1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাঠক ভাবনা

বিশ্বের ২৩ শতাংশ মুসলমান, তাদের সহযোগিতা ছাড়া শান্তি কি সম্ভব?

‘‘মুসলিমদের বিরুদ্ধে পশ্চিমা দেশগুলিতে যে অভিযোগ উঠছে, তার দায় তাদের নিতে হবে'' – টরন্টোর মসজিদের সামনে বিক্ষোভকারীদের হাতের প্ল্যাকার্ডে ‘‘ইসলামের প্রতি ‘না''' ‘‘মুসলিমরা সন্ত্রাসবাদী'' লেখা দেখে এ মন্তব্য একজন পাঠকের৷ 

ভালোবাসা ঘৃণার চেয়ে শক্তিশালী৷ সেখানে ভালো যুদ্ধ বা খারাপ শান্তি বলে কিছু নেই৷ তাছাড়া বিশ্বের মোট জনসংখ্যার ২৩ শতাংশ মুসলমান৷ তাই তাদের সহযোগিতা ছাড়া কীভাবে বিশ্ব শান্তি সম্ভব? এই প্রশ্ন পার্থ সারথী গুপ্তর৷

তবে ফেসবুক পাতায় শমিক বিশ্বসের মন্তব্য পুরোপুরি ভিন্ন৷ তিনি শ্বেতাঙ্গদের সমর্থন করে লিখেছেন,‘‘আমরা শ্বেতাঙ্গ, বর্ণবাদী, ফ্যাসিস্ট ভাইদের পূর্ণ সমর্থন করছি ইসলামের বিরুদ্ধে যুদ্ধে৷ আমরাও পাশে আছি শ্বেতাঙ্গ ভাইদের৷ আমরা সবাই এক হয়ে লড়লে মুল্লাদের কেউ রক্ষা করতে পারবে না৷''

পাঠক মঈন আহমেদ লিখেছেন, ‘‘আজ মুসলিমদের বিরুদ্ধে পশ্চিমা দেশগুলিতে যে অভিযোগ উঠছে তার দায় মুসলমানদের নিতে হবে৷ কারণ সারা বিশ্বে ব়্যাডিক্যালরা যা করছে, মুসলমানদের একটা বিরাট অংশ তাতে আনন্দে আত্মহারা হয়ে ‘সাপোর্ট' দিচ্ছে৷ অথচ টরন্টো জাতিগতভাবে ক্যানাডার সবচেয়ে বৈচিত্র্যপূর্ণ শহর৷''

তবে ‘‘ভিন্নমতাবলম্বীদের প্রতি ক্রমাগত অসহিষ্ণুতা, বিদ্বেষ, জঙ্গিবাদের জন্যই মুসলিমদের দুনিয়া ক্রমশ ছোট হয়ে আসছে৷'' লিখেছেন ডয়চে ভেলের বন্ধু ফেহাসান চৌধুরী৷

মোহাম্মদ রুহুল দেওয়ান অবশ্য পুরো ব্যাপারটাকেই খারাপ বলছেন৷

পাঠক রজত তরফদার, মোহাম্মদ রুহুল দেওয়ানের এই মন্তব্যকে সমর্থ করেছেন৷

আর আবদুল মান্নান শুধু দুঃখ করে ফেসবুকে লিখেছেন, ‘‘মুসলিমদের ওপর ওদের রাগের কারণটা বুঝি৷ কিন্তু তাই বলে সবাইকে একদলে ফেলাটা ঠিক নয়৷''

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন