1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ব্রেগা শহরে হামলা, বিদ্রোহীদের অস্ত্র দেবে না ন্যাটো

লিবিয়ায় যুদ্ধ অব্যাহত৷ শেষ পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যেতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ মুয়াম্মার গাদ্দাফি৷ সিরিয়ায় জরুরি আইন প্রত্যাহারে প্রেসিডেন্টের পদক্ষেপ৷ অন্যদিকে, আরব বিশ্বে অস্থিরতা আল-কায়েদার জন্য অনুপ্রেরণা – বলছেন আল-আওলাকি৷

Libyan, rebels, town, al-Agila, Libya, Moammar, Gadhafi, ব্রেগা, শহর, হামলা, বিদ্রোহী, অস্ত্র, ন্যাটো

সশস্ত্র বিদ্রোহীদের একাংশ

লিবিয়ার সর্বশেষ পরিস্থিতি

আন্তর্জাতিক বাহিনীর অভিযান এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দেশত্যাগ সত্ত্বেও স্বপদে বহাল থাকতে অনড় লিবীয় নেতা মুয়াম্মার গাদ্দাফি৷ বৃহস্পতিবার লিবিয়ার সরকারি মুখপাত্র মুসা ইব্রাহিম জানিয়েছেন, ‘‘গাদ্দাফি এবং তাঁর ছেলেরা লিবিয়াতেই আছেন এবং শেষ পর্যন্ত তাঁরা এখানেই থাকবেন৷'' এদিকে, বিদ্রোহীদের দখল থেকে রাস লানুফ ও উকায়লা শহর পুনরুদ্ধারের পর গাদ্দাফির অনুগত সেনারা আজ ব্রেগার উপকণ্ঠে হামলা চালাচ্ছে বলে খবর পাওয়া গেছে৷ ওদিকে, বিদ্রোহীদের এমন সংকটের মুখেও তাদের হাতে অস্ত্র তুলে দেওয়া হবে না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন ন্যাটো মহাসচিব আন্ডার্স ফগ রাসমুসেন৷

লিবিয়ার রাজধানী ত্রিপোলির পরিস্থিতি আরো সংকটাপন্ন এমন আশঙ্কায় সেখান থেকে দূতাবাসের কর্মকর্তাদের সরিয়ে নিল জর্ডান৷ জর্ডানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মোহাম্মদ কায়েদ জার্মান বার্তা সংস্থা ডিপিএ'কে বলেন, ‘‘সেখানকার পরিস্থিতি আরো ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে বলেই তাদের নিরাপত্তার জন্য এই পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে৷ লিবিয়ার প্রতি জর্ডানের দৃষ্টিভঙ্গির সাথে এর কোন সম্পর্ক নেই৷'' প্রসঙ্গত, লিবিয়ায় যে কোন বিদেশি সামরিক অভিযানের বিরোধিতা করে আসছে জর্ডান৷

ইয়েমেনি ধর্মীয় নেতা আল-আওলাকির মন্তব্য

Unruhen in Syrien Flash-Galerie

সিরিয়ায় সরকারি বিরোধী বিক্ষোভের ফাইল ছবি

আরব বিশ্বে উদ্ভূত অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সম্পর্কে মুখ খুললেন মার্কিন বংশোদ্ভূত ইয়েমেনি ধর্মীয় নেতা আনওয়ার আল-আওলাকি৷ তাঁর মতে, আরব বিশ্বে অস্থিতিশীলতা আল-কায়েদার সৈনিকদের জন্য সারা বিশ্বের দরজা খুল দিয়েছে৷ তাঁর দাবি, টিউনিশিয়া, মিশর, লিবিয়া, সিরিয়া, ইয়েমেন এবং বাহরাইনসহ আরব বিশ্বের দেশসমূহে সরকার বিরোধী আন্দোলনের ফলে অ্যামেরিকা ঐ অঞ্চলে তার মিত্রদের হারাচ্ছে৷ আল-কায়েদার অনলাইন সাময়িকী ‘ইন্সপায়ার' নামক সাইটে প্রকাশ করা হয়েছে আল-আওলাকির এই মন্তব্য৷ উল্লেখ্য, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আল-কায়েদার পেছনে এই ধর্মীয় নেতা আল-আওলাকির ইন্ধন রয়েছে বলে মনে করা হয়৷

সিরিয়ায় বড়মাপের বিক্ষোভের ডাক

অধিকতর স্বাধীনতার জন্য বিক্ষোভ আরো মাথাচাড়া দিয়ে উঠছে সিরিয়ায়৷ ইতিমধ্যে বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পারছেন না দেশটির প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদ৷ বৃহস্পতিবার নির্দেশ দিলেন সেদেশে কয়েক দশক থেকে আরোপিত জরুরি আইন প্রত্যাহারের বিষয়টি খতিয়ে দেখতে একটি আইনি পরিষদ গঠনের৷ তবু বিক্ষোভকারীরা সন্তুষ্ট নন৷ আগামীকাল শুক্রবার জুমার নামাজের পর আবারো বড় মাপের বিক্ষোভ প্রদর্শনের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে সিরিয়ার বিরোধী শিবির৷ এদিকে, সিরিয়ায় কর্মরত আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা রয়টার্সের দুই সংবাদকর্মী নিখোঁজ বলে খবরে প্রকাশ৷ তবে তাঁদের মধ্যে একজনকে সরকার আটক করেছে বলে জানা গেছে আজ৷ কিন্তু ফটো সাংবাদিক খালেদ আল হারিরির সম্পর্কে গত সোমবার থেকে কোন খোঁজ পাওয়া যায়নি৷

প্রতিবেদন: হোসাইন আব্দুল হাই

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

নির্বাচিত প্রতিবেদন