1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ব্রাজিলে পাচার বাংলাদেশিদের ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ

ব্রাজিলে পাচার হওয়া ৮০ বাংলাদেশিকে ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ সচিব ড. জাফর আহমেদ খান৷ তিনি ডয়চে ভলেকে জানান, পাচারের সঙ্গে জড়িতদের চিহ্নিত করে তাদের বিরুদ্ধে মানব পাচার আইনে মামলা হবে৷

ব্রাজিলে পাচার হওয়া ৮০ জন বাংলাদেশিকে উদ্ধারের খবর আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশ হয় শুক্রবার৷ তাদের মাসে দেড় হাজার মার্কিন ডলার বেতনের লোভ দেখিয়ে সেখানে নেয় পাচারকারী চক্র৷ আর এর বিনিময়ে তাদের প্রত্যেকের কাছ থেকে ১০ হাজার ডলার নেয়া হয়৷ সেখানে নেয়ার পর পাচারকারীরা এই হতভাগ্য বাংলাদেশিদের খুবই নিম্নমানের কাজ দেয়৷ তারা সেখানে ক্রীতদাসের মতো মানবেতর জীবনযাপন করছিল৷ ব্রাজিলের পুলিশ বুধবার তাদের রাজধানী ব্রাসিলিয়ার কাছে সামাবাইয়া শহরের ৮টি বাড়ি থেকে উদ্ধার করে৷ তারা সেখানে মানবেতর জীবনযাপন করছিলো৷

প্রবাসী কল্যাণ সচিব ড. জাফর আহমেদ খান ডয়চে ভেলেকে জানান ব্রাজিলের সঙ্গে বাংলাদেশের জনশক্তি রপ্তানির কোনো চুক্তি নেই৷ তাই তারা সেখানে কীভাবে গেল তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে৷ তিনি জানান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ নিয়ে ব্রাজিলের সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেছে৷ প্রথম কাজ হচ্ছে তাদের বাংলাদেশে ফিরিয়ে আনা৷

Myanmar Rohingya Flüchtlinge

পাচারের সঙ্গে জড়িতদের চিহ্নিত করে মানব পাচার আইনে মামলা হবে (ফাইল ছবি)

এজন্য তাদের বিস্তারিত পরিচয় সংগ্রহের চেষ্টা চলছে৷ তিনি জানান তাদের ফিরিয়ে আনতে আন্তর্জাতিক সংস্থার সহায়তা নেবে সরকার৷ আর সরকারও প্রবাসী কল্যাণ তহবিল থেকে অর্থের সংস্থান করবে৷

জাফর আহমেদ খান জানান যেসব প্রতিষ্ঠান বা এজেন্সি তাদের পাচার করেছে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে৷ তবে কারা তাদেরকে পাচার করেছে তা জানতে সময় লাগবে৷ তাদের দেশে ফেরত আনার পর তাদের কাছ থেকেই তা জানা যাবে৷ আর ব্রাজিলের পুলিশের কাছ থেকেও তথ্য সংগ্রহের চেষ্টা করা হচ্ছে৷

পাচারকারীদের সুনির্দিষ্ট তথ্য পাওয়ার পর তাদের বিরুদ্ধে মানব পাচার আইনে মামলা হবে৷

জাফর আহমেদ খান বলেন ব্রাজিলে বাংলাদেশ থেকে যেহেতু শ্রমিক রপ্তানির কোনো অনুমতি নেই তাই ধারণা করা হচ্ছে তাদের তৃতীয় কোনো দেশ থেকে ব্রাজিলে পাচার করা হয়৷ সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী তাদের বাংলাদেশ থেকে ১৬ হাজার কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে পেরু, বলিভিয়া এবং গায়ানা হয়ে তাদের ব্রাজিলে নেয়া হয়৷ আর তাদের সেখানে কাজ দেয়া হয় হিমাগার ও গ্যারেজে খুবই কম মজুরিতে৷

ব্রাজিলে রাজনৈতিক আশ্রয়প্রার্থীদের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় সেখানকার পুলিশ ‘ফ্রিডম' নামে এক বিশেষ অভিযান শুরু করে৷ সেই অভিযানেই ৮০ বাংলাদেশিকে উদ্ধার করা হয় বলে জানা গেছে৷

ব্রাজিলের পুলিশ এই পাচারে জড়িত ১৪ জনের একটি চক্রকে চিহ্নিত করেছে৷ তাদের আটকে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে সেদেশের আদালত৷ ব্রাজিলের ফেডারেল পুলিশ জানায় এই চক্রে বাংলাদেশি নাগরিকও আছে৷ আর ৮০ জনকে ভুয়া এবং জাল কাগজপত্রের মাধ্যমে ব্রাজিলে নেয়া হয় বলে জানায় দেশটির পুলিশ৷

বি: দ্র: প্রতিবেদনের সঙ্গে প্রকাশিত প্রথম ছবিটি ফাইল থেকে নেয়া

নির্বাচিত প্রতিবেদন