1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

বিশ্ব মা দিবসে বলিউড তারকাদের শ্রদ্ধার্ঘ

ধূলির এই ধরায় আগমনের মাধ্যম ‘মা’র প্রতি বিশেষ সম্মান জানানোর একটি দিন বিশ্ব ‘মা’ দিবস৷ ৮ মে রোববার বাংলাদেশ ও ভারতসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পালিত হলো বিশ্ব মা দিবস৷

default

বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, মা দিবস উদযাপন প্রথম শুরু হয় গ্রিসে৷ গ্রিকরা তাদের মাতা-দেবীর পূজা করত৷ যার নাম হল ‘রিয়া'৷ এটা তারা বসন্তকালীন উৎসবের একটি অংশ হিসাবে উদযাপন করত৷ অ্যামেরিকান কংগ্রেস ১৯১৩ সালের ১০ মে মা দিবসকে সরকারিভাবে পালনের অনুমোদন দেয়৷ অ্যামেরিকার অনুকরণে মেক্সিকো, ক্যানাডা, লাতিন আমেরিকা, চীন, জাপান ও আফ্রিকার বিভিন্ন দেশে শুরু হয় মা দিবস পালন৷

যাহোক, এ বছরের মা দিবসে অন্যান্যের সাথে নিজেদের মায়ের প্রতি অফুরন্ত ভালোবাসা এবং শ্রদ্ধা জানালেন বলিউড তারকারা৷ অভিনেতা বিবেক ওবেরয় টুইটারে লিখেছেন, ‘‘প্রভূ সব জায়গায় হাজির থাকতে পারবেন না বলেই তিনি মায়েদের সৃষ্টি করেছেন৷ মা তোমায় আমরা প্রচণ্ড ভালোবাসি৷'' নায়িকা বিপাশা বসুর টুইট, ‘‘মা৷ তুমি মহিয়সী নারী৷ আমাদের জীবনের সবচেয়ে স্বার্থহীন ব্যক্তি তুমি৷ তোমার প্রতি শ্রদ্ধা জানাই শুধু আজ নয়, প্রতিদিন৷''

মা দিবসে টুইটার ও ফেসবুকে নানা মধুর বাণী লিখে মায়ের প্রতি অগাধ ভালোবাসা প্রকাশ করলেন চলচ্চিত্র নির্মাতা মধুর ভন্দর্কর ও রাম গোপাল ভার্মা, অভিনেত্রী লরা দত্ত ও দিয়া মির্জা, নায়ক শহিদ কাপুর ও নিতিন মুখেশ, রিতিশ দেশমুখ এবং সুরস্রষ্টা শেখর রাভিজানিসহ আরো অনেকে৷

এদিকে, মা দিবস উপলক্ষ্যে বিশ্বের ১৬৪টি দেশের তথ্য-উপাত্ত ও পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে তৈরি সমীক্ষার ফল প্রকাশ করল আন্তর্জাতিক সংস্থা সেভ দ্য চিল্ড্রেন৷ তাদের ১২তম বার্ষিক মাতৃসূচকে উঠে এসেছে মায়ের জন্য বিশ্বের সবচেয়ে অনুকূল ও প্রতিকূল দেশের নাম৷ এতে মা এবং শিশুর জন্য বিশ্বের সেরা স্থান হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে নরওয়ে৷

সেখানে মাতৃ ও শিশু মৃত্যুর হার সবচেয়ে কম৷ নারীদের আয়ুষ্কাল এবং শিক্ষাজীবন সবচেয়ে দীর্ঘ৷ এছাড়া নরওয়েতে মাতৃকালীন ছুটি প্রায় এক বছর৷ তবে নরওয়ের কাছাকাছি পর্যায়েই রয়েছে অস্ট্রেলিয়া এবং আইসল্যান্ড৷ অন্যদিকে, মা এবং শিশুদের জন্য সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ দেশ আফগানিস্তান৷ আর এক্ষেত্রে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান ৩১তম৷

প্রতিবেদন: হোসাইন আব্দুল হাই

সম্পাদনা: জাহিদুল হক