1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ভারত সফরের দ্বিতীয় দিনে নতুনদিল্লিতে ওবামা

ভারত সফররত মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা সস্ত্রীক আজ অপরাহ্নে মুম্বই থেকে পৌঁছেন নতুনদিল্লিতে৷ বিমানবন্দরে তাঁকে স্বাগত জানান প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিং ও তাঁর পত্নী গুরশরণ কৌর৷ আগামীকাল ওবামার ঠাসা সরকারি কর্মসূচি৷

U.S. President Barack Obama, left, is greeted by Indian Prime Minister Manmohan Singh

ওবামাকে মনমোহনের আন্তরিক সম্বর্ধনা

প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ও তাঁর স্ত্রী মিশেল ওবামা নতুনদিল্লিতে পৌঁছোলে প্রথাগত প্রোটোকল না মেনে বিমানবন্দরে তাঁকে স্বাগত জানাতে যান প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিং ও তাঁর স্ত্রী গুরশরণ কৌর৷ ভারত-মার্কিন সম্পর্কে তিনি যোগ করলেন নতুন মাত্রা৷ বিকেলে ওবামা যান ষোড়শ শতাব্দীর মোঘল সম্রাট হুমায়ুনের সমাধিসৌধে৷ কথা বলেন ছোট ছোট স্কুল বাচ্চাদের সঙ্গে৷ যমুনা নদীর তীরে এই সমাধিসৌধকে ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ স্থানের স্বীকৃতি দেয় ইউনেস্কো ১৯৯৩ সালে৷ তারপর ওবামা যান নতুনদিল্লির মার্কিন দূতাবাসে৷ প্রধানন্ত্রী ড. মনমোহন সিং ঘরোয়া নৈশভোজে আমন্ত্রণ জানান প্রেসিডেন্টকে৷

Flash-Galerie Obama Reise Indien

তাজ হোটেলে সন্ত্রাসী হামলার স্মৃতি স্তম্ভের সামনে ওবামা ও মিশেল

মুম্বই ছাড়ার আগে বারাক ওবামা ও মিশেল ওবামা সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজ ক্যাম্পাসে মিলিত হন মুম্বই-এর ৬টি কলেজের ছাত্রছাত্রীদের সঙ্গে৷ খোলাখুলি মত বিনিময় করেন নানা বিষয় নিয়ে৷ কূটনীতি ও রাজনীতির পোষাক ঝেড়ে ফেলে ওবামা খোলামনে সব প্রশ্নের উত্তর দেন৷ তাঁর মধ্যে ছিল জেহাদি থেকে আধ্যাত্মিকতা, ভারত-পাকিস্তান সম্পর্ক থেকে আফগানিস্তান, অর্থনীতি থেকে আগামী ২০ বছরে ভারত-মার্কিন সম্পর্ক কোথায় দাঁড়াবে নানা বিষয়৷

জেহাদিদের সম্পর্কে এক ছাত্রীর প্রশ্নের উত্তরে ওবামা বলেন, ইসলাম ধর্মের মূলমন্ত্র শান্তি, ন্যায়বিচার ও সহনশীলতা৷ কিন্তু কিছু উগ্রবাদী সহিংসতার পথে চলছে৷ এদের বিচ্ছিন্ন করা আজকের চ্যালেঞ্জ৷ সন্ত্রাস ও পাকিস্তান নিয়ে জনৈক ছাত্রের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, পাকিস্তান এক সম্ভাবনাময় দেশ৷ কিন্তু সেদেশে সন্ত্রাসীরা সক্রিয়৷ পাকিস্তান সরকার তা জানে৷ এই উগ্রবাদীরা ক্যান্সারের মত পাকিস্তানকে ধ্বংস করতে উদ্যত৷ তাদের নির্মূল করতে আমেরিকা সাহায্য করতে চায় পাকিস্তানকে৷ ভারত-পাকিস্তান সম্পর্কের বিষয়ে ওবামার মন্তব্য, পাকিস্তানের সফলতায় যে দেশ সবথেকে বড় ভূমিকা নিতে পারে সে হলো ভারত৷ অস্থির পাকিস্তান ভারতের পক্ষে ক্ষতিকর৷ ভারত যে গতিতে এগিয়ে চলেছে, তাতে এই অঞ্চলের শান্তি ও স্থিতিশীলতা ভারতের পক্ষে বেশি কাম্য৷ দু'দেশের মধ্যে আলোচনা চলুক৷ প্রথমে কম বিতর্কিত ইস্যু নিয়ে পরে বেশি বিতর্কিত ইস্যু নিয়ে, অভিমত প্রকাশ করেন প্রেসিডেন্ট ওবামা৷ আফগানিস্তান বিষয়ে তিনি বলেন, ২০১২ সালের পরও মার্কিন সেনা সেখানে থাকবে, যতক্ষণ না আফগান সেনারা তৈরি হচ্ছে৷

প্রতিবেদন: অনিল চট্টোপাধ্যায়, নতুনদিল্লি

সম্পাদনা: রিয়াজুল ইসলাম

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়