1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ব্রেগা শহর দখল, মিসরাটায় সরকারি বাহিনীর হামলা

লিবীয় নেতা মুয়াম্মার গাদ্দাফির উপর আন্তর্জাতিক চাপ বাড়ানোর পথে এক ধাপ এগিয়েছে বিশ্ব সম্প্রদায়৷ তবে যুদ্ধ পরিস্থিতি এখনও গাদ্দাফির অনুগত সরকারি বাহিনীর পক্ষে৷ রবিবার ব্রেগা শহর থেকে বিদ্রোহীরা পিছু হটেছে বলে খবরে প্রকাশ৷

Libyan, rebel, anti aircraft, weapon, Brega, Libya, ব্রেগা, শহর, দখল, মিসরাটা, সরকারি, বাহিনী, হামলা

ফাইল ছবি

আরব লিগের বৈঠকের পর বিশ্ব সম্প্রদায়ের অবস্থান

জাতিসংঘ, ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং সামরিক জোট ন্যাটো লিবিয়ায় সহিংসতা বন্ধে এবং সংকট সমাধানে আকাশসীমায় নিষেধাজ্ঞা আরোপের পক্ষে একমত না হলেও আরব লিগ এক্ষেত্রে ঐকমত্যে পৌঁছেছে৷ আরব লিগ নেতারা লিবিয়ার আকাশ সীমায় নিষেধাজ্ঞা আরোপের জন্য জাতিসংঘের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন৷ তবে এক্ষেত্রে কোন সুস্পষ্ট পদক্ষেপ এখনও বহুদূরে বলেই বিশ্লেষকরা মনে করছেন৷ অবশ্য আরব লিগের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ক্যানাডা৷ কিন্তু চীনের অবস্থান আবার ভিন্ন৷ বেইজিং বলছে মধ্যপ্রাচ্যের সংকট সমাধানে সেখানকার দেশগুলো নিজেরাই পদক্ষেপ গ্রহণ করুক৷ বাইরে থেকে তাদের সংকটে হস্তক্ষেপ করা ঠিক হবে না৷

জি-৮ বৈঠক নিয়ে জল্পনা কল্পনা

ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিসে সোমবার থেকে শুরু হচ্ছে বিশ্বের আট শক্তিধর দেশের জোট জি ৮ বৈঠক৷ ফলে এসব দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রীদের বৈঠকে কী সিদ্ধান্ত হয় সেদিকেই এখন দৃষ্টি লিবিয়ার বিরোধী শিবিরসহ গোটা বিশ্বের৷ কারণ, মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রী হিলারি ক্লিন্টন এবং রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভসহ যুক্তরাজ্য, ক্যানাডা, জার্মানি, ফ্রান্স, ইটালি এবং জাপানের পররাষ্ট্র মন্ত্রীরা যোগ দিচ্ছেন এই বৈঠকে৷

সর্বশেষ যুদ্ধ পরিস্থিতি

এদিকে শনিবার রাস লানুফ পুনরুদ্ধারের পর রবিবার ব্রেগা শহর থেকে বিদ্রোহীদের বিতাড়িত করেছে বলে দাবি করেছে লিবিয়ার সামরিক সূত্র৷ বিদ্রোহীদের শিবির থেকেও ব্রেগা শহর তাদের হাতছাড়া হয়ে যাওয়ার কথা স্বীকার করা হয়েছে৷ এছাড়া সরকারি সেনারা মিসরাটা শহরের উপকণ্ঠে স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র থেকে গোলা বর্ষণ করেছে রবিবার৷ স্থানীয় বাসিন্দাদের উদ্ধৃতি দিয়ে এই খবর দিচ্ছে বার্তা সংস্থা এএফপি৷ তবে ভিন্ন একটি সূত্র বলছে, সরকারি বাহিনীর মধ্যে দুই ভাগ হয়ে তারা একে অপরের বিরুদ্ধে লড়াই করছে৷ তবে মিসরাটা শহরের কেন্দ্রস্থলে কোন হামলা হয়নি বলেই খবর পাওয়া গেছে৷

মূলত একের পর এক সবগুলো শহর বিদ্রোহীদের দখল থেকে পুনরুদ্ধার করে যাচ্ছে গাদ্দাফির অনুগত সেনারা৷ আর সেই প্রচেষ্টা হয়তো সফল হবে মিসরাটা এবং বেনগাজি পুনরুদ্ধারের মধ্য দিয়ে৷ বিশেষ করে সরকারি বাহিনীর ভারি অস্ত্রের মুখে হাল্কা অস্ত্রধারী বিদ্রোহীরা নিজেদের বেশ দুর্বল বলেই মনে করছে৷ নিজেদের এমন অসহায়ত্বের কথা গণমাধ্যমের কাছে প্রকাশ করেছেন একাধিক বিদ্রোহী মুখপাত্র৷

প্রতিবেদন: হোসাইন আব্দুল হাই

সম্পাদনা: সাগর সরওয়ার