1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ব্রিটেন কি ইউরোপীয় ইউনিয়নে থাকতে চায়?

ইউরোপীয় ইউনিয়নে থাকার প্রশ্নে গণভোটের আগে ব্রিটেনের সরকার কি ইইউ-পন্থিদের পাল্লাভারি করার চেষ্টা করছে? রানি এলিজাবেথের জার্মানি সফরে এমনই এক বার্তা দেওয়া হচ্ছে বলে মনে করছেন অনেকে৷

ব্রিটেনের রানি এলিজাবেথের শেষ সম্ভাব্য রাষ্ট্রীয় সফরের জন্য বেছে নেওয়া হয়েছে জার্মানিকে৷ এছাড়াও এই সফর বাড়তি গুরুত্ব পাচ্ছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে ব্রিটেনের বিদায়ের আশঙ্কার প্রেক্ষাপটে৷ রানি এলিজাবেথ বার্লিনে তাঁর ভাষণে ইউরোপের বিভাজনের বিরুদ্ধে সওয়াল করেছেন৷ অর্থাৎ ২০১৭ সালে প্রস্তাবিত গণভোটে তিনি কার্যত ব্রিটিশ ভোটারদের প্রতি একটি বার্তা দিয়ে দিলেন বলে মনে করছেন অনেকে৷ সোশ্যাল মিডিয়াও ব্রিটেনের রানির জার্মানি সফর নিয়ে সরগরম৷

ডাচ সাংবাদিক মিশিয়েল ভিলেমস লিখেছেন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন সংক্রান্ত বিতর্কের মধ্যে ঢুকে রানি বিভাজনকে ‘বিপজ্জনক' আখ্যা দিলেন৷

একই সুরে সুর মিলিয়ে কেন নামের এক ব্যবহারকারী লিখেছেন, কুইন ‘ব্রেক্সিট' বা ব্রিটেনের ইইউ ত্যাগ সংক্রান্ত বিতর্কে নিজস্ব মতামত রাখলেন বলে মনে হচ্ছে৷ জার্মানিতে তিনি ইউরোপীয় ঐক্যের উপর জোর দিলেন৷

রানিকে ব্যবহার করে ব্রিটেনের সরকারই ইউরোপীয় ঐক্যের জন্য সওয়াল করছে বলে সন্দেহ করছেন এক টুইটার ব্যবহারকারী৷

বার্লিনে বুধবার রানির জন্য আয়োজিত ভোজসভায় উপস্থিত ছিলেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন৷ বৃহস্পতিবার ইইউ শীর্ষ সম্মেলনেও কি তিনি ইউরোপীয় ঐক্যের বার্তা দিতে চলেছেন? এই প্রশ্ন তুলেছেন মার্ক জনস্টন৷

এবারের ইইউ সম্মেলনে অন্যায্য দাবি করতে চলেছে বলে মনে করছেন অনেকে৷ এমন প্রেক্ষাপটে সোনি কাপুর প্রশ্ন তুলেছেন, ‘‘অন্যায্য, অকৃতজ্ঞ ও অযৌক্তিক হয়ে আজ রাতে ব্রিটেন কি ইইউ-র অন্যান্য সদস্য দেশগুলির সঙ্গে সম্পর্কের আরও অবনতি ঘটাতে চলেছে?''

সংকলন: সঞ্জীব বর্মন

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়