1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি ইউরোপ

বেঁচে গেল বিশ্বের সংকীর্ণতম সড়ক

প্রায় তিন শতক পুরানো সরু এক গলি গিনেস বুকের কল্যাণে গোটা বিশ্বে পরিচিত৷ জার্মানির রয়েটলিঙেন শহরের এই রাস্তাটির অস্তিত্ব আপাতত নিশ্চিত করা গেল৷ অবশ্য তার পেছনে উদ্যোগও কম নয়৷

ঢাকা বা কলকাতার যানজটে ফেঁসে গিয়ে কে না বিরক্ত হয়ে ভাবেন, রাস্তাগুলি একটু চওড়া হলে যানবাহনের গতি কত বাড়তে পারতো! আবার উত্তর কোরিয়ার রাজধানী পিয়ং ইয়ং-এর চওড়া রাস্তাগুলিতে এত কম গাড়িঘোড়া চলে, যে অনেকে বলেন, যে পথের উপর ঘুমিয়ে পড়লেও নাকি গাড়ি চাপা পড়ার ভয় নেই৷ কিন্তু বিশ্বের সবচেয়ে সংকীর্ণ বা সরু রাস্তার কথা জানতেন কি?

Engste Straße der Welt

ফিতের মাপটা দেখুন!

না, সরু গলির শহর ভারতের বেনারস বা পুরান ঢাকার কোনো কোণে নয় – রেকর্ডধারী সেই পথটি দেখতে হলে আসতে হবে জার্মানিতে৷ বাডেন ভ্যুর্টেমব্যার্গ রাজ্যের ছোট্ট শহর রয়েটলিঙেন-এ অবস্থিত এই সড়ক মাত্র ৩১ সেন্টিমিটার চওড়া! নাম ‘স্প্রয়ারহোফস্ট্রাসে'৷ ২০০৭ সাল থেকে ‘গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ড'-এ নাম উঠে গেছে এই সড়কের৷

গর্ব করার মতো বিষয় বটে৷ কিন্তু সেই সড়ক বিপন্ন হয়ে উঠেছিল৷ কারণ এ তো যে সে সড়ক নয়৷ এত ছোট রাস্তার দুধারে দুটি মাত্র বাড়ি৷ একটি বাড়ি শহর কর্তৃপক্ষের মালিকানায় ছিল৷ অন্যটি ব্যক্তিগত মালিকানায়৷ এবার সড়ক বাঁচাতে কর্তৃপক্ষ প্রায় ১ লক্ষ ইউরো দিয়ে সেই বাড়িটিও কিনে ফেলেছে৷ শহরের মেয়র জানিয়েছেন, এবার পরীক্ষা করে দেখতে হবে পুরানো এই বাড়িটি কতটা মজবুত অবস্থায় রয়েছে৷ তারপর তার সংস্কারের কাজ শুরু হবে৷

এমন সড়ক যখন, তার একটা ইতিহাস তো থাকবেই৷ আসলে প্রায় ৩০০ বছর আগে শহরে বিশাল এক অগ্নিকাণ্ড ঘটেছিল৷ তারপর শহরের পুনর্গঠনের সময় সড়কটি তৈরি হয়, যাতে বিপদে-আপদে বাড়ির লোকজন ‘শর্ট কাট' ব্যবহার করতে পারে৷ তারপর থেকে সড়কটি সেভাবেই রয়েছে৷

তবে বিশ্বের সবচেয়ে সংকীর্ণ সড়ক ও তার দুই পাশের দুটি বাড়ির সংরক্ষণের কাজ মোটেই সহজ নয়৷ সদ্য কেনা বাড়িটিতে এখনো ভাড়াটিয়া রয়েছে৷ তবে তারা বেশিদিন সেখানে থাকতে পারবে বলে মনে হয় না৷ তাই নতুন সব আইডিয়া নিয়ে ভাবনা-চিন্তা চলছে৷ ক্যাফে, ইনফো-সেন্টার অথবা শহর কর্তৃপক্ষের টিকিট বিক্রি কেন্দ্র হিসেবে বাড়িটি কাজে লাগানো যেতে পারে৷ অথবা নবদম্পতিদের জন্য ‘হানিমুন সুইট'-ও তৈরি করা যেতে পারে৷

এসবি/ডিজি (ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন