1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

বিশ্বব্যাংকের প্রতিবেদন নিয়ে দুদকের প্রশ্ন

প্রাক্তন যোগাযোগমন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেনের নাম আসামির তালিকায় না আসায় দুদকের তদন্ত নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বিশ্বব্যাংক৷ পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির অভিযোগ খতিয়ে দেখতে বিশ্বব্যাংক গঠিত পর্যবেক্ষক প্যানেল এই প্রশ্ন তুলেছে৷

বিশ্বব্যাংক প্যানেলের এই প্রতিবেদন নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বাংলাদেশের দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)৷ প্রতিষ্ঠানটির বিদায়ী চেয়ারম্যান গোলাম রহমান বুধবার সেগুনবাগিচায় দুদকের কার্যালয়ে সাংবাদিকদের কাছে বিশ্বব্যাংকের প্রতিবেদন নিয়ে কথা বলেন৷ তিনি বলেন, বিশ্বব্যাংকের প্রতিবেদন স্বতঃসিদ্ধ নয়৷ বিশ্বব্যাংকের উচিত ছিল আরও কিছুটা সময় নিয়ে প্রতিবেদন জমা দেয়া৷ আগামী ২৩শে জুন দুদকের চেয়ারম্যান পদে তাঁর মেয়াদ শেষ হবে৷

গোলাম রহমান বলেন, বিশ্বব্যাংক তাদের প্রতিবেদনে সব সময়ই একজন ব্যক্তির (সাবেক যোগাযোগমন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেন) নাম বলেছে৷ তাঁকে এজাহারভুক্ত আসামি করার জন্য চাপ দিয়েছে৷ কিন্তু দুদকের করা এফআইআরে এ নামটি সন্দেহভাজন তালিকায় রাখা হয়েছে৷ কাউকে আসামি করতে হলে যথেষ্ট তথ্য-প্রমাণ দরকার৷ কিন্তু দুদকের অনুসন্ধানে যে ৩২ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে, তাদের কেউ ওই ভদ্রলোকের নাম বলেননি৷ এছাড়া প্রধানমন্ত্রীর অর্থবিষয়ক উপদেষ্টা মশিউর রহমানকে সরিয়ে দেয়ার জন্য বিশ্বব্যাংক চাপ দিয়েছিল৷ তাদের চাপের কারণেই শেষ পর্যন্ত উপদেষ্টা মশিউর রহমানকে দায়িত্ব থেকে শেষ পর্যন্ত সরিয়ে দেয়া হয়৷

Symbolbild Bangladesch Korruption Banknoten Geld Bestechung

দুদকের তদন্ত নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বিশ্বব্যাংক

লুইস মোরেনো ওকাম্পো-র নেতৃত্বাধীন বিশ্বব্যাংকের প্যানেল তাদের প্রতিবেদনে বলেছে, দুর্নীতি দমন কমিশনের তদন্ত পূর্ণাঙ্গ ও নিরপেক্ষ হচ্ছিলো বলে তাদের মনে হয়নি৷ সাত জনকে আসামী করে আবুল হোসেনের নাম বাদ দিয়ে তদন্ত কার্যক্রম শুরু করে দুদক৷ সাবেক যোগাযোগ মন্ত্রীর বিষয়ে সুনির্দিষ্ট তথ্য প্রমাণ দেয়া সত্ত্বেও দুদক তাঁর বিরুদ্ধ কোনো ব্যবস্থা নেয়নি৷ তদন্তে প্রাথমিক তালিকা থেকে সাবেক যোগাযোগমন্ত্রীর নাম বাদ দেয়ার কোনো আইনগত যুক্তি আছে বলে মনে করে না এই প্যানেল৷ তাই তাদের মনে হয়েছে দুদকের কার্যক্রম প্রশ্নবিদ্ধ৷

এদিকে যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিশ্বব্যাংকের তদন্ত প্রতিবেদন ও মন্তব্য পদ্মা সেতু বাস্তবায়নে কোনো প্রভাব ফেলবে না৷ আগামী অর্থবছরে পদ্মা সেতু নির্মাণে তিন হাজার কোটি টাকা প্রয়োজন পড়বে, যা যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের হাতে রয়েছে বলেও দাবি করেন তিনি৷ বুধবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে মন্ত্রী বলেন, এরই মধ্যে পদ্মা সেতুর অ্যাপ্রোচ রোডের টেন্ডার করা হয়েছে৷ চলতি মাসেই মূল সেতুর টেন্ডার আহ্বান করা হবে৷ আগামী মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একসঙ্গে সবগুলো কাজের উদ্বোধন করবেন৷

তত্‍কালীন যোগাযোগমন্ত্রী সৈয়দ আবুল হোসেন বুধবার বিভিন্ন পত্রিকা ও টেলিভিশন চ্যানেলে পাঠানো এক বিবৃতিতে বলেছেন, বিশ্বব্যাংক বিশেষজ্ঞ প্যানেলের চূড়ান্ত রিপোর্টের মধ্যে কোনো নতুনত্ব, যুক্তি, প্রমাণ, সততা, ইন্টিগ্রিটি এবং জুরিসপ্রুডেন্স নেই৷ বিশ্বব্যাংক এক্সটারনাল বিশেষজ্ঞ প্যানেলের এ রিপোর্ট আন্তর্জাতিক আইন, ব্যক্তির মৌলিক অধিকার ও একটি সার্বভৌম স্বাধীন দেশের প্রচলিত আইন ও বিধিবিধানের প্রতি অবজ্ঞার সামিল৷ এ রিপোর্ট আন্তর্জাতিক দাদাগিরির এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত বলে প্রতীয়মান৷

সৈয়দ আবুল হোসেন আরও বলেন, ‘‘পরামর্শক নিয়োগে আমার কোন সম্পৃক্ততা প্রমাণ করতে ব্যর্থ হয়ে ঢাকা সফরের সময় বিশেষজ্ঞ প্যানেল চেয়ারম্যান লুইস মোরেনো ওকাম্পো দুদক ও বাংলাদেশ সরকারের উপর আমাকে অভিযুক্ত করতে চাপ দিয়েছিল – এ রিপোর্ট তারই পুনরাবৃত্তি৷ এজাহারে আমাকে আসামি না করায় 'দুদক-এর তদন্ত পরিপূর্ণ ও সঠিক হয়নি' বলে বিশ্বব্যাংক প্যানেল বিশেষজ্ঞদের দেয়া মতামত অগ্রহণযোগ্য এবং আইন ও বিচারে ভুল সিদ্ধান্ত৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন