1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘ব্রিটেন ও ইউরোপের জন্য দুঃখের দিন'

শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত আশাবাদীদের মনে বিশ্বাস ছিল, ব্রিটেনের মানুষ ইইউ-তে থাকার পক্ষেই ভোট দেবেন৷ কিন্তু শুক্রবার সকালে স্পষ্ট হয়ে গেল, যে ব্রেক্সিট শিবিরেরই স্পষ্ট জয় হয়েছে৷ পুঁজিবাজারে এর বিরূপ প্রতিক্রিয়া শুরু হয়ে গেছে৷

সরকারি ফলাফল ঘোষণার আগে বিবিসি জানিয়েছিল, যে বৃহস্পতিবারের গণভোটে ৫২ শতাংশ ভোটার ব্রেক্সিট-এর পক্ষে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন৷ ইইউ-পন্থি শিবির পেয়েছে ৪৮ শতাংশ৷ অর্থাৎ ভোট গণনার শেষ লগ্নেও স্পষ্ট হয়ে গিয়েছিল, যে এই কঠিন বাস্তব এড়ানোর কোনো উপায় নেই৷

এমন একটি মৌলিক সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে ব্রিটেনের সমাজে ব়্যাডিকাল বিভাজন নিয়ে দুশ্চিন্তা প্রকাশ করছেন অনেকে৷

গণভোটের এই রায়ের ফলে ব্রিটেন, ইউরোপ তথা গোটা বিশ্বের পুঁজিবাজারকে অনিশ্চয়তার দিকে ঠেলে দিল ব্রিটিশ ভোটারদের রায়৷ এশিয়ার পুঁজিবাজারে দরপতনের খবর পাওয়া যাচ্ছে৷ সকালেই ব্রিটিশ পাউন্ডের বিনিময় হার রেকর্ড মাত্রায় কমে গেছে৷ মাত্র ৬ ঘণ্টায় এই মুদ্রার ১০ শতাংশ দরপতন ঘটেছে৷

দেশ-বিদেশের প্রায় সব আর্থিক ও অর্থনৈতিক প্রতিষ্ঠানই এর পূর্বাভাষ দিয়েছিল৷ আর্থিক লেনদেনের আন্তর্জাতিক কেন্দ্র হিসেবে লন্ডনের গুরুত্ব এক ধাক্কায় অনেকটা কমে যাবে বলেও সাবধানবানী শোনা গিয়েছিল৷

রাজনৈতিক জগতেও গণভোটের রায়ের প্রতিক্রিয়া শোনা যাচ্ছে৷ জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফ্রাংক ভাল্টার স্টাইনমায়ার বলেন, ইউরোপ ও ব্রিটেনের জন্য এটি একটি দুঃখের দিন৷

এডওয়ার্ড স্নোডেন সহ একাধিক খ্যাতিমান ও সাধারণ মানুষ টুইটারে তাঁদের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন৷

ব্রেক্সিট-এর সিদ্ধান্তের ফলে ইউরোপীয় ইউনিয়নের চরম দক্ষণপন্থি শিবির বিপুল উৎসাহ পেয়েছে এবং এই প্রশ্নে গণভোটের দাবি করছে৷ ফ্রান্সের শক্তিশালী দল ন্যাশানাল ফ্রন্ট-এর নেত্রী মারিন ল্য পেন ব্রিটিশ ভোটারদের রায়কে স্বাগত জানিয়ে ফ্রান্স সহ ইউরোপীয় ইউনিয়নের সব দেশে গণভোট আয়োজনের ডাক দিয়েছেন৷ নেদারল্যান্ডস-এর চরম দক্ষণপন্থি নেতা খেয়ার্ট ভিল্ডার্স-ও একই দাবি তুলেছেন৷

এসবি/জেডএইচ (রয়টার্স, এএফপি, এপি, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়