1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

‘ভারতে প্রতি তিনজনের মধ্যে একজন দুর্নীতিগ্রস্ত’

‘ভারতের প্রায় এক-তৃতীয়াংশ মানুষ বলতে গেলে একেবারেই দুর্নীতিগ্রস্ত এবং দেশটির অর্ধেক মানুষই কোনো না কোনোভাবে দুর্নীতির আশ্রয় নিচ্ছে’৷

default

দিল্লিতে অনুষ্ঠিতব্য কমনওয়েলথ গেমস নিয়ে ব্যাপক দুর্নীতির খবর বেরিয়েছে

বিদায়ী প্রধান দুর্নীতি পর্যবেক্ষক আরও বলছেন, অবৈধ উপায়ে সম্পদের মালিক হওয়ার প্রবণতা দুর্নীতিকে বাড়িয়ে তুলছে৷

প্রত্যূষ সিনহা চলতি সপ্তাহেই ‘ইন্ডিয়ান সেন্ট্রাল ভিজিলেন্স কমিশনার' হিসেবে চাকরি থেকে অব্যাহতি নিয়েছেন৷ তিনি বলেছেন চাকরি জীবনের সবচেয়ে খারাপ অভিজ্ঞতার কথা, যে কীভাবে মানুষের মধ্যে দুর্নীতি বেড়ে গেছে এবং মানুষ আজ কতটা ভোগবিলাসি হয়ে যাচ্ছে৷

তিনি বললেন, ‘‘আমার মনে আছে, আমরা যখন যুবক ছিলাম তখন কেউ যদি দুর্নীতি করতো, তাকে নিচু চোখে দেখা হতো৷ সেসময় অন্তত মানুষের মধ্যে সামাজিক লজ্জা বলে কিছু একটা ছিলো, যা এখন আর নেই৷ এখন সামাজিকভাবেই এর গ্রহণযোগ্যতা তৈরি হয়েছে৷''

আন্তর্জাতিক দুর্নীতি পর্যবেক্ষক সংস্থা ‘ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল'এর বিশ্বব্যাপী দুর্নীতি বিরোধী সূচকে ১০ এর মধ্যে ৩ দশমিক ৪ পেয়ে ভারতের অবস্থান ৮৪ তম ৷ সবচেয়ে কম দুর্নীতিগ্রস্ত দেশগুলির তালিকায় ৯ দশমিক ৪ পেয়ে নিউজিল্যান্ড রয়েছে প্রথম এবং ১ দশমিক ১ পেয়ে সোমালিয়া রয়েছে শেষ অবস্থানে৷ সেখানে বলা হয়েছে, প্রতিবছর ভারতের লাখ লাখ গরীব পরিবারকে নূন্যতম জনসেবা পেতে হলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে উৎকোচ দিতে হয়৷

গতকাল মিন্ট পত্রিকাতে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সিনহা বলেছেন, ‘‘ভারতের শতকরা ২০ ভাগ মানুষই সৎ এমনিতেই প্রলোভনের চিন্তা করেননা, তারা নিজেরাই বিবেকবান৷ অপরদিকে শতকরা ৩০ ভাগ লোক পুরোপুরি দুর্নীতিগ্রস্ত৷ বাকিরাও দুর্নীতির সীমানায় পৌঁছে গেছে৷ ''

সিনহা আরও বলেছেন, ‘‘আধুনিক ভারতে কারো যদি অনেক টাকা-পয়সা থাকে, তাকেই সম্মান করা হয়৷ কারো মনে প্রশ্ন জাগেনা, সে কীভাবে এত টাকা পেলো৷''

আগামী মাসে নতুন দিল্লিতে অনুষ্ঠিতব্য কমনওয়েলথ গেমস এর জন্য নির্মাণ প্রকল্প নিয়ে দুর্নীতির বিষয়টি সবার টনক নেড়েছে৷ এমনকী প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে সকল স্তরের মানুষকে সোচ্চার হতে বলছেন৷ বলছেন, দুর্নীতি ভারতের অর্থনৈতিক ভবিষ্যতকে হুমকির মুখে ঠেলে দিচ্ছে৷

প্রতিবেদন: জান্নাতুল ফেরদৌস

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

সংশ্লিষ্ট বিষয়