1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

‘বিশ্বকাপের জন্য তৈরি আমরা’ বললেন জুমা

প্রস্তুতি সম্পন্ন৷ বিশ্ব ফুটবলের রাজসভা সেজে উঠেছে পুরোপুরি, জানালেন জ্যাকব জুমা৷চোট পেয়েছেন রবেন৷ আশ্চর্যভাবে ব্রাজিল দলে সুযোগ পেয়ে কৃতজ্ঞ গ্রাফিটে৷

default

ফুটবল রাজসভা সেজেগুজে তৈরি, বললেন জুমা

একদা যে দেশ প্রায় ভাগ হয়ে গিয়েছিল বর্ণবিদ্বেষের কালো ছাপ আর অপমান বুকে বহন করে, আজ সেখানেই বিশ্ব ফুটবলের রাজসভা সেজে উঠেছে৷ দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমা সেই প্রস্তুতি সম্পূর্ণ হওয়ার খবর দিয়ে রবিবার ধন্যবাদ জানিয়েছেন আবিশ্বের খেলোয়াড়ি মনোভাবকে৷ বলেছেন, ১৯৯০ সালে নেলসন ম্যান্ডেলার কারামুক্তির পর যে তুমুল আনন্দ আর উত্সাহ উদ্দীপনার কল্লোল বয়ে গিয়েছিল দেশজুড়ে, সেই আনন্দের ছবিটাই আবারও দেখছে তাঁর স্বদেশ৷ দেখছে এই বিশ্বকাপের সৌজন্যে৷ দেশের জাতীয় পতাকা যে দেশের মানুষের কত প্রিয়, তা বোঝা যাচ্ছে৷ বলেছেন জুমা৷ প্রিটোরিয়ার প্রেসিডেন্ট প্রাসাদে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে জুমার পাশেই ছিলেন ফিফার প্রেসিডেন্ট সেপ ব্লাটার৷ তবে একইসঙ্গে জুমা বেশ একহাত নিয়েছেন সেইসব নিন্দুকদের, যারা বলেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা পারবে না বিশ্বকাপের আয়োজন করতে৷

চোট পেলেন রবেন, আশঙ্কায় ডাচ শিবির

আবার চোট৷ আবার আশঙ্কা৷ ডাচ উইঙ্গার, দলের নির্ভরযোগ্য খোলোয়াড় আর্জেন রবেন চোট পেয়েছেন হ্যামস্ট্রিং-এ৷ শনিবার রবেন খেলতে নেমেছিলেন আমস্টারডামে হাঙ্গেরির বিরুদ্ধে প্রীতি ম্যাচে৷ খেলাটায় ৬-১ গোলে জেতে নেদারল্যান্ডস৷ দ্বিতীয়ার্দ্ধে খেলতে নেমে রবেন নিজেও দুটো গোল দেন৷ কিন্তু তারপরে বল নিয়ে এগোতে গিয়ে হঠাৎ মাঠেই শুয়ে পড়েন৷ এরপর স্ট্রেচারে করে হাসপাতাল৷

Champions League Finale 2010 Bayern München gegen Inter Mailand

আর্জেন রবেন চোট পেয়ে হাসপাতালে

রবেনের হ্যামস্ট্রিং-এ ব্যাপক চোট, মাংসপেশিতে টান ধরা বেশ চিন্তায় ফেলেছে ডাচ দলকে৷ শেষে রবেন যদি খেলতে না পারেন, তাহলে বেশ দুঃখ আছে ডাচ দলের৷ কারণ, বায়ার্ন মিউনিখের এই তারকা ফুটবলার কিন্তু দারুণ ফর্মে আছেন৷ তাঁর ওপর অনেকটাই নির্ভর করছে ডাচ দল৷ চিকিত্সকদের বক্তব্য, সময় লাগবে৷ উইঙ্গার আপাতত ডাক্তারদের পর্যবেক্ষণে৷

গ্রাফিটের স্বপ্নপূরণ, যেন রূপকথা

অন্যরা তো ভাবেই নি, ব্রাজিলের সম্ভাবনাময় স্ট্রাইকার এডিনাল্ডো বাতিস্তা লিবানিও বা যে নামে তিনি জনপ্রিয়, সেই গ্রাফিটে নিজেও কিছুদিন আগে কল্পনা করেন নি- তিনি এই বিশ্বকাপে ব্রাজিলের জার্সি গায়ে চড়িয়ে মাঠে নামবেন৷ ব্রাজিলের ছোট্ট এক শহরের বাসিন্দা গ্রাফিটে প্লাস্টিকের ব্যাগ বিক্রি করে পেট চালাতেন৷ ২১ বছর বয়সী হতদরিদ্র সেই যুবক তার শিশুকন্যার জন্য খাবার কেনার পয়সা যোগাড় করতে একটা অ্যামেচার ম্যাচ খেলতে এসেছিল৷ সেই খেলাতেই ঘটনাচক্রে তার ব্যতিক্রমী প্রতিভার দিকে চোখ পড়ে যায় ব্রাজিলের জাতীয় দলের কোচ দুঙ্গার৷ জহুরির চোখে সঠিক প্রতিভা বুঝতে পেরে দুঙ্গাই সেই যুবক গ্রাফিটেকে টেনে আনেন বিশ্বকাপের দলে৷ তেইশ জনের দলে সুযোগ পাওয়ার পর গ্রাফিটের এখনও বিশ্বাস হচ্ছে না পুরো ব্যাপারটা৷ ‘মাত্র তিন মাসের মধ্যে আমার জীবনটা যে এতদূর বদলে যাবে, স্বপ্নেও ভাবিনি' বলছেন গ্রাফিটে৷ রূপকথা একেই বলে হয়তো!

প্রতিবেদন: সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়

সম্পাদনা: সাগর সরওয়ার

সংশ্লিষ্ট বিষয়