1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

বেলারুশে বিরোধীদের গ্রেপ্তার, বিশ্বের তীব্র নিন্দা

সাবেক সোভিয়েত রাষ্ট্র বেলারুশ৷ রবিবার সেখান হয়ে গেল প্রেসিডেন্ট নির্বাচন৷ তাতে বর্তমান প্রেসিডেন্টকে বিজয়ী বলে ঘোষণা করেছে দেশটির নির্বাচন কমিশন৷ কিন্তু বিরোধীরা এই ফল না মেনে বিক্ষোভ করছে৷ ফলে ধরপাকড় চলছে সেখানে৷

default

বেলারুশের রাস্তায় দাঙ্গা পুলিশ

নির্বাচন কমিশনের হিসেবে বর্তমান প্রেসিডেন্ট আলেক্সান্ডার লুকাশেঙ্কো, যুক্তরাষ্ট্র যাকে ‘ইউরোপের শেষ স্বৈরশাসক' বলে, তিনি পেয়েছেন প্রায় ৮০ শতাংশ ভোট৷ আর বাকি নয় প্রার্থীর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ভোট পেয়েছেন সানিকভ৷ যেটার পরিমাণ মাত্র আড়াই শতাংশ৷ অথচ ‘এক্সিট পোল' বলছে ব্যবধান এতটা হবেনা৷ তাই ভোট গণনায় কারচুপি হয়েছে বলে দাবি বিরোধীদের৷ তাই গতকাল তারা রাস্তায় নেমে এসেছিলেন৷ আজও সেখানে বিক্ষোভ হচ্ছে৷

বিক্ষোভ থামাতে চার প্রেসিডেন্ট প্রার্থী সহ প্রায় এক হাজার লোককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানা গেছে৷ এছাড়া পুলিশের লাঠিচার্জে আহত হয়েছেন অনেকে৷ এর মধ্যে দুজন প্রার্থীও রয়েছেন৷ তবে নির্বাচনের পর বিক্ষোভ, এটা বেলারুশে নতুন কোনো ঘটনা নয়৷ গত নির্বাচন যেটা চার বছর

Belarus Wahlen

আলেক্সান্ডার লুকাশেঙ্কো

আগে হয়েছিল সেসময়ও একই ধরণের বিক্ষোভ হয়েছে৷ সেই বিক্ষোভ থামাতে ব্যাপক ধরপাকড় হয়েছে এবং শেষে অনেকের বিচার হয়েছে৷ এবারও সেরকমই হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে৷ ধারণা করা হচ্ছে, কাউকে কাউকে ১৫ বছর পর্যন্ত কারাদন্ড দেয়া হতে পারে৷

আন্তর্জাতিক বিশ্বের প্রতিক্রিয়া

বেলারুশের নির্বাচন নিয়ে আন্তর্জাতিক বিশ্ব বেশ সোচ্চার৷ বিশেষ করে বেলারুশ যে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য হতে চাইছে তারা এই ধরপাকড়ের কড়া সমালোচনা করেছে৷ এমনকি গত দুবছরের শান্তিপূর্ণ পরিবেশের কারণে প্রেসিডেন্ট লুকাশেঙ্কো'র ওপর থেকে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার যে পরিকল্পনা ইইউ করছিল, সেটা থেকে সরে আসতে পারেও বলে জানিয়েছেন ইইউ'র এক মুখপাত্র৷ শুধু ধরপাকড় নয়, পুরো নির্বাচনকেই ত্রুটিপূর্ণ বলছে ইউরোপের নির্বাচন পর্যবেক্ষণ সংস্থা অর্গানাইজেশন ফর সিকিউরিটি এন্ড কো-অপারেশন ইন ইউরোপ বা ওএসসিই৷ ফলে ইইউতে ঢোকার যে ইচ্ছা প্রেসিডেন্ট লুকাশেঙ্কো'র ছিল সেটা বেশ কঠিন হয়ে গেল৷ জার্মানিও বিরোধী কর্মীদের গ্রেপ্তারের বিষয়টি ‘অগ্রহণযোগ্য' বলে মন্তব্য করেছে৷ জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের দপ্তর থেকে পাঠানো বিবৃতিতে এটা বলা হয়৷ পররাষ্ট্রমন্ত্রী গিডো ভেস্টারভেলেও একই ধরনের মন্তব্য করেছেন৷ যুক্তরাষ্ট্রও গ্রেপ্তারের ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছে৷ তবে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট দিমিত্রি মেদভেদেভ গ্রেপ্তার নিয়ে কোনো মন্তব্য না করলেও বলেছেন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন বেলারুশের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার৷

প্রতিবেদন: জাহিদুল হক

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়