1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বাংলাদেশ

ভারী বর্ষণে চার সেনাসদস্যসহ নিহত শতাধিক

সোমবার সকাল থেকে শুরু হওয়া ভারী বর্ষণের কারণে সৃষ্ট ভূমিধসে রাঙ্গামাটিতে অন্তত ৬৪ জন প্রাণ হারিয়েছেন বলে জানা গেছে৷ এছাড়া বান্দরবানে ছয় ও চট্টগ্রামে ৩০ জন নিহত হওয়ার খবর জানাচ্ছে কর্তৃপক্ষ৷

Bangladesch Erdrutsche nach Monsunregen mindestens 25 Tote (Getty Images/AFP/Str)

বান্দরবানে উদ্ধারকাজ চলছে

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের উপ সচিব জি এম আবদুল কাদের বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার রাত পৌনে ৯টায় ডয়চে ভেলের কনটেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, পাহাড় ধসের ঘটনায় দুই সেনা কর্মকর্তাসহ ৯৪ জনের লাশ উদ্ধারের খবর তারা পেয়েছেন।

“আমরা নিয়মিত জেলা পর্যায়ে যোগাযোগ রাখছি। নিহতের সংখ্যা একশ ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।”

মন্ত্রণালয়ের নিয়ন্ত্রণ কক্ষকে উদ্বৃত করে একই সময়ে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জানিয়েছে, চট্টগ্রামে মারা গেছেন ৩০ জন। তাদের মধ্যে ২২ জন পাহাড় ধসে এবং বাকিরা গাছচাপায় মারা যান। এছাড়া রাঙ্গমাটিতে ৫৮ জন ও বান্দরবানে ছয় জনের লাশ উদ্ধার করেছেন উদ্ধারকর্মীরা। তবে ওই সময় পর্যন্ত স্থানীয় কর্মকর্তারা রাঙামাটিতে ৬৪ জন, চট্টগ্রামে ৩০ জন এবং বান্দরবানে সাতজন নিহতের খবর নিশ্চিত হওয়া গেছে৷

রাঙ্গামাটিতে নিহতদের বেশিরভাগই আদিবাসী৷ ভারতের সীমান্তের কাছে একটি প্রত্যন্ত এলাকায় তাঁরা বাস করতেন৷ ভূমিধসের ঘটনা যখন ঘটে তখন তাঁরা ঘুমিয়ে ছিলেন বলে জানিয়েছেন জেলার পুলিশ প্রধান সৈয়দ তারিকুল হাসান৷

এই জেলায় নিহতদের মধ্যে চারজন সেনাসদস্যও রয়েছেন৷ সশস্ত্র বাহিনীর মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট কর্ণেল রশিদুল হাসান এএফপিকে বলেন, ‘‘মানিকছড়িতে ঘটা আরেক ভূমিধসের পর রাস্তাঘাট পরিষ্কার করতে সেখানে সেনাসদস্যদের পাঠানো হয়েছিল৷ দ্বিতীয় ভূমিধসে তাঁরা প্রাণ হারান৷’’

ঢাকা আবহাওয়া অফিস মঙ্গলবার সকালে জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় তারা রাঙ্গামাটিতে ৩৪৩ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছেন৷ মঙ্গলবারও সেখানে বৃষ্টি হবে বলে পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে৷

এদিকে, বান্দরবানে ভূমিধসে একই পরিবারের তিন শিশুসহ ছয়জন নিহত হয়েছেন৷

Bangladesch Erdrutsche nach Monsunregen mindestens 25 Tote (Getty Images/AFP/Str)

আত্মীয় হারানোর বেদনায় কাঁদছেন এক নারী

এছাড়া চট্টগ্রামে ২৩ জনের প্রাণ যাওয়ার কথা জানিয়েছে এএফপি৷ তবে জেলার পুলিশ প্রধান রেজাউল মাসুদ জার্মান বার্তা সংস্থা ডিপিএকে ২৭ জন নিহত হওয়ার তথ্য দিয়েছেন৷ রাতে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম বলছে, এই সংখ্যাটি ৩০ জন৷

উল্লেখ্য, চট্টগ্রামে এক দশক আগে ভূমিধসে একটি পুরো গ্রাম ঢেকে গিয়ে কমপক্ষে ১২৬ জনের মৃত্যু হয়েছিল৷

আরও ভূমিধসের আশংকায় চট্টগ্রামের পুলিশ মাইকিং করে পাহাড়ের পাদদেশে বসবাসকারীদের অন্যত্র সরে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে৷

জেডএইচ/এসিবি (এএফপি, ডিপিএ)

শ্রীলঙ্কায় ভূমিধস নিয়ে ৩০ মে’র এই ছবিঘরটি দেখতে পারেন৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়