1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ভাঙছে না মন্ত্রিসভা, হচ্ছে পুনর্গঠিত

নির্বাচনকালীন সর্বদলীয় সরকার গঠনের জন্য বাংলাদেশের মন্ত্রিসভার সদস্যরা সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে পদত্যাগ-পত্র জমা দেন৷ এর মধ্যে যাঁরা সর্বদলীয় সরকারের মন্ত্রিসভায় থাকবেন না, তাঁদের পদত্যাগ-পত্র গ্রহণ করা হবে৷

সোমবার সচিবালয়ে বর্তমান সরকারের মন্ত্রিসভার শেষ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে৷ বৈঠক শেষে সেখানেই বর্তমান সরকারের মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে পদত্যাগ-পত্র জমা দেন৷ ৫২ সদস্যের মন্ত্রিসভার একমাত্র প্রধানমন্ত্রী ছাড়া সব সদস্যই পদত্যাগ-পত্র জমা দেন৷ মন্ত্রিপরিষদের সচিব মোশাররফ হোসেন ভুঁইঞা জানান, এঁদের মধ্যে যাঁরা নির্বাচনকালীন সর্বদলীয় সরকারে থাকবেন না তাঁদের পদত্যাগ-পত্র গ্রহণ করবেন প্রধানমন্ত্রী৷ আর যাঁরা সর্বদলীয় সরকারের থাকবেন তাঁদের পদত্যাগ-পত্র গ্রহণ করা হবে না৷ তিনি জানান, নতুন এই মন্ত্রিসভায় যাঁরা নতুন করে অন্তর্ভুক্ত হবেন তাঁদের শপথ নিতে হবে৷ সর্বদলীয় সরকারের মন্ত্রিসভায় কতজন সদস্য থাকবেন, তা না জানালেও এর আকার ছোট হবে বলে জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব৷

Bangladeshi police officials stand guard on a street during a general strike in Dhaka, Bangladesh, Monday, Oct. 28, 2013. At least 13 people have died since Friday in violence as the government of Prime Minister Sheikh Hasina and an 18-party alliance led by opposition leader Khaleda Zia disagree over forming a caretaker government. The opposition began the three-day general strike on Sunday to force the government to quit and form an independent government to oversee an election due by early next year. (AP Photo/A.M. Ahad)

হরতাল চলছে, রয়েছে কড়া পাহারাও...

এদিকে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেন, প্রধান বিরোধী দল বিএনপি সর্বদলীয় সরকারে অংশ না নিলে সর্বদলীয় সরকারে কিছুটা ত্রুটি থেকে যাবে৷ তবে সরকার আশা করছে যে, তাদের সঙ্গে সংলাপের মাধ্যমে পরিস্থিতির উন্নতি হবে এবং তারা সর্বদলীয় সরকার এবং নির্বাচনে অংশ নেবে৷ তিনি জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৪ই নভেম্বর শ্রীলঙ্কা সফরে যাবেন৷ সেখান থেকে ফিরে আসার পর তিনি সর্বদলীয় সরকার গঠনের কাজ শুরু হবে৷ তবে সর্বদলীয় সরকার গঠনের আগ পর্যন্ত পদত্যাগ-পত্র জমা দেয়া এই মন্ত্রীরাই দায়িত্ব পালন করে যাবেন৷ একমাত্র জামায়াতে ইসলামী ছাড়া জাতীয় সংসদে যে সব দলের আসন আছে, সেই সব দলের সংসদ সদস্যদের নিয়েই সর্বদলীয় সরকার গঠন হবে৷ এই সরকার নির্বাচনকালীন সরকার হিসেবে দায়িত্ব পালন করবে৷



মন্ত্রীদের পদত্যাগ-পত্র জমা দেয়ার প্রতিক্রিয়ায় বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রহুল কবীর রিজভী বলেন, জাতি এখন প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের জন্য উন্মুখ হয়ে আছে৷ প্রধানমন্ত্রী যদি পদত্যাগ করতেন, তাহলে একটি ইতিবাচক অবস্থার সৃষ্টি হতো৷ কিন্তু প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগ না করে মন্ত্রীদের পদত্যাগের মানে হলো সরকার একদলীয় নির্বাচনের নীলনক্সা বাস্তবায়নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে৷ সরকার চায় বিএনপিকে বাইরে রেখে একতরফা নির্বাচন করে ক্ষমতা ধরে রাখতে৷ কিন্তু সরকারের সে চেষ্টা সফল হবে না বলে মনে করেন রিজভী৷

অন্যদিকে বিকল্প ধারা বাংলাদেশের চেয়ারম্যান ডা. বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী যদি নির্বাচনের ব্যাপারে আন্তরিক হন তাহলে তাঁর পদত্যাগ করা উচিত৷

প্রসঙ্গত, আনোয়ার হোসেন মঞ্জুর নেতৃত্বাধীন জাতীয় পর্টি (জেপি) সর্বদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন