1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ভেস্তে গেল ইরান নিয়ে ইস্তানবুলের বৈঠক

কোনরকম সমাধানসূত্র তৈরি হল না, পরের আলোচনা কবে কোথায় তা জানা গেল না, তারপরেও ইস্তানবুলে দুদিনের ইরান বিষয়ক বৈঠক শেষে ভবিষ্যতের দরজা ‘খোলা’ বলেই মন্তব্য অ্যাশটনের৷

সমাধান, ইরান, ইস্তানবুল, জাতিসংঘ, আলোচনা, ইইউ, অ্যাশটন, পারমাণবিক

আলোচনার পথে জার্মান প্রতিনিধিদলের নেত্রী এমিলে হেবার ও অন্যরা

প্রথম থেকেই পরমাণু ইস্যুকে ব্রাত্য করে রেখেছিল ইরান

শুক্রবার আর শনিবার, এই দুদিন বহু প্রত্যাশিত ইরানের পারমাণবিক উচ্চাশা নিয়ে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের পাঁচ সদস্য দেশ এবং জার্মানি এই ছয় প্রধান শক্তির সঙ্গে তেহরানের বৈঠক ছিল তুরস্কের ইস্তানবুলে৷ প্রথম দিন বৈঠক শুরুর আগেই ইরান শর্ত দিয়ে বলে, তাদের ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ নিয়ে বৈঠকে কোন কথা বলা চলবে না৷ সে কাজ তারা যেমন চালাচ্ছিল, চালিয়েই যাবে৷ উল্টে, শান্তিতে নিজেদের পরমাণু পরিকল্পনা চালিয়ে নিয়ে যেতে জাতিসংঘ আরোপিত আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করার দাবি তোলে তেহরান৷ শুক্রবার থেকেই বোঝা যাচ্ছিল যে ইস্তানবুল বৈঠক ভেস্তে যাবে৷ শেষ পর্যন্ত তাই হল৷ কিছুক্ষণ আগে বৈঠক শেষ হওয়ার পর আন্তর্জাতিক প্রতিনিধিদের বেশ হতাশ আর ক্ষিপ্ত দেখিয়েছে৷ ইরানের পূর্বশর্ত এবং তাদের প্রতিনিধিদের অনমনীয় আচরণে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এই বৈঠকে পাশ্চাত্যের তরফের নেত্রী ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক প্রধান ক্যাথারিন অ্যাশটন স্বয়ং৷

ইরানকে নতুন সুবিধা প্যাকেজ দিতে চেয়েছিল পশ্চিম দুনিয়া

পারমাণবিক পরিকল্পনা থামিয়ে জ্বালানীর জন্য বিশেষ নবায়িত প্রযুক্তি এবং সেইসঙ্গে অন্যকিছু সুযোগসুবিধা সহ প্যকেজের প্রস্তাব ইরানকে দেওয়া হয়েছিল বলে আগেই জানিয়েছিলেন অ্যাশটন৷ ২০০৯ সালে আন্তর্জাতিক মহলের তরফে শেষবার যে প্যাকেজের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল, এবারেরটা তার সঙ্গে কতটা ভিন্ন সে বিষয়ে বিশদ কোন তথ্য

Türkei Istanbul Atomgespräche Januar 2011

ইরানের প্রধান মধ্যস্থতাকারী জালিলি আর পশ্চিমের দলনেত্রী ক্যাথারিন অ্যাশটন

সংবাদমাধ্যমের কাছে ফাঁস করেননি বৈঠককারীদের মধ্যে কেউই৷ তবে বেশ বোঝা গেছে যে ইরান এইসব প্যাকেজ ইত্যাদি নিয়ে কোন কথাই তুলতে দেয়নি বৈঠকে৷ বস্তুত তাদের পূর্বশর্ত অক্ষরে অক্ষরে অনুসরণ করে তারা পারমাণবিক প্রসঙ্গ নিয়ে একটিও শব্দ খরচ করেনি, শোনেওনি কিছু৷ ফলে এই বৈঠকের মূল উদ্দেশ্যটাই ব্যর্থ হয়ে গেছে৷

নতুন করে জলঘোলা শুরু হল ইরানের পারমাণবিক প্রক্রিয়া নিয়ে

খানিকটা তাই৷ পারমাণবিক জ্বালানী তৈরির নাম করে লুকিয়ে ইরান পারমাণবিক অস্ত্র বানাচ্ছে, এ অভিযোগ আর আশঙ্কা তো পশ্চিমের রয়েইছে৷ বিভিন্ন উপায়ে ইরানকে আলোচনায় টেনে এনে বুঝিয়েসুঝিয়ে তাদের এই কাজ থেকে নিরস্ত করার যাবতীয় উদ্যোগ এ পর্যন্ত প্রায় ব্যর্থই বলা যায়৷ আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞাতেও ভয় পাচ্ছে না ইরান৷ এই ব্যর্থ ইস্তানবুল বৈঠকের পর কী হবে তা স্পষ্ট নয়৷ বৈঠকের নেত্রী ক্যাথারিন আশটন যদিও সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘আলোচনার জন্য দরজা এখনও খোলা'- কিন্তু সে দরজা আদৌ খুলবে কবে তা কেউই জানে না৷ কারণ, না ইরান, না আন্তর্জাতিক মহল, কোন পক্ষই জানে না পরবর্তী বৈঠক কবে কখন আর কোথায় বসবে৷

প্রতিবেদন: সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়

সম্পাদনা: রিয়াজুল ইসলাম

সংশ্লিষ্ট বিষয়