1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সাইবার হামলা

বিশ্বব্যাপী ‘ওয়ানাক্রাই’ সাইবার হামলার দায়ীদের খোঁজা হচ্ছে

গত শুক্রবার থেকে এই শব্দটি বিশ্ব গণমাধ্যমে জায়গা করে নিয়েছে৷ বিশ্বের কমপক্ষে দুই লক্ষ কম্পিউটারের র‍্যানসমওয়্যারে আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি ওয়ানাক্রাই হিসেবে পরিচিতি পেয়েছে৷

Cyber Angriff (picture-alliance/empics/Yui Mok)

আক্রান্ত একটি কম্পিউটার

বিশ্বের প্রায় দেড়শোটি দেশের কম্পিউটার ব্যবহারকারী ওয়ানাক্রাইয়ের মুখোমুখি হয়েছেন৷ এর মধ্যে ব্যক্তিগত ব্যবহারকারী থেকে শুরু করে সরকারি, বেসরকারি সংস্থাও রয়েছে৷ মার্কিন প্যাকেজ সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান ফেডেক্স, ইউরোপের গাড়ি নির্মাতা, স্পেনের টেলিযোগাযোগ প্রতিষ্ঠান, ব্রিটেনের সরকারি স্বাস্থ্যসেবা, রাশিয়ার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, জার্মানির রেল সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান – এ সবই ওয়ানাক্রাইয়ের শিকার হয়েছে৷ ফলে হাসপাতালে রোগীদের সেবাদানে বিঘ্ন ঘটা থেকে গাড়ি উৎপাদন প্রক্রিয়া ব্যহত, ইত্যাদি ঘটনা ঘটেছে৷ চীনের সিকিউরিটি সফটওয়্যার প্রোভাইডার কিহু ৩৬০ বলছে, সরকারি সংস্থা সহ চীনের প্রায় ৩০ হাজার প্রতিষ্ঠান ওয়ানাক্রাইয়ের শিকার হয়েছে৷ বাংলাদেশও এই হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে ‘ম্যালওয়্যার টেক’ জানিয়েছে৷

সোমবার অফিস খোলার পর হামলার মাত্রা আরও বেশি হতে পারে বলে সপ্তাহান্তে আশংকা করেছিলেন বিশ্লেষকরা৷ তবে কিছু হামলার ঘটনা ঘটলেও সেটি আশংকাজনক পর্যায়ে নয় বলে জানা গেছে৷

যেভাবে শুরু

মাইক্রোসফটের উইন্ডোজ এক্সপি অপারেটিং সিস্টেমের একটি নিরাপত্তা ত্রুটিকে পুঁজি করে হ্যাকাররা একে একে সাইবার হামলা শুরু করে৷ এতে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থা এনএসএ-র ডেভেলপ করা একটি ডিজিটাল কোড ব্যবহার করা হয়েছে বলে রবিবার জানান মাইক্রোসফটের প্রেসিডেন্ট ও প্রধান আইন কর্মকর্তা ব্র্যাড স্মিথ৷ মস্কো ভিত্তিক কম্পিউটার নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠান ক্যাসপারস্কি ল্যাবের গবেষকরা বলছেন, ডকুমেন্ট ডাম্পের অংশ হিসেবে এই কোড ফাঁস হয়ে গিয়েছিল৷

হামলা দেখতে এরকম: ক্ষতিগ্রস্ত কম্পিউটার ব্যবহারকারীর মনিটরে একটি ইমেজ ফুটে ওঠে৷ সেখানে লেখা আছে, ‘‘ওহ, আপনার ফাইলগুলো এনক্রিপ্টেড হয়ে গেছে৷’’ ফাইল ফিরে পেতে বিটকয়েনের মাধ্যমে ৩০০ ডলার দাবি করা হয়৷ তিনদিনের মধ্যে না দিলে পরিমাণ দ্বিগুণ করা হবে বলে হুমকি দেয়া হয়৷ আর সাতদিনের মধ্যে অর্থ না পেলে ফাইল মুছে দেয়া হবে বলে জানানো হয়৷ দেখা গেছে, অনেক ব্যবহারকারীর খুবই গুরুত্বপূর্ণ ফাইল এনক্রিপ্টেড হয়ে গেছে৷ সেগুলো আর খোলা যাচ্ছে না৷ অর্থ না দিলে তথ্য মুছে যাওয়ার ভয়ে ইতিমধ্যে অনেকে টাকা দিয়েও দিয়েছেন৷ একটি টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে দাবি করা হয়েছে, ফাইল ফিরে পেতে সোমবার এশীয় সময় বিকেল পর্যন্ত প্রায় ৩৯ হাজার ডলার প্রদান করেছেন ব্যবহারকারীরা৷ তবে বিশেষজ্ঞরা এভাবে অর্থ না দিতে ক্ষতিগ্রস্তদের পরামর্শ দিয়েছেন৷ ক্যাসপারস্কি জানিয়েছে, তারা ফাইল খোলার ব্যবস্থা করতে একটি টুল বের করার চেষ্টা করছে৷

ওয়ানাক্রাই হামলাটি একটি অনন্য হামলা বলে জানিয়েছে, ইউরোপের নিরাপত্তা বিষয়ক সংস্থা ইউরোপোল৷ কারণ একজন ব্যবহারকারী ভুয়া ইমেল কিংবা কোনো ভুয়া অ্যাটাচমেন্ট খুললে তাঁর কম্পিউটার ছাড়াও একই নেটওয়ার্কে থাকা অন্য কম্পিউটারও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে৷

ইউরোপোল সোমবার জানিয়েছে, বিশ্বব্যাপী এই সাইবার হামলার পেছনে কে বা কারা আছে তা খুঁজে বের করার চেষ্টা শুরু হয়েছে৷ সংস্থার মুখপাত্র বলছেন, হামলার জন্য কারা দায়ী তা এখনই বলা সম্ভব নয়৷ তবে ফাইল ডিক্রিপ্ট করার টুল বের করার চেষ্টা চলছে বলে জানান তিনি৷

মাইক্রোসফটের উদ্যোগ

মাইক্রোসফট মার্চ মাসে উইন্ডোজ এক্সপি ও তার চেয়ে পুরনো অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহারকারীদের জন্য একটি সিকিউরিটি প্যাচ রিলিজ করেছিল৷ সেটি যারা ডাউনলোড করেননি তাদের কম্পিউটার হামলার শিকার হয়েছে৷ ঘটনা শুরু হওয়ার পরপরই মাইক্রোসফট জরুরি ভিত্তিতে আবারও ঐ সিকিউরিটি প্যাচ রিলিজ করেছে৷

জেডএইচ/ডিজি (এএফপি, এপি, রয়টার্স)

প্রিয় পাঠক, আপনি কিছু বলতে চাইলে লিখুন নীচে মন্তব্যের ঘরে...

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক