1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

বুড়িগঙ্গার দূষণ বেড়েই চলেছে

নানা উদ্যোগ আর কথার ফুলঝুরির পরও ঢাকার প্রাণ প্রবাহ বুড়িগঙ্গার দূষণ কমছে না৷ প্রতিদিন বুড়িগঙ্গায় গিয়ে পড়ছে বিপুল পরিমাণ কঠিন আর তরল বর্জ্য৷

default

দূষিত বুড়িগঙ্গা

বুড়িগঙ্গার পানি ইতোমধ্যেই ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে গেছে৷ এই অবস্থা চলতে থাকলে বুড়িগঙ্গা নিজেই বিষ ছড়াবে৷

প্রতিদিন ২২ হাজার ঘনমিটার তরল আর ১০ মেট্রিক টন কঠিন বর্জ্য বুড়িগঙ্গায় গিয়ে পড়ছে৷ শিল্প ও পয়ঃ বর্জ্য অন্ততঃ ৪৩টি পথ দিয়ে বুড়িগঙ্গায় গিয়ে মেশে৷ আর পলিথিনের পুরু স্তর রয়েছে বুড়িগঙ্গার তলদেশে৷ এই পলিথিন প্রতিদিন বাড়ছে৷ কারণ পলিথিনের ব্যবহার নিষিদ্ধ হলেও বাস্তবে তা বন্ধ হয়নি৷ পলিথিন বর্জ্য বুড়িগঙ্গাকে মেরে ফেলছে৷ জানালেন বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন – বাপার মহাসচিব আব্দুল মতিন৷

নদীর তলদেশ থেকে পলিথিনসহ বর্জ্য এবং ময়লা আবর্জনা তুলতে জলবায়ু ট্রাস্ট ফান্ড থেকে অর্থ দেয়া দেয়া হয়েছে৷ আর এ অর্থ ব্যয় করছে বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠান৷ কিন্তু তাতে কাজের কাজ কিছুই হচ্ছেনা৷ বাড়ছে বর্জ্যের স্তর৷ বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষকেও দায়িত্ব দেয়া হয়েছে৷ তবে সংস্থাটির চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক নিজেই স্বীকার করেছেন যে পরিস্থিতির কোন উন্নতি হয়নি৷ তিনি বলেন, মেডিক্যাল বর্জ্য ছাড়া আর কোন ধরনের বর্জ্য কমেনি৷

বুড়িগঙ্গা দূষিত হওয়ার প্রধান কারণ শিল্প বর্জ্য৷ নানা আয়োজনের পরও অধিকাংশ শিল্প প্রতিষ্ঠানে বর্জ্য ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট নেই৷ তবে পরিবেশ অধিদফতরের আশা, আগামী ২ বছরের মধ্যে অধিকাংশ কারখানায় ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট স্থাপন করা হবে৷ যা জানালেন পরিবেশ অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক আব্দুস সোবহান৷

এদিকে বুড়িগঙ্গা দূষণের আরেক উৎস ঢাকার ট্যানারিগুলো ঢাকার বাইরে সরিয়ে নেয়ার জন্য বলা হচ্ছে দীর্ঘদিন ধরে৷ কিন্তু আইনী মারপ্যাঁচের কারণে তাও সরানো যাচ্ছেনা৷

প্রতিবেদন: হারুন উর রশীদ স্বপন, ঢাকা

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

সংশ্লিষ্ট বিষয়