1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

বিশ্বকাপের উদ্বোধনী স্টেডিয়াম নিয়ে বিপাকে ব্রাজিল

ব্রাজিলের সাও পাওলোর যে স্টেডিয়ামটিতে ২০১৪ সালের ফুটবল বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হওয়ার কথা তার নাম ‘এরিনা কোরিন্থিয়ান্স'৷ নভেম্বরে সেখানে এক দুর্ঘটনা ঘটায় নির্মাণকাজ শেষ হতে পারে এপ্রিলে৷

ফিফার ডেডলাইন অনুযায়ী স্টেডিয়ামটির কাজ ডিসেম্বরের শেষ নাগাদ সম্পূর্ণ হওয়ার কথা ছিল৷ ওদিকে ব্রাজিল কর্তৃপক্ষ স্বীকার করেছে, বিশ্বকাপের জন্য ১২টি স্টেডিয়ামের নির্মাণকাজ শেষ করতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছে তারা৷

রেকর্ড পাঁচবারের মতো বিশ্বকাপ আয়োজনের সুযোগ পাচ্ছে ব্রাজিল৷ ব্রাজিলের বৃহত্তম শহর সাও পাওলো'র জনপ্রিয় স্টেডিয়াম ‘মোরুম্বি'৷ এটি ৫০ এর দশকে নির্মিত হয়৷ এরপর সেখানে বেশ কিছু জমকালো অনুষ্ঠান ও ইভেন্ট আয়োজন করা হয়েছে৷ এমনকি গত বছর ম্যাডোনা ও লেডি গাগার কনসার্টও হয়েছে সেখানে৷ কিন্তু বিশ্বকাপ আয়োজনের জন্য স্টেডিয়ামটি উপযুক্ত নয়, বলে জানিয়েছিল আয়োজকরা৷ ফিফা জানিয়েছিল, বিশ্বকাপ আয়োজনের জন্য মোরুম্বি'র সঠিক মানদণ্ড নেই৷ যেমন অতিরিক্ত পার্কিং ব্যবস্থা এবং দর্শকদের ভালোমত দেখার সুযোগ ও রাষ্ট্রপ্রধানদের বসার জায়গা নেই বলে জানিয়েছিল ফিফা৷ ফলে তারা পরিকল্পনা দেয় নতুন স্টেডিয়াম নির্মাণের৷

তাই সাও পাওলো'র দরিদ্রতম পূর্বাঞ্চলে নতুন স্টেডিয়াম নির্মাণ শুরু করে ব্রাজিল৷ এর নাম দেয়া হয়েছে এরিনা করিন্থিয়ান্স৷ ২৭ নভেম্বর নতুন এই স্টেডিয়ামে একটি দুর্ঘটনা ঘটে৷ ৪২০ টনের একটি ছাদ তুলতে গিয়ে ক্রেন ভেঙে মারা যায় দুই শ্রমিক৷ ফলে পিছিয়ে যায় এর নির্মাণকাজ৷

ডিসেম্বরে নির্মাণকাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও এখন তা এপ্রিল পর্যন্ত গড়িয়েছে৷ ১২ জুন শুরু হতে যাওয়া বিশ্বকাপের জন্য যেটা খুব কাছাকাছি সময় হয়ে যায়৷ ব্রাজিল ও ক্রোয়েশিয়ার মধ্যে ম্যাচ দিয়ে সেদিনই উদ্বোধন হবে ২০১৪ বিশ্বকাপ ফুটবলের আসর৷

Stadien Fußball WM 2014 Brasilien Estádio Mineirão

১২টি স্টেডিয়ামের নির্মাণকাজ শেষ করতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছে ব্রাজিল

নতুন স্টেডিয়ামে আছে ৬৮ হাজার আসন৷ সেখানে স্টেডিয়াম তৈরি হলে দরিদ্রতম এলাকার অর্থনৈতিক উন্নতি হবে বলে আশা কর্তৃপক্ষের৷ করিন্থিয়ান্স ফুটবল ক্লাবের সাবেক প্রেসিডেন্ট আন্দ্রেস সানচেজ জানিয়েছেন, গত বেশ কয়েক বছর ধরে এলাকাটি অবহেলায় পড়ে আছে৷ তবে এই স্টেডিয়ামটি এলাকার অহংকারে পরিণত হতে পারে৷

অনেক সমালোচক বলছেন, সাম্প্রতিক এই দুর্ঘটনার কারণে বিশ্বকাপের আগে এটির নির্মাণকাজ শেষ হবে না৷ বরং এর ফলে দেশের আর্থিক ক্ষতি হচ্ছে৷ বিশ্বকাপ উপলক্ষে নতুন স্টেডিয়াম নির্মাণ ও পুরোনোগুলো সংস্কারের জন্য অন্তত ৩.৫ বিলিয়ন ডলার খরচ হচ্ছে৷ কেবল এরিনা করিন্থিয়ান্সের জন্যই খরচ ধরা হয়েছে ৫০০ মিলিয়ন ডলার, যা শেষ পর্যন্ত ৬৫০ মিলিয়ন ডলারে গিয়ে ঠেকবে বলে ধারণা করা হচ্ছে৷ আর এ খরচের প্রতিবাদে চলতি বছরের জুনে ব্যাপক বিক্ষোভ করে ব্রাজিলের সাধারণ মানুষ৷

অনেক রাজনৈতিক বিশ্লেষক বলছেন, বিশ্বকাপ শুরুর সময় আবারও বিক্ষোভকারীরা সোচ্চার হয়ে উঠবেন৷ বিশেষ করে এই দুর্ঘটনা এবং অব্যবস্থাপনায় অনেকেই ক্ষেপে আছেন সরকারের উপর৷

এপিবি/জেডএইচ (রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন