1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

ভারতে এখন চলছে মেদহীন ফ্যাশনের হাওয়া

পশ্চিমের মডেলদের অনুকরণে বলিউডের বর্তমান অভিনেত্রীরা মেদ ঝরিয়ে শুকিয়ে যাচ্ছেন, আর এর প্রভাব পড়েছে ভারতের বিভিন্ন শহরে তাদের ফিল্মভক্ত অনুরাগীদের ওপরে৷

default

বলিউড তারকা কারিনা কাপুর (ফাইল ছবি)

সুন্দর ও আকর্ষণীয় শরীরের অধিকারী ছিলেন এক সময়কার দর্শক সফল নায়িকা মমতাজ ও জিনাত আমান৷ কিন্তু শরীরের বাঁকগুলো তাদের অভিনয় জীবনে সফলতা ও জনপ্রিয়তায় কখনও বাধা হয়েও দাঁড়ায়নি৷ আজকের বলিউড অভিনেত্রীরা নিয়মিত ডায়েট করে থাকেন৷ মেদ জমবার কোন সুযোগ তাঁরা রাখেননা৷ ফিট থাকতে হয় তাঁদের৷ দেহকে সুন্দর রাখতে হয়৷ পারদর্শিতা থাকতে হয় নাচে৷ এই সবকিছু মিলিয়েই তাঁদের জনপ্রিয়তা৷

মুম্বইয়ের ফিটনেস কনসালটেন্ট এবং পুষ্টিবিজ্ঞানী বেণু হিরানি বলেন, গত দশকে অনেক পরিবর্তন এসেছে৷ আর তা মডেলিং-এই হোক বা বলিউডে৷ হিরানি বলেন, এই পেশায় যারা প্রবেশ করতে চান তাদের হতে হবে জিরো সাইজ দেহের অধিকারিণী৷

২০০৮ সালে ‘তাসহান' ছবিতে বিকিনি পরে অভিনেত্রী কারিনা কাপুরের আবির্ভাব ব্যাপক সাড়া ফেলে৷ ২৯ বছর বয়সি এই অভিনেত্রী বলেন, তার বর্তমান ওজন মোটেও অস্বাস্থ্যকর নয়৷ বরং এই কম ওজন ধরে রাখতে পেরেছেন তিনি স্বাস্থ্যসম্মত খাবার খেয়ে, নিয়মিত শরীরচর্চা করে, যোগাভ্যাস করে৷

এদিকে, বিপাশা বসু ও শিল্পা শেঠী ফিটনেস এবং যোগব্যায়ামের ভিডিও বাজারে ছেড়েছেন৷ বলিউডের অন্যান্য অভিনেত্রীদের মধ্যে যেমন- প্রিয়াংকা চোপড়া ও দীপিকা পাড়ুকোন প্রায়ই তাদের শরীর ঠিক রাখার পেছনে খেলাধুলার প্রয়োজনীয়তাকেই বেশি গুরুত্ব দেন৷

স্বভাবতই কারিনা, বিপাশা বা শিল্পার মত অভিনেত্রীরা শরীরকে মেদশূণ্য রাখতে ব্যক্তিগত ডায়েট বিশেষজ্ঞ ও ফিটনেস ট্রেনারদের পরামর্শ নিয়ে থাকেন নিয়মিত৷ কিন্তু ভক্তদের তো আর সেই সুয়োগ নেই৷ তারা নায়িকাদের অনুকরণ করে যেনতেন প্রকারে ওজন কমাতে সচেষ্ট হয়৷ আর তার ফল হয় অনেক সময় মারাত্মক৷

হিরানী জানান, এখন তাঁর কাছে পরামর্শের জন্য এমন অনেকেই আসেন যাদের কিনা ওজন কমাবার কোন প্রয়োজনই নেই৷ অথচ এক দশক আগে মানুষ শুধুমাত্র মা হবার পর বাড়তি মেদ কিভাবে ঝরাবেন বা তাদের স্বাস্থ্যের অবস্থা কীরকম তা জানতে তার কাছে আসতেন৷ এখন বর্তমান প্রজন্মের যারা তাঁর কাছে আসছেন তারা জানতে চান কিভাবে তারা আরও পাঁচ কিলো ওজন কমাতে পারবেন৷ যদিও তা অপ্রয়োজনীয়৷

মুম্বইয়ের আরেক ডায়েটেশিয়ান ও কনসালটেন্ট রোশনি পিঠাওয়ালা বলেন, ভারতীয়রা কিভাবে তাদের শারীরিক কাঠামোকে দেখছে বদলে যাচ্ছে বলিউড, ইন্টারনেট ব্যবহারের সুযোগ, কেবেল টেলিভিশন এবং বিজ্ঞাপনের মধ্য দিয়ে৷

আগের কিছু গবেষণায় দেখা গেছে ভারতে অ্যানোরেক্সিয়া বুলিমিয়ার মত ইচ্ছে করে না খেয়ে থাকা বা প্রয়োজনের চেয়ে কম খেয়ে থাকা জনিত রোগ বাড়ছে৷

রোশনি পিঠাওয়ালা আরও বলেন, ২০০৭ সালের মে মাসে প্রকাশিত ভারতীয় শিশুবিশেষজ্ঞ জার্নালের তথ্য অনুযায়ী সামাজিক-অর্থনৈতিক সাংস্কৃতিক অবস্থার পরিবর্তন হচ্ছে এবং পশ্চিমা ধ্যান ধারণায় শুধু সংস্কৃতি নয় পরিবর্তনের হাওয়া লেগেছে খাদ্যাভ্যাসেও৷

তিনি আরও বলেন, ভক্তরা তাদের প্রিয় অভিনেতা-অভিনেত্রীদের দেখে অনুপ্রাণিত হয়৷ তবে, সুন্দর ঐ দৈহিক কাঠামোর পেছনে তারকারা ব্যয় করেন কোটি কোটি টাকা৷ তাদের অনুরাগীদের জন্য তা অবাস্তব এক লক্ষ্য৷

এমন কি কারিনা কাপুর নিজেও মনে করেন তাঁর নিজের জন্য যা সঠিক তা অন্যদের বেলায় খাটবে এমনটি ভাবা ঠিক নয়৷

প্রতিবেদক : আসফারা হক

সম্পাদনা : আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়