1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ভারতের বিতর্কিত টেলিকমমন্ত্রী ইস্তফা দিতে নারাজ

কয়েক হাজার কোটি টাকার টেলিকম দুর্নীতিতে অভিযুক্ত শরিক দলের মন্ত্রী এ. রাজাকে নিয়ে মনমোহন সিং সরকার জেরবার৷ তাঁকে সরানোর দাবিতে সোচ্চার গোটা বিরোধী পক্ষ৷

default

সৌল থেকে ফিরেই পরিস্থিতি সামলাতে হবে মনমোহন সিং’কে

বিরোধীদের অভিযোগের হাতিয়ার, কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেলের রিপোর্ট৷

বিরোধীদের দাবি নস্যাৎ করে টেলিকম মন্ত্রী শরিক দলের এ.রাজা বলেন, টু-জি স্পেকট্রাম বন্টনে কোন দুর্নীতি করা হয়নি, নিয়ম মেনেই তা করা হয়েছে৷ কাজেই তাঁর ইস্তফা দেবার প্রশ্ন ওঠেনা৷ টেলিকম বিভাগ বন্টনের বিষয়ে আদালতে তিনি হলফনামা দিয়েছেন, বিষয়টি আদালতের বিচারাধীন৷ কাজেই বিস্তারিত কিছু বলা যাবেনা৷

এ.রাজার ডিএমকে দলের প্রধান করুণানিধি মন্ত্রীর পক্ষে জোরালো সওয়াল করে বলেছেন, রাজার পদত্যাগের কোন কারণ নেই৷ ২০০৮ সালে টু-জি স্পেকট্রাম বন্টনে রাজা তাঁর পূর্বসূরি বিজেপি মন্ত্রীদের নিয়মই অনুসরণ করেছেন৷ তাহলে দোষটা কোথায়? গোটা বিরোধী পক্ষ এবং অন্যান্যরা হাতিয়ার করেছে সরকারের কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেলের রিপোর্টকে৷ রিপোর্ট সরকারের কাছে পেশ করার আগেই ফাঁস হয়ে যায়৷ মূলত তার ভিত্তিতে বিরোধীদের অভিযোগ, টেলিকম মন্ত্রী টু-জি স্পেকট্রামের লাইসেন্স নিলাম না করে বন্টন করেছেন নির্বাচিত কিছু কোম্পানিকে বাজার দামের চেয়ে কম দামে৷ নিলাম করলে সরকারের কোষাগারে আসতো অনেক বেশি টাকা৷ বন্টন করা হয়েছে এমন অনেক কোম্পানিকে যারা এই ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত নয়৷ তাই পরে সেইসব কোম্পানি বেশি টাকায় তা বিক্রি করে দেয় অন্যদের৷ উদাহরণ, থ্রি-জি স্পেকট্রাম নিলাম করে সরকার যেখানে পায় ৬৮ হাজার কোটি টাকা সেখানে টু-জি স্পেকট্রাম বন্টন করে পায় মাত্র ১০ হাজার কোটি টাকা৷

Indisches Parlament (innen)

সংসদে বিরোধীরা সরকারকে চেপে ধরার সুযোগ পাচ্ছে

এই অবস্থায় কংগ্রেস পড়েছে উভয় সঙ্কটে৷ এ.রাজাকে সরালে সরকারের ওপর থেকে সমর্থন তুলে নেবে বলেছে ডিএমকে দল৷ না সরালে সরকারের বিশেষ করে প্রধানমন্ত্রীর ভাবমূর্তি হবে কলঙ্কিত৷ সঙ্কটমোচনে আসরে নেমেছেন প্রণব মুখোপাধ্যায়৷ মধ্যপন্থায় রাজার পরিবর্তে দলের অন্য কাউকে ঐ পদ দিতে চেয়ে ডিএমকে প্রধান করুণানিধিকে তিনি অনুরোধ করেন৷ তিনি তা মানতে অস্বীকার করেন৷ এখন এর ফয়সালা আদালতের হাতে এবং প্রধানমন্ত্রী সৌল থেকে ফিরে এলে৷

তামিলনাড়ু রাজনীতিতে ডিএমকে দলের বিরোধী এআইএডিএমকে দলের প্রধান জয়ললিতা এগিয়ে এসেছেন সরকারের সমর্থনে৷ বলেছেন, ডিএমকে চলে গেলে তাঁর দল কংগ্রেস-জোট সরকারকে সমর্থন করবে৷ পাল্টা চালে ডিএমকে বলেছে, সমর্থন তুলে নিলেও জয়ললিতার দলকে আটকাতে তারা বাইরে থেকে সমর্থন দেবে সরকারকে৷

প্রতিবেদন: অনিল চট্টোপাধ্যায়, নতুনদিল্লি
সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়