1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

মচমচে সুস্বাদু বিড়াল ভাজা!

ঠাণ্ডা বিয়ারের সাথে আলু ভাজা, চিকেন ফ্রাই – এ ধরনের ভাজা পোড়া চলতেই পারে৷ কিন্তু পানীয়ের সাথে বিড়ালের মাংস যদি থাকে কেমন হবে ব্যাপারটা? ভিয়েতনামে কিন্তু এটা কোনো ব্যাপার না৷

তবে সম্প্রতি সেখানে বাঘের এই মাসিকে নিয়ে দেখা দিয়েছে বিপত্তি৷ আনুষ্ঠানিকভাবে বিড়াল খাওয়া ভিয়েতনামে নিষিদ্ধ হলেও রেস্তোরাঁয় অবিরাম চলছে বিড়াল রান্না৷ তাই যারা বিড়াল পোষেন তারা আছেন আতঙ্কে৷ হ্যানয়ে একটি রেস্তোরাঁতে রসুন দিয়ে বিড়াল ভেজে দেয়া হচ্ছে, যা নাকি দারুণ সুস্বাদু ও মচমচে৷ রেস্তোরাঁর ম্যানেজার বললেন, ‘‘অনেক মানুষ বিড়ালের মাংস পছন্দ করেন৷ তারা এখানে এসেই বিড়ালের মাংসের জন্য আবদার করেন৷''

রাজধানীর ইঁদুরের সংখ্যা নিয়ন্ত্রণে রাখতে বিড়াল নিধনের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল কর্তৃপক্ষ৷ কিন্তু এরপরও হ্যানয়ের বহু রেস্তোরাঁয় চলছে বিড়ালের মাংস ভক্ষণ৷ রাস্তায় রাস্তায় এখন বিড়াল দেখাই যায় না৷ আর বিড়াল মালিকরাও তাদের বিড়ালকে বন্দি করে রাখছেন ঘরে, তবে তারপরও শান্তি নেই৷ চোররা যদি চুরি করে নিয়ে যায় সেই ভয়ও আছে৷

চাহিদা মেটাতে থাইল্যান্ড ও লাওস থেকে চোরাপথে আমদানি করা হচ্ছে বিড়াল৷ ব্যস্ততম দিনে রেস্তোরাঁটি ১০০ ক্রেতাকে বিড়ালের মাংস পরিবেশন করে থাকে৷ ঐ রেস্তোঁরার এক ক্রেতা জানালেন, ‘‘আমরা জানি যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যে বিড়ালের মাংস খাওয়া হয় না৷ কিন্তু এখানে আমরা খাই৷'' তিনি যখন একথা বলছিলেন তখন তার হাতে ছিল বিড়ালের মাংসের মচমচে একটি টুকরা৷

হ্যানয়ের এক পশু চিকিৎসক সংবাদ সংস্থা এএফপিকে জানায়, ‘‘একসময় দেশটি খুব গরিব ছিল এবং দীর্ঘ যুদ্ধের মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছে আমাদের৷ বেঁচে থাকার জন্য যা পাওয়া যেত তাই খাওয়া হত৷ কুকুর, বিড়াল, পোকামাকড়, ইঁদুর কোনো কিছুই তখন বাদ যায়নি৷ পরে এটা একটা অভ্যাসে পরিণত হয়েছিল৷'' তবে কেউই নিজের পোষা প্রাণীটিকে মেরে খায় না বলে জানান তিনি৷ বলেন, রেস্তোরাঁয় যারা বিড়াল রান্না করে বেশিরভাগই অবৈধ পথে বা চুরি করে নিয়ে আসা৷

আকার ও স্বাস্থ্য ভেদে এবং কিভাবে রান্না করা হয় তার উপর নির্ভর করে এক একটি বিড়ালের দাম গড়ে ৫০ থেকে ৭০ ডলার পর্যন্ত হয়ে থাকে৷

এপিবি/জেডএইচ (এপি, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন