1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ভারতে ‘বাংলাদেশি জঙ্গি' গ্রেপ্তার

দুর্বৃত্তের হামলায় আহত প্রকাশক টুটুল জানিয়েছেন, মুক্তচিন্তার পক্ষে তিনি কাজ করেই যাবেন৷ বাংলাদেশে প্রকাশক-লেখকদের ওপর হামলার দায় আইএস স্বীকার করলেও এখনো কেউ গ্রেপ্তার হয়নি৷ তবে ভারতে এক সন্দেহভাজন জঙ্গি গ্রেপ্তার হয়েছে৷

গত ৩১ অক্টোবর ঢাকার লালমাটিয়ায় শুদ্ধস্বর প্রকাশনীর কার্যালয়ে ঢুকে আহমেদুর রশীদ টুটুল, তারেক রহিম ও রণদীপম বসুকে কুপিয়ে জখম করে তিন দুর্বৃত্ত৷ সেদিনই শাহবাগের আজিজ সুপার মার্কেটে কুপিয়ে হত্যা করা হয় জাগৃতি প্রকাশনীর কর্ণধার প্রকাশক ফয়সল আরেফিন দীপনকে৷ দুটি হামলায় জড়িত কাউকে এখনো গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ৷ তিন দিন পরই আশুলিয়ার তল্লাশি চৌকিতে হামলা চালিয়ে হত্যা করা হয় এক পুলিশ সদস্যকে৷ সেই ঘটনায় জড়িত কাউকেও গ্রেপ্তার করা হয়নি৷

এদিকে শুদ্ধস্বরের কর্ণধার আহমেদুর রশীদ টুটুল বলেছেন, দুর্বৃত্তরা হামলা চালানোর পরও মুক্তচিন্তার পক্ষে কাজ করে যাবেন৷ টুটুল এখন কিছুটা সুস্থ৷ ধীরে ধীরে সেরে উঠছেন৷ আজ (শুক্রবার) সকালে নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে তিনি লিখেছেন, ‘‘শুভসকাল বাংলাদেশ৷ শুভসকাল মহাপৃথিবী৷ আবারো আঙুল ছোঁয়া পেলো কী-বোর্ডের৷ এ যেন ঠিক বন্ধুদের সঙ্গে হ্যান্ডশেক করার আনন্দ৷ বুদ্ধির মুক্তির লড়াইয়ে, মুক্ত বুদ্ধির লড়াইয়ে আমি ছিলাম, আমি আছি, আমি থাকবো৷ সঙ্গে থেকো বাংলাদেশ৷''

তবে বাংলাদেশে ব্লগার, প্রকাশক, শিয়াদের তাজিয়া মিছিল বা পুলিশের ওপর হামলাকারী গ্রেপ্তার না হলেও ভারতে বাংলাদেশি এক সন্দেহভাজন জঙ্গি গ্রেপ্তার হয়েছে৷

২০১৪ সালের ২ অক্টোবর ভারতের বর্ধমানে বোমা বিস্ফোরণে দু জন নিহত হয়৷ ভারতীয় নিরাপত্তা সংস্থাগুলো দাবি করে আসছে নিহত দুই ব্যক্তি ছিলেন জামায়াতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশের (জেএমবি)-এর সদস্য৷ এবার ত্রিপুরায় এক বাংলাদেশিকে গ্রেপ্তার করেছে ভারতীয় পুলিশ৷ গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তি ভারতীয় এক নারীকে বিয়ে করেছিলেন জানিয়ে ত্রিপুরার পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ধৃত ব্যক্তিও জেএমবির সদস্য বলেই তাদের ধারণা৷

সংকলন: আশীষ চক্রবর্ত্তী

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়