1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

মন্দিরের আতশবাজি কেড়ে নিল শতাধিক প্রাণ

আতশবাজি প্রতিযোগিতা এবং তা থেকে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয় ভারতের এক মন্দিরে৷ শনিবার রাতের এ দুর্ঘটনায় এ পর্যন্ত ১০৯ জন মারা গেছেন৷ ঘটনার সঙ্গে জড়িত ছ'জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে পুলিশ৷

ভারতের স্কুল

আগরতলার এক স্কুলের শিক্ষার্থীরা মন্দিরে নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাচ্ছে

ভারতের বিভিন্ন রাজ্যেই এখন চলছে নববর্ষ উদযাপনের প্রস্তুতিমূলক নানা ধরণের অনুষ্ঠান৷ কেরালাতেও চলছে ‘ভিষু' উৎসবকে সামনে রেখে নানা আয়োজনের হিড়িক৷ শনিবার গভীর রাতে কেরালা রাজ্যের কোল্লাম জেলার মন্দিরটিও ছিল উৎসবের আমেজে৷ ভিষু, অর্থাৎ কেরালার ঐতিহ্যবাহী নববর্ষ উৎসব উদযাপনের প্রাক প্রস্তুতি হিসেবেই মন্দিরে আয়োজন করা হয় আতশবাজি প্রতিযোগিতা৷ সেই প্রতিযোগিতাই কেড়ে নিলো শতাধিক প্রাণ৷

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, স্থানীয়ভাবেই আয়োজন করা হয়েছিল আতশবাজি প্রতিযোগিতা৷ প্রতিযোগিতার বেশিরভাগ আতশবাজিও স্থানীয়ভাবেই তৈরি৷ কোনো কোনো ব্যাপকহারে গানপাউডারও ব্যবহার করা হয়৷ পুলিশ জানিয়েছে, প্রতিযোগিতার জন্য অনুমতি চেয়ে প্রত্যাখ্যাত হওয়ার পরও আয়োজকরা প্রতিযোগিতার আয়োজন করে৷

আতশবাজি শুরুর কিছুক্ষণ পরই আকাশে ছুড়ে মারা একটি বাজির আগুন এসে মন্দিরে পড়ে৷ সঙ্গে সঙ্গেই দাউ দাউ করে জ্বলে ওঠে আগুন৷ সারা মন্দিরে আগুনের লেলিহান শিখা ছড়িয়ে পড়ায় ওপর থেকে ছাদ ভেঙে পড়তে শুরু করে৷ খুব তাড়াতাড়ি মন্দির সংলগ্ন কয়েকটি ভবনেও ছড়িয়ে পড়ে আগুন৷ একাধিক ভবন পুরোপুরি ধসে পড়েছে বলেও জানা গেছে৷

পুলিশ জানায়, অবৈধ, অর্থাৎ যেসব আতশবাজি অনেক বেশি ঝুঁকিপূর্ণ সেগুলোও প্রতিযোগিতায় ব্যবহার করা হয়েছে৷ হতাহতদের বেশির ভাগই তরুণ এবং তাদের অনেকেই সেই মুহূর্তে সবচেয়ে আকর্ষণীয় আতশবাজি প্রদর্শন করে প্রতিযোগিতায় অংশ নিচ্ছিলেন৷

আগুনে পোড়া কেরালার মন্দির ও মন্দির সংলগ্ন এলাকা

মন্দির ও মন্দিরের কাছের এক ভবনের ধংসস্তুপ

এ পর্যন্ত ছ'জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে কেরালা পুলিশ৷ ছ'জনের মধ্যে তিনজন মন্দির পরিচালনা কমিটির সদস্য, বাকিরা আতশবাজি প্রতিযোগিতার আয়োজক৷ অভিযোগ দায়ের করলেও অভিযুক্তদের একজন হাসপাতালে চিকিৎসারত এবং বাকিরা পলাতক বলে এখনো কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ৷

এসিবি/ডিজি (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন