1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি ইউরোপ

‘ভোমরা, যাসনে সেখানে’

‘ফুলের বনে মধু নিতে অনেক কাঁটার জ্বালা’, গেয়েছিলেন শ্যামল মিত্র৷ সে অনেকদিন আগের কথা৷ আজ ইউরোপে সেই ভ্রমর কিংবা ভোমরা অথবা – ইংরিজিতে – বাম্বল-বি-র বিলুপ্ত হবার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে৷

ইউরোপের ভোমরাদের প্রায় এক-চতুর্থাংশ নিশ্চিহ্ন হবার ঝুঁকিতে রয়েছে৷ এর কারণ হল মূলত তাদের হ্যাবিট্যাট, অর্থাৎ বসবাসের উপযোগী পরিবেশের ক্ষতি এবং সেই সঙ্গে জলবায়ুর পরিবর্তন৷ ইউরোপের ৬৮টি প্রজাতির ভোমরাদের মধ্যে ১৬টি প্রজাতি ইতিমধ্যেই আন্তর্জাতিক প্রকৃতি সংরক্ষণ সঙ্ঘ বা আইইউসিএন-এর লাল তালিকায় নাম উঠিয়ে ফেলেছে৷

অন্যদিকে ভোমরাদের নিকটাত্মীয় মৌমাছিরাও রোগের কারণে বিপন্ন৷ কাজেই মুক্ত প্রকৃতিতে পরাগ ছড়ানোর মতো অতীব গুরুত্বপূর্ণ কাজটি যারা নিখর্চায় করে থাকে, সেই নিরলস, মধুলোভী কর্মীরাই যদি উধাও হন, তাহলে দুনিয়া চলবে কি করে?

বিভিন্ন দেশের সরকার, সেই সঙ্গে বিজ্ঞানী ও সংরক্ষণ গোষ্ঠীদের সমন্বয়ে সৃষ্ট আইইউসিএন বলছে: ‘‘ইউরোপে ফসলে পরাগ যোগ করে যে সব কীটপতঙ্গ, তাদের মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পাঁচটি প্রজাতির মধ্যে তিনটিই হল ভোমরা৷'' এই সব পরাগবহনকারী খুদে জীবরা প্রতিবছর ইউরোপীয় কৃষিপণ্যে যে মূল্য যোগ করে, তার পরিমাণ হল দু'হাজার দু'শো কোটি ইউরো৷

অথচ ইউরোপের ভোমরাদের মধ্যে অর্ধেক প্রজাতির সদস্যসংখ্যা কমছে৷ সংখ্যা বাড়ছে মাত্র ১৩ শতাংশ প্রজাতির৷ ইউরোপীয় ভোমরা মৌমাছির চেয়ে অনেক বড় এবং কালোর উপর হলদে ডোরা কাটা৷ এরা মৌমাছির মতো চাক তৈরি করে না; শ'দুয়েক অবধি ভোমরা মিলে ছোট ছোট বাসা বাঁধে৷ গ্রিনহাউস বা কাচের ঘরে টম্যাটো, লঙ্কা ও ক্যাপসিকাম, বেগুন ইত্যাদির গাছ ‘পলিনেট' অর্থাৎ পরাগযুক্ত করার জন্য বাণিজ্যিকভাবে ভোমরা পালনের চল আছে৷

জলবায়ুর পরিবর্তন, বাণিজ্যিকভাবে কৃষিকাজ, এবং কৃষিক্ষেত্রের পরিবর্তনের ফলে ভোমরারা বিপন্ন হয়ে পড়েছে৷ ইউরোপীয় ইউনিয়ন কিছু কিছু ব্যবস্থা নিয়েছে বটে: যেমন ইইউ সম্প্রতি কিছু কীটনাশকের ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে৷ কিন্তু যে বস্তুটি নিয়ে আজ গবেষণার প্রয়োজন, সেটি হল: মৌমাছিদের রোগ কি এখন ভোমরাদের মধ্যেও ছড়াচ্ছে? ব্রিটেন থেকে গত ফেব্রুয়ারি মাসের খবর: তথাকথিত ‘ডিফরমড উইং' বা ‘পঙ্গু পাখা' ভাইরাসটি নাকি মৌমাছি এবং ভোমরা, উভয়ের মধ্যেই পাওয়া গিয়েছে৷ তবে সাধারণভাবে ভোমরাদের অসুখবিসুখ সম্পর্কে বিশেষ কিছু জানা নেই৷

একমাত্র রানি ভোমরাই শীত কাটিয়ে বসন্তে পা দিতে পারে৷ কেননা প্রকৃতিতে অপচয়ের আরেক নাম নবায়ন৷

এসি/এসবি (রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন