1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

বিশ্বকে পদানত করতে চায় আইএস

ইসলাম ধর্মকে হাতিয়ার করে গোটা বিশ্বের উপর নিয়ন্ত্রণ কায়েম করতে চায় জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট বা আইএস৷ বিভিন্ন সূত্র থেকে এমনই একটা চিত্র উঠে আসছে৷ বিষয়টি নিয়ে তাই চর্চা চলছে সোশ্যাল মিডিয়ার জগতেও৷

কোনো রাষ্ট্র, আন্তর্জাতিক সংগঠন বা বহুজাতিক কোম্পানি যেভাবে কাঙ্খিত সাফল্যের লক্ষ্যমাত্রা স্থির করে, সেভাবে তথাকথিত ইসলামিক স্টেট-ও ২০২০ সালের লক্ষ্যমাত্রা স্থির করেছে৷ একদিকে তাদের নিয়ন্ত্রিত ‘খিলাফত'-এর সীমা বাড়িয়ে বিস্তীর্ণ এলাকা কব্জা করার লক্ষ্য যেমন স্থির করা হয়েছে, অন্যদিকে আদর্শগত শত্রু হিসেবে পশ্চিমা সভ্যতার বিনাশের নীতিও প্রতিফলিত হচ্ছে সেই কর্মসূচির মধ্যে৷ বলা বাহুল্য, যে সব ‘গোপন' নথিপত্র থেকে এই সব চাঞ্চল্যকর পরিকল্পনা পাওয়া যাচ্ছে, তার সত্যতা যাচাই করা সহজ নয়৷ অন্যদিকে এমন ভয়াবহ সম্ভাবনা উপেক্ষা করাও সম্ভব নয়৷

নাদিম নুসরত আইএস-এর এই ‘ষড়যন্ত্র' তুলে ধরেছেন এ প্রসঙ্গে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন শেয়ার করে৷

সামগ্রিক পরিকল্পনার আওতায় আইএস ভারতও দখল করতে চায়, এমন আশঙ্কার কথা পড়ে আদিত্য জাখর মনে করেন, পাকিস্তানের সঙ্গে শত্রুতার বদলে এই বিষয়টিকে বেশি গুরুত্ব দেওয়া উচিত৷

আইএস-এর সব রণকৌশলই দীর্ঘমেয়াদি নয় – এমনটা ভাবারও কারণ রয়েছে৷ যেমন তুরস্কের এর্দোয়ান প্রশাসন বহুকাল ধরে আইএস-এর সঙ্গে সংঘাত এড়িয়ে চলার পর সম্প্রতি তাদের উপর হামলা চালিয়ে ঝুঁকি বাড়িয়ে তুলেছে৷ হুসাম আইলুশ এ বিষয়ে একটি প্রতিবেদন শেয়ার করে মনে করিয়ে দিয়েছেন যে, আইএস তুরস্কের মানুষের উদ্দেশ্যে তুরস্ক দখলের আহ্বান জানিয়েছে এবং এর্দোয়ান-কে ‘শয়তান' হিসেবে বর্ণনা করেছে৷

আইএস ও মুসলিম জগতের শাসন ব্যবস্থার মধ্যে অনেক মিল আছে বলে মনে করেন সাকলেন ইমাম৷ এ প্রসঙ্গে এক বিশ্লেষণধর্মী প্রতিবেদন শেয়ার করেছেন তিনি৷ ইসলাম ধর্মের মৌলিক ভাবাদর্শ কীভাবে পরবর্তীকালে বিকৃত করা হয়েছে, তার অনেক দৃষ্টান্ত তুলে ধরা হয়েছে সেই প্রতিবেদনে৷

আইএস-এর বর্তমান তৎপরতার মধ্যেও নৃশংসতার শেষ নেই৷ প্রাচীন পালমিরা শহরে সভ্যতার নিদর্শনগুলির রক্ষণাবেক্ষণ করতেন ৮২ বছরের এক বৃদ্ধ পণ্ডিত৷ আইএস তাঁকে শিরশ্ছেদ করে নৃশংসভাবে হত্যা করে মৃতদেহটি একটি থামে ঝুলিয়ে রেখেছে৷ এই খবরটি অনেকে শেয়ার করেছেন৷

সংকলন: সঞ্জীব বর্মন

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন