইউরোপের অধিকাংশ দেশের মানুষেরই প্রতিনিধিত্ব রয়েছে৷ প্রাথমিকভাবে এক হাজার মানুষের কাছে প্রশ্নপত্র পাঠানো হয়৷ তাদের মধ্যে ১৩৫ জন মানুষের তথ্য গবেষণার জন্য উঠে আসে৷ উত্তরদাতাদের মধ্যে শতকরা ৪০ ভাগ পুরুষ ও ৬০ ভাগ নারী৷ এছাড়া গবেষণায় অংশগ্রহণকারীদের ৩০% গ্রিক, ২০% জার্মান, ৮% হাঙ্গেরিয়ান, ৮% ইটালিয়ান এবং বাকি অংশ অন্যান্য ইউরোপীয় দেশের নাগরিক রয়েছেন৷ তাদের বয়স ১৬ থেকে ৪৫ বছরের মধ্যে এবং গড় বয়স ২৫ বছর, বলে ডয়চে ভেলেকে জানিয়েছেন ইনস্টিটিউট অব মাইক্রোফিন্যান্স এর সিনিয়র গবেষণা সহযোগী মনিরুল হাসান৷

Md Monirul Hasan, Forscher derUniversität Bonn, Deutschland

মোহাম্মদ মনিরুল হাসান

এই গবেষণায় মানুষের উচ্চতা ও ওজনের অনুপাত সূচক বডি ম্যাস ইনডেক্স তথা বিএমআই ব্যবহার করা হয়৷ আর মাংস খাওয়ার ক্ষেত্রে যে প্রশ্নটি ছিল তা হচ্ছে, মূল খাবারের কত অংশ জুড়ে থাকে মাংসের পরিমান? গবেষণার ফলাফলের জন্য তিনি যে মডেলটি ব্যাবহার করেছেন তা হচ্ছে অর্ডার লজিট মডেল যার ভিত্তি হচ্ছে সম্ভাব্যতা তত্ত্ব৷ এই গবেষণায় দেখা গেছে, মানুষের বয়স বাড়ার সাথে যেমন মুটিয়ে যাবার একটা সম্পর্ক আছে, তেমনি খাদ্যাভ্যাস ও জীবনযাত্রার সাথেও আছে৷

অডিও শুনুন 04:29

মনিরুল হাসানের সাক্ষাৎকারসহ পরিবেশনাটি শুনতে এখানে ক্লিক করুন

একজন মানুষ যদি তার খাবারে মাংসের পরিমাণ মূল খাবারের চারভাগের একভাগ থেকে বাড়িয়ে মূল খাবারের অর্ধেক করেন, তাহলে তার মুটিয়ে যাবার সম্ভাব্যতার পরিমাণ পরিসংখ্যানগতভাবে উল্লেখযোগ্য হারে বেড়ে যায়৷ অন্যদিকে মজার ব্যাপার হচ্ছে, পুরুষদের চেয়ে নারীদের মুটিয়ে যাবার সম্ভাবনা কম৷ লেখাপড়ার স্তর বিবেচনায় দেখা যায় যে, শিক্ষার স্তর যত বাড়ে, মানুষের মুটিয়ে যাবার সম্ভাবনা তত পরিসংখ্যানগতভাবে উল্লেখযোগ্য হারে কমে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও