1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

যুক্তরাষ্ট্র

ভোটের আগেই ভুয়া ভোটারের অভিযোগ ট্রাম্পের

মার্কিন নির্বাচনে শেষ প্রেসিডেন্সিয়াল ডিবেট৷ যুক্তি-পাল্টা যুক্তিতে হিলারি ক্লিনটন এই বিতর্ক জিতেছেন বলে জানিয়েছে জরিপ৷ নির্বাচনে হারলে ফলাফল মেনে নেবেন কিনা জানতে চাইলে ট্রাম্প বলেছেন এ ‘সাসপেন্স' তিনি রাখতে চান৷

লাস ভেগাসের নেভাডা বিশ্ববিদ্যালয়ে স্থানীয় সময় বুধবার রাতে দেড় ঘণ্টার এ বিতর্কে ডেমোক্র্যাট প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন ও রিপাবলিকান প্রার্থী ট্রাম্প অভিবাসন নীতি, সুপ্রিম কোর্টে বিচারক নিয়োগ, গর্ভপাত, উইকিলিকসে ফাঁস হওয়া হিলারির ই-মেইল, অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ড নিয়ে রাজনীতির মতো বিষয়ে যুক্তি, পাল্টা যুক্তি দিয়েছেন৷ এবারের বিতর্কে আগের দু বারের চেয়ে বিষয়ভিত্তিক আলোচনা হয়েছে বেশি৷ প্রথম ও দ্বিতীয় বিতর্কে দু্ই প্রার্থীই ব্যক্তিগত আক্রমণে বেশি মনোযোগী ছিলেন৷ ৯০ মিনিটের বিতর্কের সঞ্চালক ছিলেন ফক্স নিউজের ক্রিস ওয়ালেস৷

এবারের ডিবেটে ট্রাম্পকে খুব একটা উত্তেজিত হতে দেখা যায়নি৷ তবে প্রেসিডেন্ট প্রার্থীদের শেষ মুখোমুখি বিতর্কে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠলেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিন৷


বিতর্কের এক পর্যায়ে হিলারি অভিযোগ করেন, সাম্প্রতিক সময়ে যুক্তরাষ্ট্র যেসব সাইবার হামলার শিকার হয়েছে, ট্রাম্প তার দায় পুটিনকে দিতে অস্বীকার করেছেন৷

মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা ও হোমল্যান্ড সিকিউরিটি ডিপার্টমেন্ট ডেমোক্র্যাটিক ন্যাশনাল কমিটির উপর সাইবার হামলার জন্য রাশিয়ার শীর্ষ নেতৃত্বকে দায়ী করে আসছে৷ বিতর্কে পুটিনের সঙ্গে সখ্যতার অভিযোগ অস্বীকার করে ট্রাম্প বলেন, পুটিনকে তিনি চেনেন না৷ তবে পুটিন তার সম্পর্কে ভালো ভালো কথা বলেছেন৷ আর তাই প্রেসিডেন্ট হলে রুশ প্রেসিডেন্টের সঙ্গে ভালো বোঝাপড়া করতে পারবেন, যা হিলারির পক্ষে সম্ভব নয়৷ এ সময় হিলারি ট্রাম্পকে ‘পুটিনের পাপেট' বলে উল্লেখ করেন৷ ট্রাম্প তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘‘পাপেট আসলে হিলারি, কেননা, প্রতিটি পদক্ষেপে হিলারি এবং ওবামাকে ধরাশায়ী করেছে পুটিন৷''

হিলারি বার্নি স্যান্ডার্সের বক্তব্য উল্লেখ করে বলেছেন, ‘‘অ্যামেরিকার ইতিহাসে প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিসেবে সবচেয়ে বিপজ্জনক ব্যক্তি ট্রাম্প৷'' ট্রাম্প তার বক্তব্যে গণমাধ্যমকে অসৎ এবং দুর্নীতিবাজ বলে উল্লেখ করেছেন৷ হিলারির দল এই কাজগুলো খুব ভালোভাবে করছে বলে মন্তব্য করেন ট্রাম্প৷ তাঁর অভিযোগ, হিলারি ও তার টিম লাখো জাল ভোটারকে নিবন্ধিত করেছেন৷ তাঁকে নির্বাচনে হারাতে কারচুপির আশ্রয় নেয়া হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেছেন৷ হিলারির ই-মেইল প্রকাশ প্রসঙ্গে ট্রাম্প মন্তব্য করলে হিলারি বলেন, ‘‘বিভিন্ন মানুষ ও প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট হ্যাক করে উইকিলিকসকে তথ্য দিয়েছে ট্রাম্পের টিম৷''

গর্ভপাত:

হিলারি বলেন, বিজয়ী হলে তিনি সুপ্রিম কোর্টে এমন বিচারক নিয়োগ দেবেন যিনি নারীর গর্ভপাতের অধিকার সংরক্ষণ করবে৷ এর বিরোধিতায় ট্রাম্প বলেন, জীবন নিয়ে খেলার অধিকার কারও নেই৷

অস্ত্র নীতি:

মার্কিন নাগরিকদের অস্ত্র বহনের অধিকারকে সমর্থন করে ট্রাম্প বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধানের ‘দ্বিতীয় সংশোধনী' বজায় রাখতে বদ্ধপরিকর এমন বিচারককে সুপ্রিম কোর্টে মনোনয়ন দেবেন তিনি৷ ওই সংশোধনীতেই মার্কিন নাগরিকদের অস্ত্র রাখা ও বহনের অধিকার দেয়া হয়েছে৷ হিলারি জানান, তিনি দ্বিতীয় সংশোধনীর বিপক্ষে নন, তবে অস্ত্রের কারণে যেন শিশুদের ক্ষয়ক্ষতি না হয়, সেজন্য এর সঙ্গে নতুন বিধান যুক্ত করতে চান৷ যুক্তরাষ্ট্রের নিউক্লিয়ার অস্ত্রের নিয়ন্ত্রণ রিপাবলিকান প্রার্থীর হাতে যাওয়া নিরাপদ হবে কি না সে প্রশ্ন তুলে হিলারি বলেন, পারমাণবিক অস্ত্রের গোপন সংকেত ট্রাম্পের হাতে যাক, এটা তিনি চান না৷

বিশ্লেষকরা বলছেন, নারী নির্যাতন ও যৌন হয়রানির বেশ কয়েকটি অভিযোগের কারণে জনমত জরিপে ট্রাম্পের সমর্থন পড়তির দিকে৷ বিতর্কে সত্তর বছর বয়সী এ রিয়েল এস্টেট ব্যবসায়ী তাঁর বিরুদ্ধে আনা যৌন হয়রানির অভিযোগ অস্বীকার করেছেন৷

বিতর্কের সঞ্চালক ক্রিস ওয়ালেস ট্রাম্পকে জিজ্ঞেস করেন, নির্বাচনে হারলে তিনি ফলাফল মেনে নেবেন কি না? এর উত্তরে ট্রাম্প বলেন, ‘‘আমি তোমাকে সাসপেন্সের মধ্যেই রাখতে চাই৷''

বিতর্কের পর হিলারি এখন পর্যন্ত ৬ পয়েন্টে এগিয়ে আছেন৷ কুইনিপিঅ্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের জরিপ অনুযায়ী, হিলারির পক্ষে সমর্থন পড়েছে ৫২ ভাগ, অন্যদিকে ট্রাম্পের পক্ষে সমর্থন পড়েছে ৩৭ ভাগ৷ আগামী ৮ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন৷ সেখানেই নির্ধারিত হবে, কে হবেন যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫তম প্রেসিডেন্ট৷

এপিবি/এসিবি (এপি, এএফপি, রয়টার্স)

 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়