1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ব্যাংক খুলেছে, চলতে শুরু করেছে গ্রিস

প্রায় স্থবির হয়ে পড়েছিল গ্রিস৷ সব ব্যাংক বন্ধ থাকায় জনজীবনেও পড়েছিল দেশের অর্থনৈতিক দুরবস্থার প্রভাব৷ অবশেষে ব্যাংকগুলো খুলেছে৷ ধীরে ধীরে চলতে শুরু করছে গ্রিস৷

গত তিন সপ্তাহ গ্রিসের ব্যাংকগুলো পুরোপুরি বন্ধ ছিল৷ এ সময়ে এটিএম থেকে দিনে মাত্র ৬০ ইউরো পর্যন্ত তুলতে পারতেন গ্রাহকরা৷ সোমবার থেকে সব ব্যাংক আবার খুলে দেয়া হয়েছে৷ ফলে প্রতিদিন লম্বা লাইনে দীর্ঘক্ষণ দাঁড়িয়ে থেকে ৬০ ইউরো তুলে শুধু সেই দিনের প্রয়োজন মেটানোর আর দরকার নেই৷ এখন থেকে সপ্তাহে ৪২০ ইউরো পর্যন্ত তোলা যাবে৷ সপ্তাহে মোট টাকার অঙ্ক না বাড়লেও ব্যাংক খোলায় প্রতিদিনের ঝক্কিটা কমলো৷ ব্যাংক খুললেও দেশের বাইরে টাকা পাঠানো এবং নতুন অ্যাকাউন্ট খোলা এখনো বন্ধ রয়েছে৷

তিন সপ্তাহ পর ব্যাংক খুলে দেয়ার পাশাপাশি দেশের অর্থনীতিকে স্বাভাবিক করার উদ্যোগ হিসেবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)-এর শর্ত অনুযায়ী অর্থনৈতিক সংস্কারও ধীরে ধীরে শুরু করছে গ্রিস৷

সোমবারই ইউরোপীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক (ইসিবি)-কে গ্রিসের অতীত ঋণের কিস্তি হিসেবে ৪ দশমিক ২ বিলিয়ন ইউরো পরিশোধ করার কথা৷ ইইউ-এর কাছ থেকে স্বল্পমেয়াদি ঋণ হিসেবে প্রাপ্য ৭ দশমিক ১৬ বিলিয়ন ইউরো থেকে এই অংক পরিশোধ করবে গ্রিস৷

এছাড়া জনসেবা এবং দ্রব্যমূল্যের ওপর কর বৃদ্ধির প্রক্রিয়াও শুরু হচ্ছে৷ কোকাকোলা, চিনি, কনডম ইত্যাদির মতো কিছু পণ্যের জন্য গ্রিকদের এখন থেকে শতকরা ২৩ ভাগ মূল্য সংযোজন কর বা ভ্যাট দিতে হবে৷ তবে ওষুধ, বই-পত্র এবং খবরের কাগজের মতো কিছু পণ্যের মূল্য সংযোজন করের হার কম হবে৷

এদিকে গ্রিস নিয়ে জার্মানিতে এখনো আলোচনা-সমালোচনা হচ্ছে৷ তবে গ্রিসের বিষয়ে জার্মানির অবস্থানে পরিবর্তন আসবে না বলেই জানিয়েছেন আঙ্গেলা ম্যার্কেল৷ এক টেলিভিশন চ্যনেলকে জার্মানির চ্যান্সেলর বলেছেন, জার্মানি গ্রিসের ঋণ মওকুফ করবে না৷ এআরডি টেলিভিশন নেটওয়ার্ককে ম্যার্কেল এর পাশাপাশি অবশ্য এ-ও বলেছেন যে, ঋণ মওকুফ না করলেও ঋণ পরিশোধের সময় বাড়ানো হতে পারে৷

এসিবি/ডিজি (এএফপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন