1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি ইউরোপ

বিমান বিধ্বস্তের ঘটনা ‘যুদ্ধাপরাধ’ হতে পারে

মালয়েশিয়ার এমএইচ১৭ বিমান বিধ্বস্তের ঘটনা ‘যুদ্ধাপরাধ’ হিসেবে গণ্য হতে পারে বলে জানিয়েছেন জাতিসংঘের মানবাধিকার প্রধান৷ এদিকে, ব্ল্যাক বক্স থেকে প্রাপ্ত তথ্য বলছে ‘শ্রাপনেল’এর আঘাতে ধ্বংস হয়েছে বিমানটি৷

জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশনের প্রধান নাভি পিল্লাই সোমবার জানিয়েছেন, এমএইচ১৭ বিমানটি যদি গুলি করে ভূপাতিত করা হয়ে থাকে তাহলে সেটি ‘যুদ্ধাপরাধ' হিসেবে গণ্য হতে পারে৷ এব্যাপারে গভীর এবং অবাধ তদন্তের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি৷

গত ১৭ জুলাই আমাস্টারডাম থেকে কুয়ালালামপুর যাওয়ার পথে ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে ভূপাতিত হয় মালয়েশিয়ার এমএইচ১৭ বিমান৷ সংশ্লিষ্ট অঞ্চল রাশিয়াপন্থি বিচ্ছিন্নতাবাদীদের দখলে রয়েছে৷ বিধ্বস্ত বিমানে থাকা ২৯৮ আরোহীর সবাই প্রাণ হারিয়েছেন৷

ব্ল্যাক বক্স থেকে প্রাপ্ত তথ্য

এদিকে এমএইচ১৭ বিমানটির ব্ল্যাক বক্স থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ইউক্রেন সোমবার জানিয়েছে, একটি বিস্ফোরণের পর ‘শ্রাপনেলের' আঘাতে বিমানটির চাপ ব্যাপক আকারে কমে যায় এবং সেটি ভূপাতিত হয়৷ এই প্রথম ব্ল্যাক বক্স থেকে উদ্ধার করা কিছু তথ্য জনসমক্ষে প্রকাশ করলো সেদেশ৷

ইউক্রেনের জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থার মুখপাত্র অ্যান্ড্রি লিসেঙ্কো এই বিষয়ে বলেন, বিমানটির গায়ে ক্ষেপণাস্ত্রের অসংখ্য শ্রাপনেল আঘাত হানে৷ এরপর সেটির মধ্যকার চাপ ব্যাপক কমে যায় এবং বিস্ফোরণ ঘটে৷

রাজধানী কিয়েভে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে অ্যান্ড্রি লিসেঙ্কো জানান, ব্রিটেনের বিশেষজ্ঞরা ব্ল্যাক বক্স থেকে বিভিন্ন তথ্য উদ্ধার করেছে৷ এখন সেগুলো পর্যালোচনার জন্য আন্তর্জাতিক তদন্ত দলের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে৷

নিরাপত্তা বিষয়ক ডাচ সংস্থা ওভিভি বিমান বিধ্বস্তের তদন্ত কাজে নেতৃত্ব দিচ্ছে৷ তবে ইউক্রেন ব্ল্যাক বক্স থেকে প্রাপ্ত হিসেবে যে তথ্য প্রকাশ করেছে তা নিশ্চিত করেনি৷

তদন্তে ধীরগতি

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউক্রেন মোটামুটি নিশ্চিত যে রাশিয়াপন্থি বিচ্ছিন্নতাবাদীরা ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়ে এমএইচ বিমানটি ভূপাতিত করেছে৷ আর এই কাজে তারা রাশিয়ায় তৈরি ‘সারফেস-টু-এয়ার' মিসাইল সিস্টেম ব্যবহার করেছে৷ তবে রাশিয়া এই অভিযোগ অস্বীকার করে জানিয়েছে, বিচ্ছিন্নতাবাদীদের এমন কোনো সমরাস্ত্র সরবরাহ করা হয়নি যা এভাবে বিমান বিধ্বস্ত করতে পারে৷

এদিকে, বিমান বিধ্বস্তের কারণ অনুসন্ধানে তদন্ত কাজ বারবার বাধাগ্রস্ত হচ্ছে৷ ফলে বিধ্বস্তের প্রকৃত কারণ এখনো জানা যাচ্ছে না৷ এমনকি বিচ্ছিন্নতাবাদী এবং ইউক্রেনের সামরিক বাহিনীর মধ্যকার চলমান লড়াইয়ের কারণে বিমানটি যে অঞ্চলে ভূপাতিত হয়েছে সেখানে তদন্ত পরিচালনা করতে পারছেন না আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞরা৷ রবি এবং সোমবার ভারি গোলাগুলির কারণে ডাচ এবং অস্ট্রেলিয়া পুলিশের একটি দল সংশ্লিষ্ট অঞ্চলে পরিকল্পিত সফর বাতিল করেছে৷

এআই / জেডএইচ (এএফপি, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়