1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ভারতের ‘না’ ভোট এবার চাই বাংলাদেশেও

ভারতের লোকসভা নির্বাচনে ‘না’ ভোটের বিধান নিয়ে বাংলাদেশে চলছে তুমুল আলোচনা৷ ভারতে প্রথমবারের মতো তা চালু হওয়ায়, বাংলাদেশে আবারো ‘না’ ভোটের বিধান চালুর দাবি করেছেন সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা৷

বাংলাদেশে ২০০৮ সালের সাধারণ নির্বাচনে ব্যালট পেপারে ‘না' ভোট দেয়ার সুযোগ ছিল৷ ড. ফখরুদ্দিন আহমেদের নেতৃত্বাধীন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় নির্বাচনি আইন সংশোধন করে ‘না' ভোটের বিধান চালু করা হয়৷ তবে সেই নির্বাচনে জয়ী হয়ে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে নির্বাচনি আইন সংশোধন করে ‘না' ভোটের বিধান বাতিল করা হয়৷ কিন্তু বুধবার ভারতের লোকসভা নির্বানের তফসিল ঘোষণা এবং

Indien Parlamentswahlen 2014

বিশ্বের ১৪তম দেশ হিসেবে ‘না' ভোটের বিধান চালু করেছে ভারত

প্রথমবারের মতো সেখানকার নির্বাচনে ‘না' ভোটের বিধান চালু হওয়ায়, তা বাংলাদেশেও ব্যাপকভাবে আলোচিত হচ্ছে৷

সুশাসনের জন্য নাগরিক বা সুজন-এর সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার ডয়চে ভেলেকে বলেন, বাংলাদেশে যে ‘না' ভোটের বিধান করা হয়েছিল, তা ছিল ভোটারদের গণতান্ত্রিক অধিকার৷ পরে সরকার ‘না' ভোটের বিধান তুলে দিয়েছে, যা দুঃখজনক৷ এটা ভোটারদের অধিকার ক্ষুণ্ণ করেছে৷ কারণ ভোটারের কোনো প্রার্থী পছন্দ না হলে তা জানানোর সুযোগ এখন আর নেই৷ তিনি বলেন, প্রতিবেশী দেশ ভারত ‘না' ভোটের বিধান চালু করায় বাংলাদেশের পুনরায় এটা চালুর দাবি প্রশস্ত হলো৷ বাংলাদেশ ‘না' ভোটের বিধান চালু করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছিল৷ আবারো সেই দৃষ্টান্ত ফিরিয়ে আনতে হবে৷

এ ব্যাপারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ড. ইমতিয়াজ আহমেদ ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘না' ভোট গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাকে শক্তিশালী করে৷

এবারের লোকসভা নির্বাচনে ভারত এ নিয়মটি চালু করে সেদেশের ভোটারদের গণতান্ত্রিক অধিকার আরো সংহত করল৷ আর আমাদের দেশের রাজনীতিবিদরা সম্ভবত ‘না' ভোটকে ভয় পান৷ তাই চালু করেও তা বাতিল করা হয়েছে৷

তিনি বলেন, ভারতের এই উদ্যোগ বাংলাদেশের জন্যও ইতিবাচক৷ বাংলাদেশের নির্বাচন কমিশন চাইলে এখন নিজোরাই ভারতের উদাহরণ দেখিয়ে ‘না' ভোটের বিধান ফিরিয়ে আনতে পারে৷ এছাড়া সুশীল সমাজসহ সবাই এর জন্য জোড়াল দাবি তুলতে পারে৷

উল্লেখ্য, ভারত হলো বিশ্বের ১৪তম দেশ যারা ব্যালট পেপারে ‘না' ভোটের বিধান চালু করেছে৷ ভারত ছাড়াও ফ্রান্স, বেলজিয়াম, ব্রাজিল, গ্রিস, ইউক্রেন, চিলি, স্টেট অফ নেভাডা, ফিনল্যান্ড, যুক্তরাষ্ট্র, কলম্বিয়া, স্পেন এবং সুইডেনে নির্বাচনে ‘না' ভোট দেয়ার সুযোগ আছে৷ আর বাংলাদেশই একমাত্র দেশ যারা ‘না' ভোটের বিধান চালু করে পরে তা বাতিল করেছে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন