1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ভারতের মন জয় করে নিলেন ওবামা

সর্বস্তরের মানুষের মন জয় করে ভারত ছাড়লেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা৷ মঙ্গলবার সকাল ৯ টায় নতুনদিল্লি থেকে ইন্দোনেশিয়া রওনা হয়ে যান তিনি৷ তাঁর এই সফরের নীট ফলে সকলেই খুশি৷

default

এলেন, দেখলেন, (মন) জয় করলেন

সংসদে প্রেসিডেন্ট ওবামার ভাষণ শুনে কয়েকটি আন্তর্জাতিক বিষয় ছাড়া বাম সাংসদরা পর্যন্ত সমালোচনা করার সুযোগ পাননি৷ ভারত-মার্কিন সম্পর্কের প্রেক্ষাপটে ওবামার এই সফর যে অতি সফল এবিষয়ে দ্বিমত নেই৷ বিশেষ করে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে ভারতের স্থায়ী আসন পেতে ভারতীয় সংসদে ওবামা যেভাবে সমর্থনের কথা বলেছেন দলমত নির্বিশেষে সব সাংসদই সেটাকে স্বাগত জানান৷ তাঁরা বলেন, ওবামা সফরের এটা একটা মাইলফলক৷ শীর্ষ বিজেপি নেতা এল.কে আডবানি বলেছেন,ওবামা ভারতের প্রত্যাশা পূরণ করেছেন৷ বিজেপি সংসদীয় নেত্রী সুষমা স্বরাজের মন্তব্য, ওবামার বক্তব্যে পাকিস্তান ও সন্ত্রাসকে স্থান দিয়ে তিনি ভারতের উদ্বেগের কথাই তুলে ধরেছেন৷ বাম দলগুলিও সমালোচনা করার সুযোগ পায়নি৷

Barack und Michelle Obama am Denkmal für die die Opfer der terroristischen Angriffe vom November 2008

এযাবৎ কোনো দেশে এটাই ছিল ওবামার দীর্ঘতম সফর

কাশ্মীর প্রসঙ্গে ওবামার বক্তব্যে জম্মু-কাশ্মীরের মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লা বলেন, কাশ্মীরের বিচ্ছিন্নতাবাদীদের এবং পাকিস্তানের উচিত কাশ্মীর ইস্যুর সমাধানের জন্য এখন আত্মসমীক্ষা করা৷ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মুখ চেয়ে বসে থাকার দিন শেষ৷ তবে একথাও তিনি বলেন,যুক্তরাষ্ট্র মধ্যস্থতা না করলেও আলোচনার জমি তৈরিতে পরোক্ষ প্রভাব খাটাতে পারে যাতে সমাধান সব পক্ষের গ্রহণযোগ্য হয়৷ এমনকি কট্টর হুরিয়াত নেতা সৈঈদ আলি শাহ গিলানিও ওবামার বক্তব্যে খুশি৷ তিনি মনে করেন, তাঁদের মতই ওবামা কাশ্মীরকে বলেছেন পুরানো অমিমাংসীত বিবাদ৷ ওবামা কাশ্মীর নিয়ে পাকিস্তানের সঙ্গে আলোচনার কথা বলায় মধ্যপন্থী হুরিয়াত নেতা মীরওয়াইজ ফারুক খুশি৷ তবে তাঁর মতে,অ্যামেরিকা ভারতের আপত্তিতে মধ্যস্থতা না করলেও পরোক্ষ ভূমিকা পালন করতে পারে৷ কাশ্মীরী যুব সমাজের একাংশ রাজ্যে দীর্ঘ অচলাবস্থার অবসানে ওবামা কোন আলো দেখাতে না পারায় হতাশ৷

Obama in Indien

সস্ত্রীক ওবামা ভারতের মানুষের মনও জয় করার চেষ্টা করেছেন

বিশিষ্ট রাজনৈতিক বিশ্লেষক অমূল্য গাঙ্গুলি ডয়েচে ভেলেকে ওবামার সফর সম্পর্কে তাঁর মূল্যায়নে বলেন, প্রধান লাভ হলো জাতিসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদে ভারতের স্থায়ী সদস্যপদে ভারতকে জোরালো সমর্থন দেয়া৷এটা প্রত্যাশার বাইরে ছিল৷ কারণ সফরে আসার আগে ওবামা বলেছিলেন, বিষয়টি খুব জটিল৷ডেমোক্র্যাটদের নীতি সাধারণত ভারতকে একটু দাবিয়ে রাখা৷ হঠাৎ তা পাল্টে যাওয়টা বেশ অপ্রত্যাশিত৷ চীনের ভিটো দেবার সম্ভাবনা সম্পর্কে তিনি বলেন, সেই সম্ভাবনা আছে, কিন্তু পাঁচ বৃহৎ শক্তির মধ্যে চারজন চাইছে ভারতের সদস্যপদ৷এটাই সবথেকে বড় সাফল্য ভারত-মার্কিন সম্পর্কে৷এতে দেশে মনমোহন সিং-এর হাত শক্ত হবে, সন্দেহ নেই৷ পাকিস্তানও একটু কোণঠাসা হয়ে পড়বে৷ এতে পাকিস্তান আরো চীন-ঘেঁষা হতে পারে৷ ভারতের বিরুদ্ধে ভিটো দিতে বা পরমাণু চুক্তি করতে চীনকে ব্যবহার করতে পারে৷ অমূল্য গাঙ্গুলি মনে করেন, যুক্তরাষ্ট্র বুঝতে পেরেছে পাকিস্তানের তুলনায় ভারত অংশীদার হিসেবে অনেক বেশি নির্ভরযোগ্য৷

প্রতিবেদন: অনিল চট্টোপাধ্যায়, নতুনদিল্লি
সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়