1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ক্যানাডা

মসজিদে হামলাকারী ট্রাম্পের সমর্থক ছিলেন

রবিবার সন্ধ্যায় ক্যানাডার এক মসজিদে হামলার দায়ে অভিযুক্ত ব্যক্তি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আর ফ্রান্সের চরম দক্ষিণপন্থি নেত্রী মারিন ল্য পেনের সমর্থক ছিলেন বলে জানিয়েছেন তার এক সহপাঠী৷

অভিযুক্ত ব্যক্তির নাম আলেকসান্দ্র বিসোনেৎ৷ ২৭ বছর বয়সি ফরাসি-ক্যানাডীয় নাগরিক বিসোনেৎ লাভাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী৷ পুলিশ বলছে তিনি একাই কুইবেকের মসজিদে গুলি চালিয়েছেন৷ নামাজের সময় চালানো ঐ হামলায় ছয় ব্যক্তি নিহত হন৷ সোমবার বিসোনেতের বিরুদ্ধে হত্যার অভিযোগ আনা হয়েছে৷ শুরুর দিকে ঘটনার সঙ্গে বিসোনেৎ ছাড়াও মরক্কোতে জন্ম নেয়া আরেক ব্যক্তি জড়িত থাকার সংবাদ প্রকাশিত হলেও পুলিশ পরে জানায়, প্রত্যক্ষদর্শী হিসেবে ঐ ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছিল৷

এদিকে, বিশ্ববিদ্যালয়ে বিসোনেতের সহপাঠী ভিনসেন্ট বিসোনেওল ক্যানাডার ‘গ্লোবাল অ্যান্ড মেল' পত্রিকাকে জানান, ট্রাম্প আর ল্য পেনের সমর্থক বিসোনেৎ শরণার্থীদের পছন্দ করেন না৷ তাই তাদের মধ্যে প্রায়ই বিবাদ লেগে যেত৷

বিসোনেতের ফেসবুক পাতা পর্যবেক্ষণ করে দেখা গেছে, তিনি ট্রাম্প আর ল্য পেনকে পছন্দ করতেন৷ ‘ওয়েলকাম টু রিফিউজিস – কুইবেক সিটি' নামে ফেসবুকের একটি গ্রুপ তাদের পোস্টে লিখেছে, ‘‘ল্য পেনের সমর্থক হিসেবে কুইবেক সিটির অনেক অ্যাক্টিভিস্ট বিসোনেৎকে চেনেন৷'' পুলিশ অবশ্য বলছে, তারা বিসোনেৎ-কে আগে চিনতেন না৷

উল্লেখ্য, ফ্রান্সের চরম দক্ষিণপন্থি নেত্রী ল্য পেনই ডোনাল্ড ট্রাম্পকে প্রেসিডেন্ট হিসেবে সর্বপ্রথম অভিনন্দন জানিয়েছিলেন৷ তিনি বলেছিলেন, ‘‘এই মুহূর্তে আমরা একটা চেনা পৃথিবীকে শেষ হয়ে যেতে দেখছি আর প্রত্যক্ষ করছি নতুন একটি বিশ্বের জন্মকে৷''

ট্রুডো আর ট্রাম্পের মধ্যে আলাপ

হোয়াইট হাউসের প্রেস সচিব শন স্পাইসার সোমবারের নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেন, মসজিদে হামলা নিয়ে ক্যানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টির ট্রুডো আর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যে টেলিফোনে আলাপ হয়েছে৷ তিনি বলেন, ‘‘এই হামলা মনে করিয়ে দিচ্ছে কেন আমাদের অবশ্যই সতর্ক থাকতে হবে এবং কেন প্রেসিডেন্ট দেশের নিরাপত্তার খাতিরে ‘রিঅ্যাক্টিভ' না হয়ে ‘প্রোঅ্যাক্টিভ' হচ্ছেন৷''

তবে ট্রাম্পের নীতির যথার্থতা প্রমাণে মসজিদে হামলার ঘটনাকে সামনে নিয়ে আসার সমালোচনা করছেন অনেক টুইটার ব্যবহারকারী৷

জেডএইচ/ডিজি (রয়টার্স, এএফপি, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন