1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ভিক্টোরিয়া'স সিক্রেট-এর অন্তর্বাস: নিখুঁত দেহবল্লরী?

মহিলাদের ফ্যাশনেবল ও মহার্ঘ অন্তর্বাস তৈরি করে এই মার্কিন কোম্পানিটি৷ তাদের সর্বাধুনিক পোস্টার অভিযান – ‘দ্য পার্ফেক্ট ‘‘বডি''' – কিন্তু প্রতিবাদের ঝড় তুলেছে৷

ভিক্টোরিয়া'স সিক্রেট-এর সর্বাধুনিক ‘ব্রা কলেকশন'-টির নাম রাখা হয়েছে এক কথায় ‘বডি' – বিজ্ঞাপনে সেটাই গিয়ে দাঁড়িয়েছে ‘দ্য পার্ফেক্ট বডি'-তে৷ সাথে সাথে সোশ্যাল মিডিয়ায় চেঞ্জ.অর্গ ঠিকানায় পিটিশন শুরু হয়ে গিয়েছে ভিক্টোরিয়া'স সিক্রেট-এর কাছ থেকে ক্ষমাপ্রার্থনা দাবি করে৷ ভিক্টোরিয়া'স সিক্রেট-কে ক্ষমা চাইতে হবে এই কারণে যে, তাদের পার্ফেক্ট বডি বিজ্ঞাপন মহিলাদের দেহ এবং মহিলাদের কি চোখে দেখা উচিত, সে' বিষয়ে একটি ‘অসুস্থ ও হানিকর বার্তা' পাঠাচ্ছে৷ টুইটারেও #আইঅ্যামপার্ফেক্ট হ্যাশট্যাগে অনুরূপ ঊষ্মা প্রকাশ পেয়েছে৷

Victoria's Secret Werbung

ভিক্টোরিয়া'স সিক্রেটের পোস্টারটি বলে, মহিলাদের তাদের চেহারা অনুযায়ী বিচার করতে

‘বডিশেমিং'

যে তিনজন ব্রিটিশ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী চেঞ্জ.অর্গ পিটিশনটির আয়োজন করেছেন, তাঁদের বক্তব্য হলো এই যে, ভিক্টোরিয়া'স সিক্রেট এই বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে কমবয়সি মহিলাদের তাদের ফিগার পার্ফেক্ট না হওয়ার দরুণ লজ্জা দিচ্ছে: কথাটা হলো ‘বডিশেমিং'৷ ভিক্টোরিয়া'স সিক্রেট-এর সর্বাধুনিক বিজ্ঞাপন অভিযানকে ‘দায়িত্ববিহীন মার্কেটিং' আখ্যা দিয়েছেন ফ্রান্সেস ব্ল্যাক, গাব্রিয়েলা কুনটুরিডেস এবং লরা ফেরিস৷ তাদের যুক্তি, এই বিজ্ঞাপন অভিযান মহিলাদের আত্মমর্যাদার হানি ঘটাচ্ছে; মহিলারা মনে করছেন, তাঁদের দেহ পর্যাপ্ত পরিমাণে আকর্ষণীয় নয়, কেননা সৌন্দর্যের এই সংকীর্ণ সংজ্ঞায় তাদের স্থান নেই৷

ভিক্টোরিয়া'স সিক্রেট-এর পোস্টারে যে তিনজন মডেলকে দেখানো হয়েছে, তাদের প্রচুর পরিমাণে ‘এয়ারব্রাশ' করে তবেই ঐ আকৃতিতে আনা হয়েছে, বলে ফ্রান্সেস ব্ল্যাক-এর ধারণা৷ ডয়চে ভেলের সাক্ষাৎকারে ফ্রান্সেস বলেন, ‘‘পার্ফেক্ট বডি বা নিখুঁত দেহ একটা মরীচিকা, একটা অলীক কল্পনা''৷

ফ্রান্সেস উত্তর ইংল্যান্ডের লিডস বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরিজি সাহিত্য এবং দর্শন নিয়ে পড়াশুনা করেন৷ তাঁর মতে এই ধরনের বিজ্ঞাপন স্ত্রী-পুরুষের সম্পর্কের উপরেও অশুভ প্রভাব ফেলে৷

সৌন্দর্যের সংকীর্ণ সংজ্ঞা

ভিক্টোরিয়া'স সিক্রেট-এর পোস্টারটি পুরুষদের বলে, মহিলাদের তাদের চেহারা অনুযায়ী বিচার করতে, যার ফলে পুরুষদের সুস্থ, স্বাভাবিক নারী-পুরুষ সম্পর্ক স্থাপনের ক্ষমতার হানি হয়৷ অপরদিকে যে সব মহিলা সৌন্দর্যের এই সংকীর্ণ সংজ্ঞার মধ্যে পড়েন না, তাদের প্রতি পুরুষদের অশ্রদ্ধা জন্মায়৷

নয়ত ২২ বছর বয়সি ফ্রান্সেস-এর মূল আপত্তি হলো ‘দ্য পার্ফেক্ট বডি', এই স্লোগানটি নিয়ে৷ এখানে বিজ্ঞাপনের জগৎ স্ত্রী-পুরুষ কাউকেই রেয়াত করে না – মহিলাদের মতো পুরুষদেরও নিখুঁত দেহসৌষ্ঠবের অধিকারী হবার জন্য উৎসাহ প্রদান করা হয়, সেই অলীক দেহসৌষ্ঠবের নানা ছবি দেখিয়ে৷ কাজেই স্ত্রী-পুরুষ দু'পক্ষই ‘নেগেটিভ বডি ইমেজ' বা নিজের দেহ সম্পর্কে খারাপ ধারণায় ভোগেন, যার ফলে তাদের আত্মমর্যাদাবোধ কমে যায়৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়