1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ভারত

ভারতের কাছে ডোনাল্ড ট্রাম্পের জয় কতটা কাঙ্খিত?

ডোনাল্ড ট্রাম্প মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ায় ভারতের বিভিন্ন মহলে চলছে জোর বিচার-বিশ্লেষণ৷ তবে যুক্তরাষ্ট্রের সামগ্রিক ভারত নীতিতে কোনো নাটকীয় পরিবর্তনের সম্ভাবনা দেখছেন না কেউ৷

হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর শেষ পর্যন্ত হোয়াইট হাউসের মসনদে বসলেন রিপাবলিকান দলের ডোনাল্ড ট্রাম্প৷ গোটা বিশ্বের সঙ্গে ভারতেও নতুন মার্কিন প্রেসিডেন্টের মূল্যায়ন এবং ভারতের ওপর তার প্রভাব নিয়ে হিসেব-নিকেশ শুরু হয়েছে৷ সকলেই বলছেন, প্রেসিডেন্ট পদে ট্রাম্পের নির্বাচন এই মূহূর্তে ভারতের পক্ষে ইতিবাচক হবে নাকি নেতিবাচক হবে, তা বলার সময় আসেনি৷ অর্থাৎ বর্তমান আন্তর্জাতিক পরিস্থিতির প্রেক্ষিতে ভারত-মার্কিন দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের গতিপথ অপরিবর্তিত থাকবে বলেই মনে হয়৷ মার্কিন পররাষ্ট্রনীতির একটা ছক আছে, সেটা থেকে বেরিয়ে আসা সম্ভব হবে না৷

বিশিষ্ট রাষ্ট্রবিজ্ঞানী অধ্যাপক উদয়ন বন্দোপাধ্যায় ডয়চে ভেলের সঙ্গে কথা প্রসঙ্গে বললেন, ‘‘ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাচনি ভাষণ থেকে কোনো সূত্র বের করা মুশকিল৷ কারণ তাঁর মতিগতি বোঝা দায়৷ ডেমোক্র্যাটিক দলের হিলারি ক্লিন্টনের দৃষ্টিভঙ্গি বা নীতি সম্পর্কে আমরা একটা ধারণা করতে পারি, কিন্তু ট্রাম্প কী করতে পারেন আর পারেন না – সে বিষয়ে পূর্ব-ধারণা করা এখনি সম্ভব নয়৷''

নির্বাচনি ভাষণে ট্রাম্প হিন্দু ভোট সুসংবদ্ধ করার কথা বলেছিলেন৷ হিন্দু বলতে তিনি স্বাভাবিকভাবেই ভারতকে বুঝিয়েছেন৷ পরমাণু সরঞ্জাম সরবরাহকারী দেশগোষ্ঠী বা এনএসজিতে ভারতের অন্তর্ভুক্তির জন্য ওবামা চেষ্টা করেছিলেন৷ কিন্তু জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্য দেশ চীনের বিরোধিতায় তা আটকে আছে৷ ট্রাম্পও এ বিষয়ে চীনকে রাজি করাতে প্রাণ ঢেলে দেবেন বলে মনে হয় না৷

বরং তিনি মার্কিন পররাষ্ট্রনীতিতে ভারত ও চীনকে একই বন্ধনিতে রাখতে চাইবেন, অর্থনৈতিক, বাণিজ্যিক ও অন্যান্য কারণে৷ তাছাড়া যুক্তরাষ্ট্রে কর্মসংস্থান বাড়াতে ট্রাম্প ‘আউটসোর্সিং'-এর বিরোধী৷ অথচ ভারতীয় তথ্য-প্রযুক্তি সংস্থাগুলি তো এর দৌলতেই দাঁড়িয়ে আছে? এ প্রশ্নের উত্তরে রাষ্ট্রবিজ্ঞানী উদয়ন বন্দোপাধ্যায় বলেন, ‘‘এটা নতুন কথা নয়৷ ওবামাও একসময় এ কথাই বলেছিলেন৷ কিন্তু মার্কিন কোম্পানিগুলি কম পয়সায় ভারতের দক্ষ তথ্য-প্রযুক্তি কর্মী হাতছাড়া করতে চাইবে না সহজে৷'' মোদ্দা কথা, ট্রাম্প আপাতদৃষ্টিতে ভারতবিদ্বেষী নন, এমনটাই মনে করেন তিনি৷

ওদিকে প্রবীণ রাষ্ট্রবিজ্ঞানী ড. অমল মুখোপাধ্যায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট পদে ডোনাল্ড ট্রাম্পের নির্বাচনে দেখছেন অশনিসংকেত৷ এক সাক্ষাত্কারে ডয়চে ভেলেকে সোজাসাপটা ভাষায় তিনি বলেন, ‘‘ট্রাম্পের জয় উগ্র মার্কিন জাতীয়তাবাদেরই প্রমাণ, যা সাম্প্রতিককালের ইতিহাসে বেনজির৷ দ্বিতীয়ত, যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি যা হওয়া উচিত ছিল, তা না হওয়ায় অভিবাসী এবং বহিরাগত নীতিতে পরিবর্তন অবশ্যম্ভাবী বলে আমি মনে করি৷ সবথেকে দুশ্চিন্তার কথা ট্রাম্পের দৃষ্টিভঙ্গি যুদ্ধমুখী৷ অ্যামেরিকাকে বিশ্বের সামনে বড় করে তুলে ধরার চেষ্টা করতে পারেন তিনি৷

আর সেদিক থেকে তিনি হতে পারেন বিশ্বশান্তির পক্ষে বিপজ্জনক৷'' ডয়চে ভেলেকে এমনটাই বলেন ড. মুখোপাধ্যায়৷ তিনি জানান, এই মুহূর্তে শেষকথা বলা যায় না৷ তবে অভ্যন্তরীণ ক্ষেত্রে নিজের প্রতিষ্ঠা কায়েম রাখতে ট্রাম্প যতটা মরিয়া, তাতে আউটসোর্সিং এবং অভিবাসীদের ওপর কোপ পড়তে পারে৷ বলা বাহুল্য, এতে ভারতের স্বার্থ বিপন্ন হবে৷ আর তখন ভারত-মার্কিন সম্পর্ক পড়বে চাপের মুখে৷

বিষয়টি নিয়ে ভিন্নমত পোষণ করেন আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক অধ্যাপক অনিন্দ্য জ্যোতি মজুমদার৷ ডয়চে ভেলেকে তিনি বলেন, ‘‘দেখুন ব্যক্তিবিশেষের জন্য জাতীয় নীতির কোনো গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন হবে বলে মনে হয় না৷ কোনো ব্যক্তিবিশেষ ক্ষমতায় এলে রাজনৈতিক সমীকরণে খুব হেরফের হয় না৷ কারণ নির্বাচনে জেতা এক জিনিস আর দেশ চালানো অন্য জিনিস৷ নির্বাচনে সবাই কিছু বাগাড়ম্বর করেই থাকে৷ সেটা ধরা হয় না৷ তাই ট্রাম্পকে ইতিমধ্যেই বলতে শোনা গেছে যে, তিনি সব অ্যামেরিকাবাসীর প্রেসিডেন্ট৷ কোনো দল বা গোষ্ঠীর নয়৷ জাতীয় স্বার্থে ভারতের বাজার ধরে রাখা এবং বাণিজ্যিক বা কর্পোরেট স্বার্থ বজায় রাখা ট্রাম্পের পক্ষে জরুরি৷ আন্তর্জাতিক রাজনীতির প্রেক্ষিতে ভারত-মার্কিন সহযোগিতার পরিসর যেভাবে বিস্তীর্ণ হচ্ছে, সেই সুবাদে প্রথম কিছুদিন হয়ত একটা অনিশ্চয়তা থাকবে৷ তবে পরে সেটা কেটে যাবে এবং পুরানো সম্পর্ক ফিরে আসবে৷ এছাড়া আউটসোর্সিং সম্পর্কে নির্বাচনি প্রচারে ট্রাম্প যা বলেছিলেন, তা বাস্তবায়িত করা ট্রাম্পের পক্ষে কঠিন হবে কর্পোরেট মহলের চাপে৷ ডয়চে ভেলেকে এমনটাই বললেন আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ক অধ্যাপক অনিন্দ্য মজুমদার৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়