1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘ভলভো’-কে কিনে নিল চীনা কোম্পানি ‘গিলি’

মার্কিনিদের কাছ থেকে সুইডিশ মোটরগাড়ি ব্যান্ড ‘ভলভো’র মালিকানা চলে গেল চীনাদের হাতে৷ রোববার স্বাক্ষরিত এক চুক্তিতে চীনা মোটরগাড়ি কোম্পানি ‘গিলি’ ১ দশমিক ৮ বিলিয়ন ডলারে দীর্ঘদিন ধরে লোকসানে থাকা ‘ভলভো’-কে কিনে নেয়৷

default

চীনা কোম্পানি ‘গিলি’ এবং মার্কিন মালিকানাধীন সুইডিশ ব্র্যান্ড ‘ভলভো’ এর লোগো

ভলভো'র এই মালিকানা বদলকে বিবেচনা করা হচ্ছে বিশ্বের মোটরগাড়ি শিল্পের মানচিত্রে বড় ধরণের পরিবর্তনের এক মাইলফলক হিসেবে৷ ইউরোপ এবং উত্তর অ্যামেরিকার মোটর শিল্প খাত গত এক দশকেরও বেশি সময় ধরে যে অস্থিতিশীলতায় ভুগছিল, এটা তার সর্বশেষ এবং সবচেয়ে বড় দৃষ্টান্ত৷

১৯৯৯ সালে সাড়ে ছয় বিলিয়ন ডলারের বিনিময়ে সুইডিশ কোম্পানি ভলভো'র মালিকানা কিনে নিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্রের মোটর জায়েন্ট ‘ফোর্ড মোটর কোম্পানি'৷ কিন্তু, মন্দায় আক্রান্ত অর্থনীতির মধ্যে মার্কিনিরাও এই ‘হাই-টেক' সুইডিশ গাড়ির মালিকানা ধরে রাখতে পারল না৷ অবশ্য ২০০৮ সালেই ভলভো-কে বিক্রি করে দেওয়ার ঘোষণা দেয় ফোর্ড৷ গিলি'র এই ভলভো কিনে নেওয়ার চুক্তিই কোনো চীনা কোম্পানির ইউরোপের কোনো ‘হাই-টেক' ব্র্যান্ড কিনে নেওয়ার প্রথম এবং সবচেয়ে বড় ঘটনা৷

Bildgalerie Detroit Motor Show 2007 Volvo

ডেট্রয়েট মোটর শো-তে ভলভো গাড়ি৷ বহু বছর ধরেই বিশ্বে একটি বিলাসবহুল দামি ব্র্যান্ড হিসেবে জনপ্রিয় সুইডিশ ব্যান্ড ভলভো৷

ঐতিহ্যবাহী এই ব্র্যান্ডটির মালিকানা যুক্তরাষ্ট্রের হাতে চলে যাওয়ার সময় সুইডিশদেরকে এতোটা বিমর্ষ হতে দেখা না গেলেও, পশ্চিম থেকে প্রাচ্যে মালিকানার হাতবদল সহজভাবে মেনে নিতে পারছে না তারা৷ সোমবার সুইডেনের প্রায় সব বড় দৈনিকের সম্পাদকীয় দেখলেই সেটা স্পষ্ট বোঝা যাবে৷ এর আগে ব্রিটেনের ‘জাগুয়ার' এবং ‘ল্যান্ড রোভার' এর মালিকানা ভারতের ‘টাটা মোটর্স' এর কাছে চলে যাওয়ার সময়ে ঠিক যেমনটা দেখা গিয়েছিল৷

‘ডেগেন্স নাইহেটার' পত্রিকায় অর্থবিষয়ক সংবাদ ভাষ্যকার প্যাট্রিসিয়া হেডেলিউস লিখেছেন, ‘‘শিল্প জগতের ইতিহাসে একটি নতুন অধ্যায় লিখিত হল গোথেনবার্গে৷'' সুইডেনের দক্ষিণপশ্চিমাঞ্চলের এই শহরেই ভলভো'র সদর দপ্তর অবস্থিতি এবং এখানেই রোববার মালিকানা বদলের চুক্তি স্বাক্ষর হয়৷

ভলভো'র নতুন চীনা মালিকরা অবশ্য জানিয়েছেন, দীর্ঘ এবং সমৃদ্ধ ঐতিহ্য রক্ষা করে গাড়ি কোম্পানিটির সদর দপ্তর সুইডেনের গোথেনবার্গেই রাখা হবে৷ এছাড়াও সুইডেন এবং বেলজিয়ামে ভলভো'র কারখানাও স্থানান্তর করা হবে না বলে প্রাথমিকভাবে জানিয়েছে তারা৷

গিলি'র চেয়ারম্যান লি শুফু বলেছেন, ‘‘আজকের দিনটি গিলির জন্য একটা মাইলফলক৷'' ১৯৮৬ সালে প্রতিষ্ঠিত এই চীনা কোম্পানিটি এখন দেশটির সবচেয়ে বড় বেসরকারি গাড়ি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান৷ রেফ্রিজারেটরের যন্ত্রাংশ সরবরাহের কাজ নিয়ে যাত্রা শুরু করেছিল মোটর কোম্পানি গিলি৷ এখন সব মিলিয়ে গিলি‘র কর্মী সংখ্যা প্রায় ১২,০০০৷ আর গিলি বছরে তৈরি করছে প্রায় ৩ লাখ গাড়ি৷

প্রতিবেদক : মুনীর উদ্দিন আহমেদ

সম্পাদনা : দেবারতি গুহ

সংশ্লিষ্ট বিষয়