1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ব্লগারদের প্রিয় প্ল্যাটফর্মের দশ বছর

ব্লগারদের কাছে একটি অতিপরিচিত নাম ‘ওয়ার্ডপ্রেস’৷ বিশ্বের অধিকাংশ দেশের ব্লগাররা তাদের লেখালেখির জন্য ব্যবহার করেন এই ওপেনসোর্স প্ল্যাটফর্মটি৷ ২০০৩ সালের ২৭ মে যাত্রা শুরু করে ওয়ার্ডপ্রেস৷

© Picture-Factory - Fotolia.com #47484679 - junge frau arbeitet entspannt am laptop © Picture-Factory

Symbolbild Fernstudium

গত এপ্রিল অবধি হিসেব অনুযায়ী, ওয়ার্ডপ্রেসের ৩.৫ তম সংস্করনটি ডাউনলোড হয়েছে ১৮ মিলিয়ন বার৷ এই হিসেব খুব সহজেই ওয়ার্ডপ্রেসের জনপ্রিয়তা জানান দিচ্ছে৷ কার্যত বিনা খরচায় ব্যবহার করা যায় এই ব্লগ সিস্টেম৷ তবে চাইলে এটি ডাউনলোড করে আলাদাভাবে হোস্ট করাও সম্ভব৷

উইকিপিডিয়াতে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, গোটা বিশ্বে ৬০ মিলিয়নের বেশি ওয়েবসাইট তৈরি করা হয়েছে ওয়ার্ডপ্রেস ইঞ্জিন ব্যবহার করে৷ অ্যালেক্সার বিবেচনায় বিশ্বের সেরা এক মিলিয়ন ওয়েবসাইটের ১৪.৭ শতাংশ ওয়ার্ডপ্রেস প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে তৈরি৷ সিএনএন ডটকম এবং টেকক্রাঞ্চ এর মতো কোম্পানির ব্লগসাইটগুলো এই প্ল্যাটফর্মেই তৈরি৷

অনেক বাংলা ব্লগারও ইন্টারনেটে লেখালেখির জন্য ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করেন৷ খুব সহজে ব্যবহার করা যায় বলে এই সিস্টেমের চাহিদাও ব্যাপক৷ সম্প্রতি ওয়ার্ডপ্রেসের পেছনে বড় অঙ্কের বিনিয়োগের কথা জানিয়েছে টাইগার গ্লোবাল৷ গত শুক্রবার ওয়ার্ডপ্রেস ডটকম এর নিয়ন্ত্রক প্রতিষ্ঠান অটোম্যাট জানিয়েছে, টাইগার গ্লোবাল প্রতিষ্ঠানটিতে ৫০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করবে৷

এখানে উল্লেখ করা যেতে পারে, মাত্র কয়েকদিন আগে ১.১ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বিনিময়ে ব্লগিং কোম্পানি টাম্বলার কিনে নিয়ে ইয়াহু৷ ইয়াহুর এই বিনিয়োগের খবর প্রযুক্তি দুনিয়ায় সাড়া জাগায়৷ এরপরই ওয়ার্ডপ্রেসের পেছনে বিনিয়োগের খবর জানা গেলো৷ তবে এই বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানায়নি প্রতিষ্ঠানটি৷

টাম্বলার থেকে অর্থ আয়ের উৎস মূলত বিজ্ঞাপন৷ আর ওয়ার্ডপ্রেস বিভিন্ন সেবা বিক্রি করে অর্থ আয় করে থাকে৷ দুটো প্ল্যাটফর্মই বেশ দ্রুত বাড়ছে৷ মাত্র পাঁচ বছর আগে ওয়ার্ডপ্রেসের ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছিল ৪ মিলিয়ন৷ বর্তমানে এই সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫০ মিলিয়নে৷ অন্যদিকে, পাঁচ বছর আগে প্রতিষ্ঠিত টাম্বলার নেটওয়ার্কে বর্তমানে ১০০ মিলিয়নের বেশি ব্লগ রয়েছে৷

এআই/ডিজি (রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন