1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

বিশ্বের সবচেয়ে ধারালো ছুরি

লার্স শাইডলার ছুরি তৈরি করেন৷ দামাস্ক ইস্পাতের অতি পাতলা, অতি ধারালো সব ছুরি, যা দিয়ে ‘চুল চেরা' যায়৷ কাজেই সে ছুরির দামও যে চমকে দেওয়ার মতো হবে, তাতে আশ্চর্য হবার কিছু নেই৷

৮৫ বছর বয়সি লার্স শাইডলারের পেশা ও নেশা হলো ছুরি তৈরি করা৷ ছেলেবেলা থেকেই তিনি জাদু তলোয়ার, জাদু তরবারি ইত্যাদির কাহিনি শুনতে ভালোবাসেন৷ তাই তিনি তাঁর নিজের তৈরি ‘সুপার' ছুরিটির নাম রেখেছেন: নেস্মুক৷

ছুরির ফলা থেকে তার বল ও ক্ষমতার একটা আন্দাজ পাওয়া যায়৷ শাইডলার অস্ত্রশস্ত্র ও যন্ত্রপাতির ইতিহাস নিয়ে পড়াশুনা করেছেন৷ প্রায় সাড়ে তিন হাজার বছর ধরে এ ধরনের জিনিস তৈরি হচ্ছে৷ তাঁর নিজের কর্মশালায় সেই সুপ্রাচীন প্রথাকে আবার পুনরুজ্জীবিত করেছেন লার্স শাইডলার৷ তিনি বলেন, ‘‘মানুষ যেসব যন্ত্রপাতি হাতে নিয়ে ব্যবহার করে, সেগুলোর মধ্যে সবচেয়ে পুরনো সম্ভবত এই ছুরি বা ছুরিকা৷ ছুরি তৈরিতে যে সুপ্রাচীন, কিংবদন্তির উপাদান আছে, তা মানবসংস্কৃতির অঙ্গ৷''

দামেস্কের ছুরি

ইংরেজিতে যাকে ‘ডামাস্ক' বলে, সেই কথাটি এসেছে দামাস্কাস অর্থাৎ দামেস্ক থেকে৷ দামাস্ক ইস্পাতের ছুরিগুলো যেমন ধারালো, তেমনই তীক্ষ্ণ৷ তরোয়াল হিসেবেও তাদের কোনো তুলনা নেই৷ শুধুমাত্র সবচেয়ে অভিজ্ঞ কামাররাই দামাস্ক ইস্পাত তৈরি করতে জানেন৷ লার্স বলেন, ‘‘দামাস্ক স্টিল কীভাবে তৈরি হয়, আমার চিরকালই তা জানার আগ্রহ ছিল৷''

দামাস্ক ছুরি তৈরি করা অতি দুরুহ ব্যাপার৷ শাইডলার ও তাঁর সহযোগীরা একটি আগুন-গরম ইস্পাতের পাতকে বার বার মুড়ে, তার উপর হাতুড়ি পিটিয়ে একটি ৩০ সেন্টিমিটার লম্বা ছুরির ফলা তৈরি করেন৷ ইস্পাতের পাতটি কতবার মোড়া হয়? এতবার যে, শেষমেশ তাতে ৪৮০টি স্তর থাকে!

কয়েকদিন পরে দেখা যায়, শাইডলার ছুরির ফলাটায় ধার দিচ্ছেন৷ ফলাটা যত পাতলা হবে, ততই তার ধার বেশি হবে৷ ফলার আকৃতি তাঁর বহু বছরের পরীক্ষা-নিরীক্ষার ফল৷

মরচে ধরে না

ফলাটা যাতে তার বিশেষ রূপ পায়, সেজন্য সেটিকে অ্যাসিডে চোবানো হয়৷ অম্লের প্রতিক্রিয়ায় ইস্পাতের উপর নকশাটা ফুটে ওঠে৷ লার্স বলেন, ‘‘এ কাজের ভিত্তি হলো কর্মকারের প্রথাগত কর্মপদ্ধতি৷ তারপর সেটার সঙ্গে আধুনিক প্রযুক্তি যোগ হয়, যেমন একটি বিশেষ ধরনের কোটিং, যা মরচের হাত থেকে বাঁচায়৷''

ড্রেসডেনের ফ্রাউনহোফার ইনস্টিটিউট গবেষণা প্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্ট প্রযুক্তিটি আবিষ্কার করেছে: অতীব শক্ত একটি কোটিং, যা ছুরির ফলাকে মরচে ধরা থেকে রক্ষা করে৷ হাতের কাজের সঙ্গে হাই টেকের মিলন ঘটলে দামটাও বাড়ে ঠিক সেই অনুপাতে৷ একটি নেস্মুক ছুরির দাম পড়ে ৪,০০০ ইউরো৷

শেষ পালিশটা পড়লেই ছুরিটা তৈরি৷ ছুরির ফলাটা অবিশ্বাস্য রকম পাতলা: এক মিলিমিটারের এক হাজারের এক ভাগের চেয়েও কম৷ এ ধরনের একটি ছুরি এতই ধারালো যে, তা দিয়ে সত্যিই চুল চেরা যায়৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

সংশ্লিষ্ট বিষয়